Sunday, April 14, 2024

Keshpur Brilliant: মেদিনীপুর আল আমিনের পড়ুয়াদের নজর কাড়া সাফল্য! ফেরিওয়ালার ছেলে সহ তিন পড়ুয়া ডাক্তারি পড়ার পথে সম্বর্ধিত

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: ফেরিওয়ালার ছেলে পড়বে ডাক্তারি তাও আবার কেশপুরের সংখ্যালঘু পরিবারের ছেলে? এমনই অসম্ভব সম্ভব হওয়ার গর্বে গর্বিত কলকাতা থেকে বহুদূরে পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুর। খবর কাগজে শুধুই রাজনৈতিক হানাহানির জন্য সংবাদমাধ্যমে মাঝে মধ্যেই উঠে আসে কেশপুরের নাম কিন্তু কে জানত এই কেশপুর থেকেই সর্বভারতীয় ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষা বা নিটে (NEET Exam) নজরকাড়া ফল করেছে তিন তিনজন রত্ন। আর শুধু তাই নয় ওই তিনজনই সংখ্যালঘু পরিবার থেকে উঠে আসা। আর তারই মধ্যে রয়েছেন এক ফেরিওয়ালার ছেলেও। এই নজর কাড়া সাফল্যের পেছনে রয়েছে যে প্রতিষ্ঠানটি তার নাম আল আমিন মিশন। কেশপুর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে মেদিনীপুর শহর লাগোয়া আমিন মিশনের মেদিনীপুরের এলাইগঞ্জ শাখার তিন কৃতি ছাত্রকে সম্বর্ধনা জানাল মেদিনীপুরের অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মুগবসান টার্গেট ওয়েলফেয়ার সোসাইটি।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

উল্লেখ্য ডাক্তারির প্রবেশিকা পরীক্ষায় ৭২০ নম্বরের মধ্যে ৬৫৭ পেয়েছে কাজী মনিরুল ইসলাম। কেশপুরের প্রত্যন্ত অঞ্চলের এলুনি গ্রামের মনিরুল মাধ্যমিকে মহিষদা আর এন হাই স্কুল থেকে ৮১ শতাংশ নম্বর পেয়ে আল আমিন মিশনে পড়াশোনা করে উচ্চ মাধ্যমিকে ৯২.৬ শতাংশ নম্বর পায়। এরপর তার মেধা লক্ষ্য করে মিশনের তরফে আল আমিন মিশনের উলুবেড়িয়া শাখায় নিটে কোচিং নিতে পাঠানো হয় যেখানে সর্বভারতীয় ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষায় ৩১৬২ র‍্যাঙ্ক করে। ডাক্তারীতে সুযোগ পেয়ে খুব খুশি তার পরিবার। কাজী মনিরুলের ইসলামের কথায় আল আমিন মিশনের আদর্শ পরিবেশে পড়াশোনা করে আমার এই সাফল্য। মিশন পরিবারের সদস্য হতে পেরে গর্বিত। পেশায় ফেরিওয়ালা পিতা কাজী মর্তাজ আলী আমিন মিশনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

অপরজন কেশপুরের মুগবসান অঞ্চলের কুচিয়ারা গ্রামের মিনজারুল চৌধুরীও আল আমিন মিশনের মেদিনীপুর শাখার ছাত্র। ৬৩০ পেয়ে নিটে র‍্যাঙ্ক হয়েছে ৯৬৬৮ তার। তার এই সাফল্যে খুশি পিতা মিরাজ চৌধুরী। মীর মহম্মদ রাকিব আল আমিন মিশন থেকে পড়াশোনা করে নিটে ৫৮২ নম্বর পেয়েছে। কেশপুরের শসাবনি গ্রামের বাসিন্দা। পিতা মির রফিকুল ইসলাম গ্রামের মসজিদের ইমাম সাহেব। এই তিন কৃতি হবু ডাক্তারি পড়ুয়াকে সম্বর্ধনা প্রদান করল মুগবসান টার্গেট ওয়েলফেয়ার সোসাইটি।

সোমবার সন্ধ্যায় সংস্থার অফিসে এক ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সম্বর্ধনা প্রদান করা হয়। সংস্থার অন্যতম কর্তা সেখ মনিরুল আলম বলেন আমরা গর্বিত এই দিন পড়ুয়াকে সম্বর্ধনা জানাতে পেরে। আমরা আশা করছি এই তিন পড়ুয়া ভবিষ্যতে গরীব মানুষের পাশে থেকে সমাজের জন্য কাজ করবে। আল আমিন মিশনের মেদিনীপুর শাখার সুপারিনটেনডেন্ট সেখ ইসরাফিল এই তিন হবু ডাক্তারকে সম্বর্ধনা জানানোর জন্য টার্গেট ওয়েলফেয়ার সোসাইটিকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন এই তিন পড়ুয়াই মেধাবী ছাত্র। এদের সম্বর্ধনা প্রদানে ওরা যেমন উৎসাহ পাবে, তেমনি আগামীতে অন্যান্য পড়ুয়ারাও উৎসব পাবে। এদিন স্সংস্থার পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান আব্দুল শফি, সম্পাদক সেখ মনিরুল আলম, কোষাধ্যক্ষ সেখ মহম্মদ ইমরান, সহ সম্পাদক শেখ মোসাওবের আলী, সদস্য প্রতাপ চন্দ্র ভূঁইয়া, সেখ লিল্টু বাবু সহ অন্যান্যরা। এমন উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন এলাকাবাসী।

- Advertisement -
Latest news
Related news