Wednesday, June 19, 2024

Global Hunger Index 2021: ক্ষুধা সূচকে আরও নীচে নামলো ভারত! ওপরে বাংলাদেশ নেপাল পাকিস্তান, শীর্ষে চীন ব্রাজিল

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: এক বছরে দেশের পরিস্থিতি আরও কিছুটা লজ্জা জনক অবস্থায় পৌঁছে গেল! বিশ্বের ১১৬টি দেশের মধ্যে ক্ষুধা সূচকে ভারতের স্থান দাঁড়ালো ১০১ নম্বর স্থানে। ভারতের বেশ কিছুটা ওপরেই অবস্থান করছে নেপাল, বাংলাদেশ এমনকি পাকিস্তানের মত দেশও। ২০২০ সালে ভারতের স্থান ছিল ৯৪তম।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

অর্থাৎ গত একবছরে দেশের সাধারণ মানুষের উন্নতি বা স্থিতিশীল নয় বরং আরও যে খারাপ হয়েছে তা প্রমাণ করছে এই রিপোর্ট। বৃহস্পতিবার বিশ্ব ক্ষুধা সূচকের যে তালিকা ঘোষিত হয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে আরও ৭ ধাপ নিচে নেমে ভারতের স্থান হয়েছে ১০১ তম। ভারতের অনেক ওপরে রয়েছে নেপাল ও বাংলাদেশ রয়েছে ৭৬তম স্থানে। ভারতের চেয়েও ভালো অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তান, ৯৮তম স্থানে।

প্রতিবছরের মত এবারেও এই তালিকা প্রস্তুত আয়ারল্যান্ডের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড’ এবং জার্মান সংস্থা ‘ওয়েল্ট হাঙ্গার হিলফ’। মূলতঃ চারটি বিষয়ের নিরীখে এই ক্ষুধার পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়। সেই নির্ণায়ক ক্ষেত্রগুলি হল এগুলি হল অপুষ্টি, পাঁচ বছরের কমবয়সি শিশুদের উচ্চতা, মৃত্যুহার, উচ্চতার তুলনায় ওজন। তবে সামগ্রিক ভাবে ভারতের অবস্থান হতাশাজনক হলেও আগের থেকে উন্নতি হয়েছে কয়েকটি বিভাগে। যেমন পাঁচ বছরের কমবয়সিদের মৃত্যুহার কিংবা অপুষ্টির হার। সেই সঙ্গে দেখা গিয়েছে, করোনা অতিমারীর বিধিনিষেধ ভারতের জনজীবনে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে।

ভারতের ‘গ্লোবাল হাঙ্গার ইনডেক্স’ বা জিএইচআই স্কোর-এর ধারাবাহিক ভাবে পতন হচ্ছে। ২০০০ সালে ভারতের জিএইচআই স্কোর ছিল ৩৮.৮, সেখানে ২০১২ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে ভারতের স্কোর কমে ২৮.৮ থেকে ২৭.৫-এর মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। এই ইনডেক্স স্কোরে খুব সামান্য একটু উন্নতি লক্ষ্য করা গেছে। গতবছর এই স্কোর ছিল ২৭.২।

ভারতের এই ইনডেক্স স্কোরকে মারাত্মক খারাপ বলেই বর্ননা করেছে তালিকা প্রস্তুতকারী সংস্থা। তাদের মতে ভারতের চেয়ে বেশ ভালো অবস্থানে থেকে মাঝারি অবস্থানে রয়েছে নেপাল এবং ভুটান। অন্যদিকে শিশুদের অপুষ্টি দিক থেকেও গতবছরের চেয়ে এবছর কোনও উন্নতি লক্ষ্য করা যায়নি। গতবছরের মত এবছরের স্কোর দাঁড়িয়ে রয়েছে ২৭ পয়েন্টেই।

ক্ষুধা ও অপুষ্টির নিরিখে তৈরি তালিকাটিতে সবচেয়ে ভাল অবস্থানে রয়েছে চিন, ব্রাজিল, কুয়েতের মতো ১৮টি দেশ। তার জিএইচআই স্কোর ৫-এরও নিচে রয়েছে। বিশ্ব ক্ষুধা সূচকের তালিকায় ওই দেশগুলি রয়েছে ১নম্বরে। অন্যদিকে বিশ্ব ক্ষুধার ক্রমতালিকায় ভারতের পিছনে রয়েছে পাপুয়া নিউগিনি, আফগানিস্তান, নাইজেরিয়া, কঙ্গো, লাইবেরিয়া, মোজাম্বিক, ইয়েমেন, সোমালিয়ার মতো ১৫টি দেশ। আশঙ্কার আরও কারন এই যে সামগ্রিক ভাবে দেখা যাচ্ছে, খিদের সঙ্গে বিশ্বব্যাপী লড়াই মোটেই ঠিক পথে এগোচ্ছে না।

ওই সংস্থা  বলছে, এই ভাবে চললে বিশ্বের ৪৭টি দেশ ২০৩০ সালের মধ্যে ক্ষুধার হার কমিয়ে আনার লক্ষ্যে সফল হতে পারবে না। আর তারমধ্যে ভারতও রয়েছে। এর থেকে আরও একটা বিষয় পরিস্কার হয়ে যাচ্ছে যে দশকের পর দশক জুড়ে ভারতের সাধারণ জনগণকে উন্নতির যে স্তোকবাক্য আর নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে তা সত্যি সত্যি ‘জুমলা’ ই। প্রশ্ন উঠছে ভারত কী আদৌ এই জায়গা থেকে ওপরে ওঠার লড়াই করছে?

- Advertisement -
Latest news
Related news