Sunday, April 14, 2024

Digha: ইলিশে গুঁড়ি বৃষ্টি আর পূবালি হওয়ায় ভর করে দিঘায় ইলিশের ঢল! উন্মাদনা মৎসজীবীদের মধ্যে

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা : অবশেষে খরা কাটল দিঘার, খরা কাটল ইলিশের। গত ২ বছর পর চলতি মরসুমে একই দিনে টন টন ইলিশ দেখল দিঘা। মঙ্গলবার মরশুমের চতুর্থ দফায় মাঝ সমুদ্র থেকে দিঘা মোহানার পাইকারে বাজারে এসে পৌঁছালো ১২ টন ইলিশ। একসঙ্গে এত বেশি পরিমাণ ইলিশ ওঠা দেখতে যেন ভুলেই গেছিল দিঘা। স্বাভাবিক ভাবেই মৎস্যজীবী এবং মৎস ব্যবসায়ীদের মধ্যে খুশির আবহাওয়া।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সোমবার থেকেই দিন চারেকের নিম্নচাপের পরিবেশ তৈরি হয়েছে বলে মৎসজীবীদের সতর্ক করেছিল আবহাওয়া দফতর। সতর্ক করে বলা হয়েছে ১৩ এবং ১৪ই জুলাই সমুদ্র উত্তাল হবে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার সেই সতর্কতা জারি হওয়ার কারনে মাঝ সমুদ্র থেকে ফিরছে লঞ্চ আর ট্রলার গুলি। সোমবার রাতেই ফিরেছিল ৮০ থেকে ১০০ টি লঞ্চ। মঙ্গলবার সকালে দিঘা মোহনার আড়তে তারই উপুড় করে দিয়েছে বাঙালির প্রিয় রুপালি শস্য। ফলে মঙ্গলবার পূর্ব এশিয়ার বৃহত্তম পাইকারি মৎস বাজার সরগরম হয়ে উঠল নিলামি ইলিশের জন্য হাঁকডাকে।

দিঘার স্থানীয় আড়তদার তথা দিঘা ফিসারম্যান এন্ড ফিস ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তা নবকুমার পয়ড়্যা বলেন, ‘কম পরিমাণে হলেও ইলিশ উঠতে শুরু করেছে এ বার। মোহনার পাইকারি মাছের বাজারে ১২ টন ইলিশের নিলাম হয়েছে। যা চলতি মরশুমে সর্বাধিক।’ এদিন দিঘা মোহনার পাইকারি মাছের বাজারে ৪০০-৭০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের পাইকারি দাম ছিল কেজি প্রতি ৫৫০-৬০০ টাকা আর ৭০০-৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের দাম ছিল কেজি প্রতি ৮০০-৮৫০ টাকা। আর ১ কেজি থেকে দেড় কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হয় কেজি প্রতি ১৪০০-১৫০০ টাকা দরে। দিঘা ফিশারম্যান অ্যান্ড ফিশ ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক শ্যামসুন্দর দাস বলেন,” আবহাওয়া দপ্তরের সতর্কতার কারণে সমুদ্র থেকে মাছ ধরতে যাওয়া লঞ্চ-ট্রলারগুলি এক এক করে ফিরতে শুরু করেছে। তাতে আগামী এক-দু’দিন ইলিশের পরিমাণ আরও বাড়বে বলে আমাদের অনুমান।’

সাধারণ ভাবে ঝিরঝিরে বৃষ্টি কিংবা পুবালি বাতাসের দাপট থাকলেই নদী-সমুদ্রে বিচরণ বাড়ে ইলিশের। কিন্তু গত দু’বছর সেই হিসাব মেলেনি। ওই দু’বছরেও কয়েকবার দিঘা সমুদ্র উপকূলে ইলশেগুঁড়ি বৃষ্টি ও পুবালি হওয়া থাকলেও ধরা দেয়নি ইলিশ। দিঘার পথ ভুলে ইলিশ পাড়ি দিয়েছিল বাংলাদেশ, মায়ানমারে। এমনকি ডায়মন্ড হারবারেও মিলেছিল কিছু ইলিশ। ওই দু’বছর কার্যত ইলিশ ভুখায় ছিল দিঘায়। সেই অবস্থা কাটিয়ে ফের যেন ইলিশের দল দিঘার ঠিকানা খুঁজে পেল চলতি মরসুমে। তাই আশা করা যাচ্ছে চলতি মরসুমে অভিমান ভুলে দিঘায় আরও ইলিশ উঠবে। বাঙালির ভুরিভোজে ফের দেখা পাওয়া যাবে দিঘার ইলিশের।

- Advertisement -
Latest news
Related news