Monday, May 20, 2024

Digha: ৩ দিন পর দিঘার আকাশে সূর্য! জাওয়াদ যাপন শেষে ফের সমুদ্রের পথে শত শত ট্রলার

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: সোমবার অবধি ছিল সমুদ্র গমনে নিষেধাজ্ঞা, ছিল সমুদ্র স্নানেও বারণ। আবহাওয়া দপ্তরের সেই নিদান মেনেই যেন সোমবার দিঘার আকাশে উঁকি দিল সূর্য। দক্ষিণ ছড়িয়ে পশ্চিমে অস্ত যাওয়ার পথে মেঘ চিরে সেই সূর্য জানিয়ে দিয়ে গেল, সব কিছু ঠিকঠাক। আবার সমুদ্রে যাওয়ার পালা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
৩ দিন
৩দিন পরে সোমবার দিঘার আকাশে সূর্য

সূর্যের দেখা মেলার পরই উৎকন্ঠা কেটে গিয়ে মৎসজীবীদের মধ্যে আনন্দের হুল্লোড়। ফের সমুদ্রে ভেসে যাওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। আনন্দ উপচে পড়ছে হোটেল মালিকদের মধ্যেও। জাওয়াদ কেটে যাওয়ায় ফের নতুন করে বুকিং শুরু হয়েছে। আশা সামনের উইকএন্ড অর্থাৎ শুক্রবার বিকাল থেকে রবিবার বিকাল অবধি পর্যটক গিজগিজ করবে দিঘায়।

সমুদ্র যাত্রায় তৈরি

ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের কারনে শনি থেকে সোম কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছিল দিঘায়। মাছ ধরা বন্ধ করে শুক্রবার বিকালের মধ্যেই ছিল অকাল প্রত্যাবর্তন। সমুদ্র স্নানে কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করে পুলিশের পক্ষ থেকে দড়ি দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছিল দিঘার সমস্ত স্নানঘাট। পুলিশ, NDRF আর SDRFয়ের অতন্দ্র প্রহরা। তিনদিন ধরেই টানটান নিরাপত্তা। ৮০% হোটেল বুকিং বাতিল হয়ে গেছিল দিঘা, মন্দারমনি, তাজপুরে।

অবশেষে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ সমুদ্রেই গুটিয়ে গেছে, ছিল শুধু উৎকন্ঠা আর মাঝারি ধাঁচের বৃষ্টি। তেমন জলোচ্ছ্বাস না হওয়ায় শেষ অবধি সোমবার বিকেলের পর দিঘার সৈকত সরণির রাস্তায় প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয় পর্যটকদের।
শুরু হয়ে যায় সৈকতের দোকান-বাজার খোলার তোড়জোড়ও।

একেবারে ক্ষতি হয়নি তা’নয়। দিঘা সহ গোটা পূর্ব মেদিনীপুর জুড়েই গত ৩ দিন ধরে চলে বৃষ্টিরশাসন। ফলে জমা জলে ফসলের ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করছে কৃষি দপ্তর।ক্ষয়ক্ষতির হিসেবে কষছেন আধিকারিকরা। তবে জেলার কোথাও কোনও নদী-সমুদ্রবাঁধের ক্ষতি হয়নি বলে জানিয়েছেন রাজ্যের সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। সমুদ্র উপকূলে এদিন সকাল থেকে শুরু করে দিনের কোনও সময়েই মেঘ আর গত ক’দিনের মতো বৃষ্টি হয়ে ঝরতে শুরু করেনি। আকাশ মেঘলা থাকায় হাওয়ায় অবশ্য স্যাঁতস্যাঁতে ভাব ছিল। তবে শনি-রবিবারের তুলনায় সোমবারে দিনের তাপমাত্রা একটু বেশি থাকায়, ঠান্ডাভাব ছিল অনেকটাই কম। জোয়ারের সময় সামান্য কিছু উত্তাল হয়ে ওঠে সমুদ্র।

অতঃপর সবকিছু স্বাভাবিক দিঘায়। মৃদু বৃষ্টিও বিদায় নিয়েছে ধিরে ধিরে বাতাসও স্বাভাবিক। এবার সমুদ্র যাত্রার তোড়জোড়। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, গোটা ডিসেম্বর হয়ত বা জানুয়ারি জুড়েই মাঝে মধ্যেই চলে আসবে নিম্নচাপের খাঁড়া। খুব স্বাভাবিক ভাবেই মাঝে মধ্যেই ঘূর্ণিঝড়ের চোখ রাঙানি আর সমুদ্র যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা থাকবে। তাই আগামী নিম্নচাপ আসার আগেই খুব তাড়াতাড়ি সমুদ্রে ভাসতে চান মৎসজীবীরা। এখন একটাই প্রার্থনা মঙ্গলবার আরও উজ্জ্বল হোক সূর্যের হাসি। আর মেঘ নয়, সূর্যের দখলেই থাকুক পুরো দিন। উঠে যাক সমস্ত নিষেধাজ্ঞা। আরেকটা নিম্নচাপ আসার আগেই আরও কিছু মাছ ডাঙায় তুলে ফেলা চাই, নচেৎ ভাতকাপড় জুটবে কী করে? আর এটাই তো দিঘা তথা উপকূলের জীবন!

- Advertisement -
Latest news
Related news