Tuesday, June 25, 2024

Kharagpur Midnapore Weather Forecast: বুধবারও ভাসবে খড়গপুর মেদিনীপুর! শক্তি বাড়ালো ঘূর্ণাবর্ত, পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামে কমলা সতর্কতা

After Monday and Tuesday, Kharagpur Medinipur will continue to float on Wednesday. The meteorological office said in a statement that the Ganges has turned into a depression due to increased cyclonic power over West Bengal. Alipore meteorologists said it was located on the Ganges south of West Bengal and adjacent Orissa on Tuesday. Apart from this, the monsoon axis is also active over the Gangetic West Bengal, with heavy rainfall forecast in South Bengal. Due to this, there are no signs of Saturn cutting in Kharagpur, Medinipur and Jhargram. Due to the rain, water has started accumulating in the low lying areas again. Water is flowing again in Dineshnagar, Talbagicha and Rabindrapalli areas of Kharagpur city. Jhuli Jhapetapur Bulbulchati Kaushalya Sanjoyal Road Taitambur in the water. Inder Sardapalli, Ramkrishnapalli, Anandnagar, Newtown, Vidyasagarpur are flooded again. Kharida, Malanch, Nimpura and Arambati have also started accumulating water. As the drainage system has become practically inoperable, water is standing on the road in different parts of the railway colony, especially in Ward No. 18, Mathurakati. Among them, the new rain on Wednesday has become a cause of headaches for the city dwellers.

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: সোমবার ও মঙ্গলবারের পর বুধবারও ভাসতে চলেছে খড়গপুর মেদিনীপুর। হাওয়া অফিসের বার্তায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপরে থাকা ঘূর্ণাবর্ত শক্তি বাড়িয়ে নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। মঙ্গলবার সেটি গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণাংশ এবং সন্নিহিত ওড়িশার উপর অবস্থান করছে বলে জানাচ্ছেন আলিপুরের আবহবিদরা। এ ছাড়া গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপর সক্রিয় রয়েছে মৌসুমি অক্ষরেখাও, এই জোড়া ফলাতেই দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। আর এর জেরেই এখুনি শনি কাটার লক্ষণ নেই খড়গপুর, মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামের।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সোমবারের পর মঙ্গলবারও কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হয়েছে। সকাল থেকেই দমকে দমকে বৃষ্টি হয়েছে খড়গপুর মেদিনীপুর ঝাড়গ্রামে। এই বৃষ্টি চলেছে দুপুর অবধি। বিকালে সামান্য বিরতির পর সন্ধ্যা থেকে ফের বৃষ্টি শুরু হয়েছে আর মঙ্গলবার রাত ১০টার পর ফের শুরু হয়েছে জোরালো বৃষ্টি। বৃষ্টির জেরে ফের নিচু এলাকায় জল জমতে শুরু করেছে। খড়গপুর শহরের দীনেশনগর, তালবাগিচা, রবীন্দ্রপল্লী এলাকায় ফের জল থৈথৈ করছে। ঝুলি ঝাপেটাপুর বুলবুলচটি হয়ে কৌশল্যা সাঁজোয়ালের রাস্তাঘাট জলে টইটম্বুর। ইন্দার সারদাপল্লী, রামকৃষ্ণপল্লী, আনন্দনগর, নিউটাউন, বিদ্যাসাগরপুরে জলজমেছে ফের।

ওদিকে পাঁচবেড়িয়া ভবানীপুর সুভাসপল্লী, মাঠপাড়ার নিচু এলাকায় জল জমে গেছে। খরিদা, মালঞ্চ, নিমপুরা হয়ে আরামবাটিতেও জল জমতে শুরু করেছে। নিকাশি ব্যবস্থা কার্যত অচল হয়ে পড়ায় রেলকলোনীর বিভিন্ন অংশ বিশেষ করে ১৮নম্বর ওয়ার্ড, মথুরাকাটির বিভিন্ন জায়গায় রাস্তার ওপরেই জল দাঁড়িয়ে রয়েছে। তারই মধ্যে নতুন করে বৃষ্টি মাথাব্যথার কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে শহরবাসীর।

প্রায় একই অবস্থা মেদিনীপুর শহরের। সুজাগঞ্জের নিচু অংশে পালবাড়ি, গণপতিনগর, ধর্মার রামকৃষ্ণনগর ও হবিবপুরের পিছনদিক জলে জলাকার হয়ে রয়েছে। পাটনাবাজার, মহাতাপপুর, নজরগঞ্জের বেশকিছু এলাকায় নতুন করে জলজমতে শুরু করেছে। রাঙামাটি লাগোয়া ইন্দিরা কলোনী, বৈশাখী কলোনী, অশোকনগরের পেছন দিকে জমাজলে দুর্বিষহ অবস্থা মানুষের। আর এরই মধ্যে হওয়া অফিস জানিয়েছে, বুধবার কলকাতায় বৃষ্টির তীব্রতা কমলেও পশ্চিমের কয়েকটি জেলায় রয়েছে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। বৃষ্টির ফলে নদীতে জল বাড়ার পাশাপাশি নিচু এলাকায় জল জমতে পারে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

মঙ্গলবার দক্ষিণ ২৪পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামে অতি ভারী বৃষ্টির কমলা সতর্কতা জারি ছিল। বুধবার সেই সতর্কতা জারি থাকছে পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামে। অত্যধিক বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনার কারণেই এই দুই জেলায় বুধবারও কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া দফতর। তারই সাথে পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়ায ভারী বৃষ্টি চলবে। কলকাতায় বিক্ষিপ্ত ভাবে কয়েক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বুধবার। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপর থাকা নিম্নচাপটি ধীরে ধীরে পশ্চিম দিকে সরবে বলে পূর্বাভাস। সে ক্ষেত্রে বৃহস্পতিবার থেকে আবহাওয়ার উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন আবহবিদরা। ছবি: সমর চক্রবর্তী এবং অচিন্ত্য ত্রিপাঠী

- Advertisement -
Latest news
Related news