Saturday, May 25, 2024

Dantan Murder: মা কে পিটিয়ে মেরে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছে বাবা-ই, জানালো ৫ বছরের মেয়েই! দাঁতনে গ্রেপ্তার শ্বশুর, পলাতক স্বামী

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: মা-কে রাতভর পেটানোর পর গলা টিপে তাঁকে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে দিয়েছে বাবা-ই! প্রতিবেশীর কাছে এমনটাই জানালো ৫বছরের শিশুকন্যা! এমনই মর্মান্তিক ও পৈশাচিক ঘটনার স্বাক্ষী থাকা ওই ৫ বছরের শিশুকন্যা সেই অভিজ্ঞতা বর্ণনার পর ওই গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতন থানার অন্তর্গত পানতুনিয়া গ্রামে। ঘটনার পরই পলাতক ওই গৃহবধূর স্বামী। শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার দিনভর সরগরম রইল দাঁতন থানার আঙ্গুয়া গ্ৰাম পঞ্চায়েতের পানতুনিয়া গ্ৰাম। সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। মৃত গৃহবধূর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। পুলিশ জানিয়েছে মৃতের নাম পূজা দাস(২৮)। ঘটনার পর থেকে মৃতার স্বামী সুরজ দাস পলাতক। তবে মৃতার বাবা কমল কৃষ্ণ দের একটি অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ মৃত গৃহবধূর শ্বশুর উদয় দাসকে গ্ৰেফতার করেছে। ধৃত ও পলাতকের বিরুদ্ধে পুলিশ মৃতার বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে একটি খুনের মামলা দায়ের করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে দাঁতন থানার পুলিশ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার ভোরে গৃহদেবতার নিত্যপুজোর জন্য গ্ৰামে ফুল তুলতে বেরিয়েছিলেন এক মহিলা। তখন তিনি শুনতে পান একটি শিশু ঘরের ভেতরে অবিরাম কেঁদেই চলেছে। এরপরই তিনি ওই বাড়ির জানলা দিয়ে উঁকি মেরে দেখেন বাড়ির ভেতরে ওই পরিবারের ৫ বছরের শিশুকন্যা মমতা দাস কান্নাকাটি করছে। এরপরই তিনি প্রতিবেশী ওই বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেন। ভেতরে ঢুকে দেখতে পান যে ওই শিশুকন্যটি বাড়ির মেঝেতে পড়ে থাকা তাঁর মা পূজার নিথর শরীরের কাছে বসে রয়েছে। বিষয়টি তাঁর কাছে সন্দেহজনক হওয়ায় প্রতিবেশীদের খবর দেন তিনি। নিমিষেই বিষয়টি জানাজানি হয়ে যায়। গ্ৰামবাসীরা জড়ো হয়ে যান দাস পরিবারের বাড়িতে।

গ্রামবাসীরা বিষয়টি জানার জন্য ওই গৃহবধূর স্বামী সুরজ দাসের খোঁজ করলে দেখা যায় সে পলাতক। শুধু পূজার মৃতদেহটি পড়ে রয়েছে। কন্যা সন্তানটি কেঁদে চলেছে। গ্রামবাসীরাই খবর দেন দাঁতন থানায়। আর আটকে রাখা হয় মৃতার শ্বশুরকে। খবর পেয়ে দাঁতন থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। শিশুটিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। সে পুলিশকে বুধবার রাতের সমস্ত ঘটনা খুলে বলে। তারপর পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে। আর আটক করে নিয়ে যায় মৃতার শ্বশুরকে। পরে অভিযোগ পাওয়ার পর মৃতার শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করা হয়। জানা গেছে এর আগেও মারধর করা হত পূজাকে। পলাতক সুরজের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছে পুলিশ।

- Advertisement -
Latest news
Related news