Wednesday, May 22, 2024

Kharagpur Street Dog: আরও ভালো চিকিৎসা চাই! বাজিতে পা উড়ে যাওয়া খড়গপুরের কাল্লুকে নিয়ে যাওয়া হল কলকাতায়

A few members of the People for Animals West Bengal branch of MP Maneka Gandhi's animal-loving organization left for Kolkata with Street Dog localy called as Kallu. 'KGP Bangla' News Portal first published the news of this brutality with Kallu on Friday night. That night the news was published on the All India News Channel. Then the storm of condemnation started in different places besides Kharagpur. Then the members of People For Animals got the news. On Sunday they rushed to Kharagpur town. After arriving in Kharagpur town, they contacted Kamaljit Singh, the head of STREET PAWS, a Kharagpur-based animal welfare organization, who had taken care of the injured dog for the first time. After meeting Kamaljit, they went to see Kallu. Kallu was kept in a certain place so that he could be injured and attacked by other dogs. After observing the injured dog there, the People For Animals members realized that Kallu needed another operation. They told Kamaljit that they wanted to take the dog for better treatment. After geting permision from police they brought Kallu to Kolkata with them.

- Advertisement -spot_imgspot_img
আয়ুসির হাতে কাল্লুকে তুলে দিচ্ছেন কমলজিৎ

নিজস্ব সংবাদদাতা: আরও একটি অপারেশন করার জন্য খড়গপুরের খরিদা গুরুদুয়ারা এলাকার কাল্লুকে কলকাতায় নিয়ে গেলেন একটি পশুপ্রেমী সংগঠন। রবিবার দিনভর পুলিশের সাথে টানা পোড়েনের পর অবশেষে শব্দবাজিতে পা আর ল্যাজ উড়ে যাওয়া পথ কুকুর কাল্লুকে নিয়ে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে যান সাংসদ মানেকা গান্ধী (Maneka Gandhi)র পশুপ্রেমী সংগঠন People For Animals পশ্চিমবঙ্গ শাখার কয়েকজন সদস্য।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

শুক্রবার রাতে কাল্লুর সঙ্গে এই বর্বরতা খবর প্রথম প্রকাশ করে ‘KGP Bangla’ News Portal. ওইদিন গভীর রাতে সেই খবর প্রকাশিত হয় সর্বভারতীয় নিউজ চ্যানেলে। তারপর নিন্দার ঝড় বইতে থাকে খড়গপুর ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায়। এরপরই খবর পায় People For Animals সদস্যরা। রবিবার তারা ছুটে আসে খড়গপুর শহরে।

খড়গপুর শহরে আসার পর তারা যোগাযোগ করেন আহত কুকুরটির প্রথম সেবা শুশ্রসা করা খড়গপুরের পশুপ্রেমী সংগঠন STREET PAWS এর কর্ণধার কমলজিৎ সিংয়ের সঙ্গে। কমলজিতের সঙ্গে তাঁরা দেখা করার পর চলে যান কাল্লুকে দেখতে। কাল্লু রাখা হয়েছিল একটি নির্দিষ্ট জায়গায় যাতে আহত অবস্থায় অন্য কুকরদের আক্রমনের শিকার হয়ে পড়ে সে।

সেখানে গিয়ে কুকরটিকে পর্যবেক্ষণ করার পর People For Animals সদস্যরা বুঝতে পারেন কাল্লুর আরও একটি অপারেশন প্রয়োজন। তারা কমলজিৎকে জানান কুকুরটিকে তারা আরও ভালো চিকিৎসার জন্য নিয়ে যেতে চান। কমলজিৎ জানিয়ে দেন পুলিশের অনুমতি ছাড়া কাল্লুকে ছাড়তে পারবেননা।

এদিকে পুলিশের তরফেও প্রথমে আপত্তি জানানো হয়। পুলিশের আপত্তির প্রধান কারণ ছিল যে বিষয়টি এমনিতেই স্পর্শকাতর হয়ে রয়েছে। শব্দবাজিতে তার পা ও ল্যাজ উড়ে যাওয়ার পর থেকেই সরগরম শহর। এর ওপর কোনও অজানা অচেনা লোক কুকুরটি নিয়ে শহর ছাড়লে কথা উঠতে পারে। তাছাড়া কারা কুকুরটি নিয়ে যাচ্ছে, কোথায় নিয়ে যাচ্ছে তা বিস্তারিত জানা এবং রেকর্ড থাকা প্রয়োজন। এরপরই খড়গপুর SDPO দীপক সরকার ও খড়গপুর টাউন IC বিশ্বরঞ্জন ব্যানার্জী একদফা আলোচনা করে নেন। ঠিক হয় কাল্লুর আরও ভালো চিকিৎসার জন্য কলকাতা পাঠানো যেতেই পারে তবে সেই প্রক্রিয়া থানার মাধ্যমেই করতে হবে।

এরপরই তাঁরা কাল্লুকে থানায় আনতে বলেন। এরপরই STREET PAWS ও People For Animals সদস্যরা কাল্লুকে টাউন থানায় নিয়ে আসেন। সেখানে সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখে লিখিত নথি জমা দিয়ে কাল্লুকে নিজেদের গাড়িতে করে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা হন People For Animals সদস্যরা।

People For Animals সভাপতি আয়ুসি দে জানিয়েছেন, একটি অপারেশন হলেও কুকুরটির পায়ে গ্যাংগ্রিনের লক্ষণ দেখা দিয়েছে বলেই আমাদের মনে হয়েছে। যে কারনে আমরা বিশেষজ্ঞ পশু চিকিৎসক বা ভেটিনারী সার্জেনের পরামর্শ নিয়েছি আমরা। কুকুরটির আরও একটি অপারেশন প্রয়োজন রয়েছে। একজন অভিজ্ঞ ভেটিনারী সার্জেনের তত্ত্বাবধানে সেই অপারেশন করা হবে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই একে সুস্থ করে আমরা খড়গপুরে দিয়ে যাব।

আয়ুসি STREET PAWS সদস্য ও খড়গপুরবাসীর প্রশংসা করে বলেছেন, কুকুরটি যে বর্বরতার শিকার হয়েছিল তাতে ওর বেঁচে থাকার কথা নয়। যেভাবে গোটা খড়গপুর ও কমলজিৎরা কুকুরটির পাশে দাঁড়িয়েছেন তা খুবই অভিনন্দন যোগ্য। পাশাপাশি যারা এই কুকুরের সঙ্গে এই বর্বরতা ঘটিয়েছে সেই রাক্ষসদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে বলে তিনি জানান।

কমলজিৎ জানিয়েছেন, আমাদের খুব ভালো লাগছে যে কাল্লুর আরও ভালো চিকিৎসা হবে। আমরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করব কাল্লুর ফিরে আসার জন্য। খুশি গুরুদুয়ারা এলাকার বাসিন্দারাও। এতদিন তাঁদের এলাকা বাঘের মত পাহারা দিয়ে এসেছে কাল্লু। কাল্লু ফিরে এলে তাকে এবার শুধুই বিশ্রাম দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

- Advertisement -
Latest news
Related news