Sunday, April 14, 2024

Maoist: জঙ্গলে বড়সড় মাওবাদী হামলার আশঙ্কা! সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে নেতাদের ঘরে ফেরার পরামর্শ পুলিশের, শনিবার জঙ্গলমহলে ডিজি

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আগামী ১৫দিন থেকে ১মাসের মধ্যে জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের বড়সড় হামলা হতে পারে বলে রাজ্যকে চূড়ান্ত সতর্ক করেছে কেন্দ্র সরকার। আর তারই ভিত্তিতে জঙ্গলমহল জুড়ে চূড়ান্ত সতর্কতা বা HIGH ALERT জারি করেছে রাজ্য। যদিও বিষয়টি স্বীকার করা হয়নি জঙ্গলমহলের জেলা পুলিশের তরফ থেকে কিন্তু জঙ্গলমহলের শাসকদলের নেতাদেরকে যে সন্ধ্যা ৬টার পর বাড়ির বাইরে না থাকার পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ তা স্বীকার করে নিয়েছেন তৃনমূলের নেতারা।
ঘটনাক্রমে এই সতর্কতা জারির কয়েকঘন্টার মধ্যেই যে রাজ্য পুলিশের মহা নির্দেশক (Director General & Inspector General of Police
West Bengal) মনোজ মালব্য (Manoj Malaviya, IPS) জঙ্গলমহলে ছুটে আসছেন এমনটি জানা গেছে। শনিবার দুই মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম জেলার শীর্ষ পুলিশ আধিকারিকদের নিয়ে একটি পর্যালোচনা বৈঠকে বসতে চলেছেন তিনি।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

ঝাড়গ্রাম জেলা তৃনমুল কংগ্রেসের সভাপতি তথা বিনপুরের বিধায়ক দেবনাথ হাঁসদা বলেছেন, ‘আমাদের কাছে খবর আছে যে আগামী ১৫/২০দিনের মধ্যে নাশকতা মূলক ঘটনা ঘটাতে চলেছে মাওবাদীরা। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের পক্ষ থেকে নেতাদের সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে ঘরে ঢুকে যেতে বলা হয়েছে। প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে সতর্ক রয়েছে। আমরাও সতর্ক নজর রাখছি। আমরা বিশ্বাস করি মাওবাদীরা যতই নাশকতা মূলক ঘটনা ঘটাকনা কেন তারা সফল হতে পারবেনা কারন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জঙ্গলমহলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের সঙ্গেই মানুষ রয়েছে।’ উল্লেখ্য বেশ কিছুদিন ধরেই জঙ্গলমহলের বিভিন্ন অংশে শাসকদলের নেতাদের দুর্নীতিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মাওবাদী নামাঙ্কিত পোস্টার পড়তে দেখা গিয়েছে। পুলিশের তরফে পোস্টারগুলিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি কিন্তু বিধায়ক দেবনাথ হাঁসদার এই মন্তব্য বুঝিয়ে দিচ্ছে বিষয়টিকে আর ছোট করে দেখছেনা পুলিশ।

গত ৮ই এপ্রিল ঝাড়গ্রাম জেলা সহ জঙ্গলমহলের বিস্তীর্ণ অংশে সফল হয়েছে মাওবাদীদের ডাকা বনধ। বনধের সাড়া পড়েছিল ঝাড়গ্রাম শহরেও। তার ১দিন আগেই ঝাড়গ্রাম জেলার ঝড়খন্ড ঘেঁষা বেলপাহাড়ী থানার লবনী গ্রামের CRPF ক্যাম্পের পাশেই উদ্ধার হয়েছে তাজা মাইন। বনধের সমর্থনে দেওয়া পোস্টার গুলিতে বনধ না মানলে সরাসরি মৃত্যুদণ্ডের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। সব মিলিয়ে জঙ্গলমহলে ফের সক্রিয় হয়েছে মাওবাদীরা, এই অবস্থায় নতুন করে বড়সড় নাশকতার আশঙ্কা করছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। আর সেই আশঙ্কা থেকেই জঙ্গলমহল জুড়ে জারি হল জারি করা হয়েছে। আগামী ১৫ দিন থেকে একমাস এই হাই অ্যালার্ট জারি থাকবে বলে জানা গিয়েছে। আর এরপরেই সেখানকার সমস্ত উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। এমনকি পুলিশ প্রশাসনকে অ্যালার্টে থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সূত্রে রাজ্যকে অবগত করা হয়েছে যে জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের টার্গেটে বিভিন্ন থানা সহ একাধিক রাজনৈতিক নেতারাও হতে পারে। রাজনৈতিকদের নেতাদের বাড়ি টার্গেট করেও মাওবাদীদের হামলা হতে পারে সতর্ক করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। তারই ভিত্তিতে পুলিশের ছুটি বাতিলের পাশাপাশি নেতাদেরও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। নেতাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষীদের তাঁরা যাতে না ছাড়েন। এমনকি পুলিশকর্মীরা ছুটিতে থাকলে, নিজেদের থানায় রিপোর্টিংয়ের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। থানায় না জানিয়ে পুলিশকর্মীরা কোথায় যেতে পারবেন না বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সমস্ত প্রশাসনকেও এই বিষয়ে সতর্ক থাকার কথা বলা হয়েছে। আর এরপরেও জঙ্গলমহল জুড়ে চূড়ান্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গাতে নাকা তল্লাশি শুরু হয়েছে। এমনকি বিভিন্ন জায়গাতে তল্লাশিও চলছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news