Sunday, July 14, 2024

Haldia Tourists in Accident: উত্তর পূর্ব ভারত ভ্রমণে গিয়ে মেঘালয়ে দুর্ঘটনায় হলদিয়ার পর্যটক বোঝাই বাস! নিহত ১, আহত ১৭

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়া থেকে উত্তর পূর্ব ভারত ভ্ৰমনে গিয়ে দুর্ঘটনায় পড়েছে একটি পর্যটক বোঝাই বাস। ঘটনায় এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। আহত হয়েছেন ১৭জন নারী ও পুরুষ। এঁদের মধ্যে কয়েকজনের আঘাত গুরুতর বলে জানা গেছে। বেশ কয়েকজনের শরীরে অস্ত্রপচার করতে হয়েছে। আহতরা মেঘালয়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। একটি অসমর্থিত সূত্রে জানা গেছে মৃত মহিলা পর্যটকের নাম কাজলী চক্রবর্তী। দুর্গাচক এলাকার বাসিন্দা ওই মৃতার বয়স ৪৮ বছর।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

দুর্ঘটনায় গুরুতর আঘাত থেকে রক্ষা পাওয়া এক যাত্রী জানিয়েছেন, ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাত ১১টা নাগাদ। পর্যটক বোঝাই বাসটি মেঘালয়ের শিলং পরিদর্শন করার পর আসামের জলদাপাড়ার দিকে রওনা হয়েছিল। ঘটনাস্থল মেঘালয়ের রি-ভয় জেলার নোঙপো থানার বিরনিহাট পুলিশ ফাঁড়ির কাছাকাছি।

দুর্ঘটনা ঘটনাগ্রস্ত বাস সোনার হরিণ

বাসের মধ্যে থাকা এক পর্যটক এই দুর্ঘটনার জন্য সরাসরি চালককেই দায়ি করে বলেছেন, ‘গোটা ঘটনাটাই ঘটেছে আমার চোখের সামনে। আমি বাসের মধ্যে থেকে সামনের রাস্তার দিকেই তাকিয়ে ছিলাম।পরিষ্কার আলোকিত রাস্তায় সামনে একটি বাঁক স্পষ্ট দেখা যাচ্ছিল। অত বড় বাঁক থাকা স্বত্বেও কেন গাড়ির চালক হঠাৎ গতি বাড়িয়ে দিয়েছিলেন বুঝতে পারলামনা। ওই বাঁকের মধ্যেই বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গেল।”

দুর্ঘটনার সময় বেশিরভাগ যাত্রী ঘুমিয়ে ছিলেন। কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই দুর্ঘটনা ঘটে যায়। জানা গেছে গুরুতর আহতদের মধ্যে বেশিরভাগই মহিলা। গত ২৪শে ডিসেম্বর হলদিয়ার দুর্গাচক থেকে ৬৯ জন পর্যটক নিয়ে বাসটি ছেড়েছিল। দুর্গাচক ছাড়াও বাসের পর্যটকরা ছিলেন মঞ্জুশ্রী, তালতলা, খঞ্জরচক, মাতঙ্গিনী মোড় ইত্যাদি এলাকার বাসিন্দা। ১০দিনের এই পর্যটন শেষ হওয়ার কথা ২ জানুয়ারি। সেইমত রুটিন ধরেই বাসটি ফেরা শুরু করেছিল আসাম অভিমুখ হয়ে বাংলার পথে। তারই মধ্যে ঘটে গেল এই দুর্ঘটনা।

বর্তমানে যে ১৭ জন আহত হয়েছেন তাঁদের মধ্যে কয়েকজনের অপারেশন রাতেই করা হয়েছে। দু’জন মহিলার অপারেশন করা হচ্ছে বৃহস্পতিবার রাতে। এলাকার পুলিশ এবং প্রশাসনের আশানুরূপ সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে বলে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন পর্যটকরা।

তছনছ বাস

অল্পবিস্তর আহত মহিলা পুরুষ ও শিশুদের নিয়ে অন্য একটি বাসে করে শিলিগুড়ির দিকে রওনা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন অবশিষ্ট পর্যটকরা। পূর্ব মেদিনীপুর পুলিশ, প্রশাসন ও নবান্নের তরফে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে পর্যটক ও মেঘালয় প্রশাসনের সঙ্গে। ‘সোনার হরিণ’ নামের ওই বাসটি বাড়সুন্দরা এলাকার বলে জানা গেছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news