Sunday, April 14, 2024

Partha Chatterjee: উপেন বিশ্বাসই সঠিক, মনে করছেন ইডি আধিকারিকরা! টাকা সরাসরি যেত সিটি সাউথ ফ্ল্যাটেই! এবার গ্রেফতার কলকাতার ৫ ফ্ল্যাটটের মালিকন অর্পিতাও

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: সিবিআইয়ের (CBI) প্রাক্তন যুগ্ম অধিকর্তা (Jiont Director) উপেন বিশ্বাস ‘সৎ রঞ্জন’ প্রসঙ্গে বলেছিলেন রাতের অন্ধকারে বস্তা বস্তা টাকা আসত কলকাতায়। শুক্রবার দিনভর পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হওয়া কোটি কোটি টাকা সেই টাকারই অংশ বলে মনে করছেন ই.ডি (Enforcement Directorate) আধিকারিকরা। শনিবার সকাল অবধি চারটি মেশিনে টাকা গোনার পর উদ্ধার হওয়া টাকার পরিমাণ ২১কোটি ২০লক্ষ বলে জানা গেছে। কোথা থেকে এল এই টাকা তার কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়।  আর সেই কারণেই তাঁকে শেষ অবধি গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। জানা গেছে শনিবার সকালে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করার কয়েকঘন্টার মধ্যেই বেলা ১১টা ৫০ নাগাদ গ্রেফতার হন অর্পিতা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

এদিকে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বিপুল সম্পত্তির খোঁজ পেয়েছে ইডি (ED)। এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে, পার্থ ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতা টালিগঞ্জের অভিজাত আবাসনে ২টি ফ্ল্যাট, বেলঘরিয়ায় ২টি ফ্ল্যাট, ২১.২০ কোটি নগদ টাকা, ৭৯ লক্ষ টাকার সোনার গয়নার ‘মালকিন’। তাঁর আয় এবং সম্পত্তির মধ্যে বিপুল গরমিল। হিসাব বহির্ভূত সম্পত্তির উৎস জানতে তাঁকে শুক্রবার থেকে জেরা করছেন তদন্তকারীরা। সূত্রের খবর, বারবার নিজের বয়ান বদল করছেন অর্পিতা। সে কারণেই শনিবার বেলা ১১টা ৫০ নাগাদ গ্রেপ্তার করা হয় তাঁকে। তার ঘণ্টাদুয়েক আগে রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করে ইডি।

এদিকে, পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলার পর তাঁকে ২দিনের জন্য নিজস্ব হেফাজতে নিয়েছে ইডি। নাকতলার আবাসন থেকে গ্রেফতারের পর পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে পার্ক সার্কাস থেকে ডায়মন্ড হারবার রোড হয়ে ঘুরপথে জোকার ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় পার্থবাবুকে। সেখানেই শারীরিক পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয় তাঁর। রাজ্যের মন্ত্রীকে তদন্তের অগ্রগতির স্বার্থে মন্ত্রীকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার পর অর্পিতাকেও গ্রেফতার করায় এই বিপুল পরিমাণ টাকার উৎস জানতে দু’জনকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হতে পারে।

ইডি আধিকারিকরা মনে করছেন, অর্পিতার (Arpita Mukherjee) ফ্ল্যাট থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধারের নেপথ্যে রয়েছে সেই নিয়োগ দুর্নীতি। এদিকে, এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে কাটাছেঁড়া শুরুর সময় থেকেই সিবিআইয়ের নজরে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রাজ্যের মন্ত্রীর সঙ্গে অর্পিতার ‘ঘনিষ্ঠ’ সম্পর্ক ছিল। মডেল- অভিনেত্রীর ফ্ল্যাটের নিরাপত্তারক্ষীর দাবি, মাঝেমধ্যে অর্পিতার ফ্ল্যাটে আনাগোনা ছিল পার্থ চট্টোপাধ্যায়েরও। রাজ্যের বিভিন্ন অংশ থেকে আসা ঘুষের টাকা অর্পিতার ফ্ল্যাটে জমা হওয়ার পর তা পার্থ চট্টোপাধ্যায় কী ভাবে ব্যবহার করতেন, আদৌ ব্যবহার করতেন কীনা এখন সেটাও জানতে চান ইডি আধিকারিকরা।

- Advertisement -
Latest news
Related news