Wednesday, June 19, 2024

Partha Chaterjee TMC: দল এবং মন্ত্রীসভা থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে তাড়ালো তৃনমূল! বাকি চোরদের কী হবে? প্রশ্ন বিরোধীদের

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: রাজ্য জুড়ে তৈরি হওয়া তৃনমূলের বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর অসন্তোষ টের পেয়েই পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দল এবং মন্ত্রীসভা থেকে ছেঁটে ফেললেন তৃনমূল সুপ্রিমো। গত শুক্রবার পার্থের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের টালিগঞ্জ ফ্ল্যাট থেকে ২১ কোটি ৯০লক্ষ টাকা উদ্ধার এবং পরের দিন তাঁকে ইডি গ্রেফতার করার পরও বহাল তবিয়তে দলে এবং মন্ত্রীসভায় রেখে দেওয়া হয়েছিল পার্থকে। দলের তরফে ওই বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধারের বিষয়টিকে ইডির ষড়যন্ত্র আখ্যা দিয়ে বলা হয়েছিল বিচারে দোষি সব্যস্ত না হওয়া অবধি পার্থ চট্টোপাধ্যায় দলের সমস্ত পদ মন্ত্রীসভায় বহাল থাকবেন। কিন্তু বুধবার ফের সেই পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের আরেকটি ফ্ল্যাট থেকে ৩০কোটিরও বেশি টাকা উদ্ধার হয়েছে। আর তারপরই রাজ্য জুড়ে তৃনমূল কংগ্রেসের প্রতি তৈরি হয়েছে তীব্র অসন্তোষ, ক্রোধ ও ঘৃণা। এই পরিস্থিতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ছেঁটে ফেলা ছাড়া আর কোনও উপায় ছিলনা। এই অবস্থায় মন্ত্রিত্ব থেকে তাঁকে ছেঁটে ফেলার মত কঠিন সিদ্ধান্তই নিতে হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীকে। আর তার কিছুক্ষণ পরেই দলেরও সমস্ত পদ থেকে তাঁকে অপসারিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

উল্লেখ্য শিল্প ছাড়াও পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে ছিল, পরিষদীয়, তথ্য প্রযুক্তির মত গুরুত্বপূর্ণ দফতর। বৃহস্পতিবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে মন্ত্রিসভা থেকে অপসারিত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। নবান্নে হওয়া মাত্র ১৫ মিনিটের একটি বৈঠক থেকেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই বিকেল সাড়ে পাঁচটায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় ইস্যু নিয়ে বৈঠকে বসে তৃণমূল কংগ্রেসের কোর কমিটি। সেখানেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দলের সব পদ থেকে তো বটেই, দল থেকেও বহিস্কার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দলের মহাসচিব পদ, শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটির সভাপতি এবং পরিষদীয় দলনেতার পথ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের শৃঙ্খলা কমিটির জরুরি বৈঠক ডাকেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পার্থ চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব ও শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির পদে ছিলেন।

বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে অপসারণ করার কথা ঘোষণা করা হয়। এই তিনটি দফতর আপাতত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতেই থাকবে বলে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন ‘পার্থদার কাছে যে দফতরগুলো ছিল সেগুলো থেকে রিলিভড করা হয়েছে। এখন ওই দফতরগুলো আমার কাছে চলে এসেছে। পার্থ দার কাছে যে দফতরগুলো ছিল এখন সেগুলো আমার কাছে, আমি তো আর কিছু করবো না। দেখছি, কাউকে বন্টন করা হবে।’ তবে বিরোধীদের পক্ষ থেকে বিষয়টিকে আইওয়াশ বলে জানানো হয়েছে, চাপে পড়েই তৃনমূলের এই সিদ্ধান্ত। এসএসসি দুর্নীতির কথা সরকার অনেক আগে থেকেই জানত তারপরও এতদিন কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বিরোধীরা আরও জানিয়েছেন, নারদ মামলায় যাঁদের হাত পেতে ঘুষ নিতে দেখেছে সারা বাংলা তাঁদের অনেকেই তো মন্ত্রীসভা কিংবা দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসে রয়েছেন। কই তাঁদের তো তাড়ানো হয়নি।

- Advertisement -
Latest news
Related news