Monday, May 20, 2024

Red Volunteer: রেল দুর্ঘটনায় আহতদের রক্তদানে ইচ্ছুক রেড ভলান্টিয়ারদের তালিকা নিজেদের বলে চালালো বিজেপি! চুড়ান্ত জালিয়াতির অভিযোগ

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: তিল কে তাল করার ব্যাপারে বিজেপি আই.টি সেলের বিরুদ্ধে দেশ জুড়েই বদনাম রয়েছে। এ নিয়ে বহু মামলা মোকাদ্দমাও হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। কিন্তু এবার যা হল তা রীতিমতো চূড়ান্ত জালিয়াতি। সরাসরি রেড ভলান্টিয়ার সদস্যদের নাম আর ফোন নম্বর নিজেদের ফেসবুকে দিয়ে তাঁদের নিজেদের সদস্য বলেই চালিয়ে দিল বিজেপির একটি গ্রূপ।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
বাঁদিকে রেড ভলান্টিয়ার ও পাশে বিজেপির তালিকা

ঘটনা প্রকাশ্য হতেই ছি ছিৎকারের ঝড় বইছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সগর্বে নিজের ফেসবুকে তা পোষ্ট করার পর জানাজানি হতেই তড়িঘড়ি করে কোথাও কোথাও সেই পোষ্ট তুলে নেবার চেষ্টাও করেছেন কেউ কেউ কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার তা হয়ে গেছে।

উল্লেখ্য বৃহস্পতিবার বিকালে জলপাইগুড়ি জেলার ময়নাগুড়ির দোমহানির কাছে লাইনচ্যুত হয় পটনা থেকে গুয়াহাটিগামী দুর্ঘটনাগ্রস্ত ১৫৬৩৩ আপ বিকানের-গুয়াহাটি এক্সপ্রেস। ১২টি কামরা রেল ট্র্যাক থেকে নিচে নেমে যায় এবং চার-পাঁচটি কামরা দুমড়ে মুচড়ে যায়। এখনও অবধি ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, ৩৬জন আহত যার মধ্যে ১০জনের অবস্থা আশঙ্কা জনক। ঘটনার খবর পেয়েই আহতদের রক্ত দেওয়ার জন্য আহ্বান জানায় স্থানীয় রেড ভলান্টিয়ার সংগঠন।

যে তালিকা রেড ভলান্টিয়ার প্রথম প্রকাশ করে

সেই আহ্বানে জলপাইগুড়ি ব্লাডব্যাঙ্ক ছুটে যান অনেকেই। কারুর রক্ত লেগেছে কারুর আবার প্রয়োজন হয়নি। কিন্তু ভবিষ্যতে প্রয়োজন হতে পারে এই কথা মাথায় রেখে রক্তদাতাদের সম্মতিক্রমেই একটি নামের তালিকা তাঁদের ব্লাডগ্রূপ ও ফোন নম্বর উল্লেখ করে সাদা কাগজে হাতে লিখে রেড ভলান্টিয়ার গ্রূপে প্রকাশ করা হয়। অবাক কান্ড কিছুক্ষণ বাদেই হুবহুব সেই নাম, ফোননম্বর ও ব্লাডগ্রূপ টাইপ করে প্রকাশ হতে দেখা যায় বিজেপির বিভিন্ন সোশ্যাল সাইডে।

বিজেপির একটি সাইডে দেখা যায় লেখা রয়েছে, ময়নাগুড়ির রেলদুর্ঘটনায় আহতদের কারও রক্তের প্রয়োজন হলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন, আমরা বিজেপি পরিবার! শুক্রবার দুটি ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজ রানা বাগচী এবং পঙ্কজ ভাদুড়ি এই ধরনের জালিয়াতির কথা প্রকাশ্যে আনেন। সঙ্গে সঙ্গেই KGP বাংলার তরফে ঘটনার সত্যতা জানার চেষ্টা করা হয়। শুরু হয় তালিকা ধরে ফোন করা।

অরুন বর্মন

তালিকার ২৮নম্বরে থাকা অরুন বর্মনকে ফোন করা হলে অরুন বাবু জানান, তিনি নিজে রেড ভলান্টিয়ার করেননা কিন্তু রেড ভলান্টিয়ারদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তিনি জলপাইগুড়ি ব্ল্যাড ব্যাংকে রক্ত দিতে যান। তখুনি তাঁর রক্ত দেওয়ার প্রয়োজন হয়নি কিন্তু ভবিষ্যতে প্রয়োজন হলে তিনি রক্ত দিতে রাজি আছেন এটা জানিয়ে তিনি তাঁর নাম প্রকাশের জন্য রেড ভলান্টিয়ারদের অনুমতি দেন।

অরুন বর্মনের বাড়ি জলপাইগুড়ির গোশালা এলাকায়। ব্যবসায়ী অরুন বাবুর রক্তের গ্রূপ AB+।
অন্য সাইডেও তাঁর নামের তালিকা প্রকাশ হয়েছে জেনে আকাশ থেকে পড়েন তিনি। অরুনবাবু জানান, ” রেড ভলান্টিয়ার বন্ধুদের ডাকে সাড়া দিয়েই রক্তদিতে গিয়েছিলাম। তখন রক্ত লাগেনি।

ব্ল্যাডব্যাংকে রেড ভলান্টিয়ার সদস্যরা

আমার গ্রূপটা একটু হলেও রেয়ার তাই বলে এসেছিলাম, প্রয়োজন হলে আমায় খবর দিতে। ওঁরা বললেন, আমরা ইচ্ছুক ব্যক্তিদের একটি তালিকা ফেসবুকে পোষ্ট করব। আমি সানন্দে অনুমতি দিয়েছি। আর কারুর সঙ্গেই আমার যোগাযোগ হয়নি কাউকে বলিনিও। ফলে অন্য কোথায় আমার নাম বেরিয়েছে বলে জানিনা। আর আমি সরাসরি কোনও রাজনীতিও করিনা।”

চলছে আহতদের রক্তদান, জলপাইগুড়ি ব্ল্যাড ব্যাঙ্ক

তালিকায় ২৪ নম্বরে থাকা জলপাইগুড়ির বেলেকোবার বাসিন্দা তারিক আজিজ অবশ্য সরাসরি রেড ভলান্টিয়ার সদস্য। তিনি ইতোমধ্যেই জানতে পেরেছেন এই ‘জালিয়াতি’র কথা। তারিক বলেছেন, ‘ শুক্রবার বিজেপি গ্রূপের ওই পোষ্ট দেখে অবাক হয়ে গেছি। একেবারে প্রথম থেকে শেষ অবধি পুরোপুরি তালিকাটাই হুবহুব ছেপে দিয়েছে টাইপ করে। ওদের এমনই দুর্বুদ্ধি যে তাড়াহুড়োয় আমরা কয়েকজনের ব্লাড গ্রূপ জানতে পারিনি বলে গ্রূপের জায়গাটা ফাঁকা রেখেছিলাম। যেমন তালিকার ১০, ২৫, ২৬ নম্বর নাম শুধু ফোন নম্বর দিয়ে প্রকাশ করা হয়েছিল। মাছি মারা কেরানীর দলও হুবহুব সেটাই করেছে।’

- Advertisement -
Latest news
Related news