Tuesday, June 25, 2024

Debra Tragic Death: কাদা রাস্তায় ঢুকলনা গাড়ি, ডেবরায় খাটিয়ায় করেই নিয়ে যাওয়া হল মুমূর্ষুকে! অভিযোগ দেরিতে হাসপাতালে পৌঁছনোয় মৃত্যু বৃদ্ধের

- Advertisement -spot_imgspot_img

শশাঙ্ক প্রধান : গ্রাম থেকে হাসপাতালের দূরত্ব মাত্র ৮কিলোমিটার! কিন্তু সেই মাঝের ২কিলোমিটার রাস্তা পাঁকে ভর্তি। চারচাকা তো দুরের কথা বৃষ্টি হলে ওই ২ কিলোমিটার রাস্তায় দু’চাকা গড়ানোই দায়। ফলে সময় মত রুগীকে হাসপাতালে পৌঁছনো যায়নি বলেই মৃত্যু হল এক বৃদ্ধের। এমনটাই দাবি করেছেন পরিবারের সদস্যরা। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ডেবরা থানার অন্তর্গত সত্যপুর গ্রামপঞ্চায়েতের অন্তর্গত চকপ্রসাদ গ্রামে। ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন পরিবারের সদস্যরা। সোশ্যাল মিডিয়া সহ বিভিন্ন জায়গায় নিজেদের ক্ষোভের কথা প্রকাশও করেছেন তাঁরা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে মৃত ওই বৃদ্ধের নাম মনোজ মন্ডল। চকপ্রসাদ গ্রামের ৭২ বছরের ওই বৃদ্ধ ও তাঁর পরিবার কৃষিকাজের ওপর নির্ভরশীল। মোটামুটি সম্পন্ন পরিবার। দুই সন্তানের পিতা মনোজ মন্ডল গত তিন চারদিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন। শনিবার দুপুর নাগাদ জ্বরে প্রায় অচৈতন্য হয়ে পড়েন মনোজবাবু। এরপরই তাঁর দুই সন্তান বিষ্ণুপদ ও শ্যামল এবং মনোজবাবুর ভাইপো পীযুষ তাঁকে ডেবরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেন। কিন্তু যে যেহেতু ওই রাস্তায় বৃষ্টির জন্য প্রচন্ড কাদা হয়ে গেছিল তাই তারা একটি খাটিয়ায় করে ২কিলোমিটার দুরে একটি ঢালাই রাস্তা অবধি নিয়ে যেতে মনস্থ করেন।

পীযুষ বাবু জানিয়েছেন, ‘জেঠুকে বাধ্য হয়েই আমরা দড়ির খাটিয়ায় করে দোগেড়া অবধি নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছিলাম কারন ওই রাস্তায় আ্যম্বুলেন্স বা মারুতি ভ্যান ঢুকতে রাজি হয়না। ভ্যানরিকশা তো কাদার জন্য গড়াতেই চায়না। সমস্যা হল আমরা গ্রামের কোথাও দড়ির খাটিয়া জোগাড় করতে পারছিলামনা। যেহেতু এখন খাটিয়া প্রায় নেই বললেই চলে। অনেক কষ্টে একটি খাটিয়া জোগাড় করে জেঠুকে নিয়ে আমরা যখন ২কিলোমিটার রাস্তা ভেঙে দোগেড়ার ঢালাই রাস্তায় পৌছাই তখন ২ঘন্টা পেরিয়ে গেছে। এরপর একটি মারুতি গাড়ি জোগাড় করে যখন ডেবরা হাসপাতালে পৌঁছনো হয় তখন জেঠুর অবস্থা এতটাই খারাপ হয়ে গেছে যে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁকে রাখতেই রাজি হয়নি। রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা হু হু করে কমছিল। এরপর তাঁকে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজে স্থানান্তরিত করা হয়।’

মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজে রাতভর চিকিৎসার পরও অবস্থার কিছু উন্নতি হয়নি। রবিবার ভোর বেলায় মৃত্যু হয় ওই বৃদ্ধের। বৃদ্ধের পরিবারের লোকেদের অভিযোগ শুধুমাত্র রাস্তা খারাপের জন্যই বৃদ্ধকে সময়মত হাসপাতালে পৌঁছনো সম্ভব হয়নি। বৃদ্ধের এমন কোনও জটিল রোগও ছিলনা উচ্চ তাপমাত্রার জ্বর ছাড়া। ওই ২কিলোমিটার রাস্তায় খাটিয়ায় নিয়ে যাওয়ার জন্য বৃদ্ধের ধকল আরও বেড়ে যায় বলে পরিবারের অভিযোগ। চকপ্রসাদ গ্রামের মানুষের অভিযোগ গত ৪বছর আগে একবার সংস্কার হয়েছিল ওই রাস্তা। তারপর এক ছটাক মাটিও পড়েনি। গ্রামের লোকেরা বারংবার পঞ্চায়েত সদস্য, প্রধানের কাছে আবেদন করা স্বত্ত্বেও কোনও সুরাহা হয়নি। মুমূর্ষু রোগী থেকে গর্ভবতী মায়েদের পরিবারকে আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাতে হয় কারন একটু বৃষ্টি হলেই থকথকে কাদা আর পাঁকে ভরে যায় রাস্তা।

স্থানীয় পঞ্চায়েত সূত্রে জানা গেছে বর্তমানে রাস্তা সারানো বা নির্মাণে মোরামের সংস্থান নেই। তাছাড়া গ্রামপঞ্চায়েতের নিজস্ব তহবিলও নেই ওই রাস্তা সরানোর। তবে সম্প্রতি ওই ২ কিলোমিটার রাস্তা নাকি ঢালাইয়ের জন্য অনুমোদন পাওয়া গেছে। মাপ জোক হয়েও গেছে। পুজোর পরই নাকি কাজ শুরু হতে পারে। গ্রামের মানুষের বক্তব্য এমন কথা তাঁরা দীর্ঘদিন ধরেই শুনে আসছেন। সাম্প্রতিক বিধানসভা নির্বাচনের সময় বলা হয়েছিল ভোট ফুরালেই কাজ হবে কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। মানুষের তীব্র আফসোস মাত্র ৮কিলোমিটার দুরে হাসপাতাল হলেও খারাপ রাস্তার জন্য প্রাণ গেল বৃদ্ধের।

- Advertisement -
Latest news
Related news