Wednesday, June 19, 2024

Digha Tourist Death By Eating Carbs: বড়দিনের ছুটি কাটাতে এসে কাঁকড়া খেয়ে মৃত্যু দিঘায়! ৪০ দিনের মধ্যে দ্বিতীয় মৃত্যু কাঁকড়া অ্যালার্জিতে

A 19-year-old girl ate cooked crabs from a stall while walking on New Digha beach on Thursday night. Half an hour after being admitted to Digha State General Hospital, the young woman fell to her death. Police said the dead girl's name was Deepika Bhakat. The house is at Hattala in Rampurhat in Birbhum district. Police said the most tragic incident was that Didi Santoshi Singh Bhakat and son-in-law Shubhankar Singh took the girl to a private hospital in Kolkata on Thursday for treatment of her allergy. Then they plan to spend Christmas holiday in Digha. Soumyadeep Sikder, a young man from Behala, Kolkata, died in the same way on November 20, 40 days ago, while visiting Digha. After eating crab with rice in the hotel restaurant at noon, he started feeling discomfort on his face and lips. He died at the hotel shortly after. The family said he was also allergic to crab and shrimp. Just then, another incident caused panic.

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: যদি আপনার অ্যালার্জি থাকে আর যদি আপনার কাঁকড়া প্রিয় হয় তবে প্লিজ সাবধান হয়ে যান। কারন মাত্র ৪০দিনের মধ্যে দিঘায় বেড়াতে এসে ২জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। বৃহস্পতিবার রাতে নিউ দিঘার সৈকতে বেড়াতে বেড়াতে একটি স্টল থেকে রান্না করা কাঁকড়া খেয়েছিলেন বছর উনিশের এক তরুণী। দিঘা রাজ্য সাধারণ হাসপাতালে ভর্তি করার আধঘন্টার পর সেখানে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তরুণী। পুলিশ জানিয়েছে মৃত তরুণীর নাম দীপিকা ভকত। বাড়ি বীরভূম জেলার রামপুরহাটের হাটতলাতে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

পুলিশ জানিয়েছে, সবচেয়ে মর্মান্তিক ঘটনা হল বৃহস্পতিবার কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ওই তরুণীর অ্যালার্জিরই চিকিৎসার জন্যই দিদি সন্তোষী সিং ভকত এবং জামাইবাবু শুভঙ্কর সিং গিয়েছিলেন তরুণীকে নিয়ে। তারপর তাঁরা দিঘায় বড়দিনের ছুটি কাটানো পরিকল্পনা করেন। ঠিক ছিল দিঘায় ছুটি কাটিয়ে ফের কলকাতায় রিপোর্ট নিয়ে ফিরবেন তাঁরা। কিন্তু তারই মাঝে ঘটে যায় এই মর্মান্তিক ঘটনা। নিউ দিঘার একটি হোটেলে উঠেছিলেন তাঁরা। আর রাতে সি-বিচে গিয়ে কাঁকড়া খেয়ে এই অবস্থা।
দীপিকার দিদি-জামাইবাবু জানিয়েছেন, ‘ ওর যে অ্যালার্জি ছিল তা আমরা জানতাম কিন্তু সেই অ্যালার্জি যে কাঁকড়াতে তা জানতাম না। জানলে কী ওকে কাঁকড়া খেতে দিতাম!’

প্রায় ৪০দিন আগে নভেম্বরের ২০ তারিখে দিঘায় বেড়াতে এসে ঠিক একই ভাবে কাঁকড়া খেয়ে মৃত্যু হয়েছিল কলকাতার বেহালার যুবক সৌম্যদীপ শিকদারের। হোটেলের রেস্টুরেন্টে দুপুরে ভাতের সঙ্গে কাঁকড়া খাওয়ার পর তাঁর মুখে-ঠোঁটে অস্বস্তি শুরু হয়। কিছুক্ষনের মধ্যেই হোটেলেই মৃত্যু হয় তাঁর। পরিবার জানিয়েছিল তাঁরও অ্যালার্জি ছিল কাঁকড়া ও চিংড়ি মাছে। ঠিক তারপরই আবার একটা ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে সৌম্যদীপকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সুযোগই হয়নি পরিবারের। তার আগেই মৃত্যু হয়েছিল তার। কিন্তু দীপিকাকে বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০ টা নাগাদ দিঘা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আধঘন্টার মধ্যেই মৃত্যু হয় তাঁর। চিকিৎসকরা বলছেন, তীব্র শ্বাসকষ্ট, রক্তচাপ নেমে যাওয়া, মুখ দিয়ে ফেনা ওঠা সাধারণভাবে অ্যালার্জিরই উপসর্গ। বাকিটা ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে।” মিনিট তিরিশ চিকিৎসা চলার পর রোগীর মারা যায়।’ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে দিঘা মোহনা কোস্টাল থানার পুলিশ।

- Advertisement -
Latest news
Related news