Monday, April 15, 2024

Kharagpur-Howrah Section: অবরোধকারীদের ওপর দিয়েই ট্রেন চালিয়ে দিলেন চালক! চুল ফারাকে বাঁচলেন ৩ ধর্মঘটী

The driver drove the train over the blockers in the line! At least 3 strikers survived the horrific accident. Almost came back to life after leaving the wheel of the train. Kulgachhia station in Kharagpur Howrah branch of the South Eastren Railway witnessed the horrific scene at 7.25 am on Monday, the first day of the two-day shutdown called by several leftists in the country. The role of the bandh supporters in the incident has been questioned as well as the mentality of the driver. According to the railways, the blockade was carried out without any permission, so the railways will take legal action against the blockaders, but the question is, if someone is on the railway line without permission, the driver can continue the train even after seeing it? Is there any provision in the railway law?

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: লাইনে অবরোধকারীদের ওপর দিয়েই ট্রেন চালিয়ে দিলেন চালক!ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবল থেকে বাঁচলেন অন্ততঃ ৩ জন ধর্মঘটকারী। প্রায় ট্রেনের তলায় চলে যাওয়া থেকে ফিরে আসলেন জীবন নিয়ে। দেশের বেশ কয়েকটি বামপন্থী ডাকা ২দিন ব্যাপী বন্ধের শুরুর দিন, সোমবার সাত সকালেই সেই ভয়ঙ্কর দৃশ্যের স্বাক্ষী রইল হাওড়া জেলার কুলগাছিয়া স্টেশন। ঘটনায় বনধ সমর্থকদের ভূমিকা নিয়ে যেমন প্রশ্ন উঠেছে তেমনই প্রশ্ন উঠেছে চালকের মানসিকতা নিয়েও। রেলের তরফে বলা হয়েছে কোনও অনুমতি না নিয়েই ওই অবরোধ ছিল তাই অবরোধকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে রেল কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, অনুমতি ছাড়া কেউ রেললাইনে থাকলেও চালক সেটা দেখার পরও ট্রেন চালিয়ে দিতে পারে কী? রেলের আইনে তেমন কোনও বিধান আছে কী?

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

জানা গেছে এই ভয়ঙ্কর ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকাল ৭টা বেজে ২৫ মিনিট নাগাদ। ট্রেনটি তখন দক্ষিণপূর্ব রেলের হাওড়া- খড়গপুর শাখার কুলগাছিয়া স্টেশনের কাছাকাছি। সাত সকালেই বন্‌ধ সমর্থকরা লালপতাকা নিয়ে বিভিন্ন স্টেশন লাগোয়া অঞ্চলে অবরোধে সামিল হয়েছিলেন। এদিন ডজন খানেক বনধ হাজির রেল অবরোধ করতে কুলগাছিয়া স্টেশন সংলগ্ন রেললাইনে সমবেত হন। ওই সময় পাঁশকুড়া থেকে শালিমারের উদ্দেশ্য রওনা হওয়া লোকাল ট্রেন কুলগাছিয়া স্টেশনের কাছাকাছি আসছিল। বনধ সমর্থকরা লাইনের ওপরে দাঁড়িয়েই পতাকা নাড়িয়ে ট্রেনটির চালককে ট্রেন দাঁড় করানোর জন্য বলতে থাকে কিন্তু ট্রেন চালক সেই আবেদনে সাড়া না দিয়েই ট্রেন ছুটিয়ে দেয়। একেবারে শেষমুহূর্তে অবরোধকারীরা লাইন থেকে ছিটকে বেরিয়ে আসেন চলন্ত ট্রেনের সামনে থেকে।

ঘটনায় এক ব্যক্তিকে লাইনের পাশে পড়ে থাকা পাথরটু করোর ওপর পড়ে যেতে দেখা যায়। আর ২জন কোনও ক্রমে ছিটকে ট্রাকের বাইরে চলে আসেন। নিচে পড়ে যাওয়া ব্যক্তির আঘাত গুরুতর বলে জানা গেছে। ঘটনার পরই আন্দোলনকারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর আরও অবরোধকারী জমায়েত হয়ে যান। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে থাকে। ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসেন আরপিএফ আধিকারিকরা। তাঁরা বনধ সমর্থকদের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়।

দক্ষিণ-পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক এস. কে আনন্দ জানিয়েছেন, ওই অবরোধকারীরা বেআইনি ভাবে রেলের এলাকার মধ্যে সমবেত হয়েছিলেন এবং ট্রেন পরিষেবা ব্যাহত করার চেষ্টা করেন। এটি পুরোপুরি আইন বিরুদ্ধ কাজ। রেল ওই অবরোধকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করবে। অন্যদিকে অবরোধকারীরাও জানিয়ে দিয়েছেন, ইচ্ছাকৃত ভাবেই ট্রেননের চালক বনধ সমর্থনকারীদের ওপর দিয়ে ট্রেন ছুটিয়ে দিয়েছেন। চালকের বিরুদ্ধে তাঁরাও আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন।

- Advertisement -
Latest news
Related news