Tuesday, April 16, 2024

Kharagpur BJP: চাকরির জন্য টাকা, খড়গপুরে মহিলাদের গনপিটুনি মহিলাকে! দিলীপ ঘোষের সামনেই বিজেপির মহিলাকে কোমরে দড়ি ব্যাপক মার দলেরই মহিলাদের

After a woman was taken away from the conference venue and tied around her waist with a rope, allegations of massive beating were made against the members of the BJP-backed organization. Incidentally, the woman is also said to be a member of that organization. The entire incident took place in front of Dilip Ghosh, the party's All India vice-president. Golbazar area of ​​Kharagpur city became active in such incidents on Thursday. It is said that the police are going to take action by filing a case against some women in this incident. The incident took place on Thursday around 1 pm at Rabindra Institute Auditorium stage in Golbazar area of ​​Kharagpur city. BJP's All India Vice President and MP Dilip Ghosh himself was present on the stage at that time. Apart from this, state leaders including Arun Kumar Paswan, All India General Secretary of Indian Railway Goods Warehouse Workers Association were present. It is learned that the conference has just started. Meanwhile, some women representatives are suddenly seen dragging a woman out of the seat. The shouting has started. Then the rope is tied around the woman's waist. Both hands are tied with towels. Then the woman was taken out of the conference venue and taken to Gol Bazar. Start with a slap kill kick. A group of women proceeded to practically kick the woman. The woman took lakhs of rupees in the name of giving them jobs. The leaders present at the conference saw the situation in a big commotion and hurriedly completed the work of the conference and went back. Before leaving, Dilip Ghosh said, "I don't know the matter. Union leaders can tell."

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারনার অভিযোগে এক মহিলাকে সম্মেলন স্থল থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে কোমরের দড়ি বেঁধে ঘোরানোর পর ব্যাপক মারধরের অভিযোগ উঠল বিজেপি সমর্থিত সংগঠনের সদস্যাদের বিরুদ্ধে। ঘটনাচক্রে ওই মহিলাও ওই সংগঠনের সদস্য বলে জানা গেছে। গোটা ঘটনাই ঘটল দলের সর্ব ভারতীয় সহ-সভাপতির দিলীপ ঘোষের সামনে। বৃহস্পতিবার এমনই ঘটনায় সরগরম হয়ে উঠল খড়গপুর শহরের গোলবাজার এলাকা। পুলিশ এই ঘটনায় কয়েকজন মহিলার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ব্যবস্থা নিতে চলেছে বলে জানা গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা নাগাদ খড়গপুর শহরের গোলবাজার এলাকায় রবীন্দ্র ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়াম মঞ্চে। মঞ্চে সেই সময় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ স্বয়ং। এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় রেলওয়ে মাল গুদাম শ্রমিক সংঘের সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক অরুন কুমার পাশোয়ান সহ রাজ্য নেতারা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

জানা গেছে সম্মেলন সবেমাত্র শুরু হয়েছে। তারই মধ্যে হঠাৎ দেখা যায় কয়েকজন মহিলা প্রতিনিধি আসন থেকে এক মহিলাকে টেনে হিঁচরে বের করছে। চিৎকার চেঁচামেচি শুরু হয়েছে। তারপরেই মহিলার কোমড়ে দড়ি বাঁধা হয়। দুটো হাত বেঁধে দেওয়া হয় গামছা দিয়ে। তারপর ওই মহিলাকে সম্মেলন স্থল থেকে বের করে নিয়ে গোল বাজারের মধ্যে নিয়ে যাওয়া হতে থাকে। সঙ্গে শুরু চড় কিল লাথি ঘুঁষি। মহিলাকে কার্যত লাথি মারতে মারতে এগুতে থাকে মহিলাদের একটি দল। তাঁদের দাবি চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়েছেন ওই মহিলা। ব্যাপক হট্টগোলের মধ্যে সম্মেলনে উপস্থিত নেতারা পরিস্থিতি বেগতিক দেখে তড়িঘড়ি করে সম্মেলনের কাজ শেষ করে ফিরে যান। যাওয়ার আগে দিলীপ ঘোষ বলেন ” আমি জানি না বিষয়টি। ইউনিয়নের নেতারা বলতে পারবেন।”

এদিকে মহিলাদের মারমুখী আচরণে রীতিমতো রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে রেলনগরী খড়গপুর শহরের গোলবাজার এলাকায় রবীন্দ্র ইনস্টিটিউট চত্বর। এখানেই সম্মেলন হয়েছে। ক্ষুব্ধ মহিলারা ওই মহিলাকে দড়ি বাঁধা অবস্থায় টেনে হিঁচরে রবীন্দ্র ইনস্টিটিউট চত্বর থেকে বাইরে বেশ কিছুটা নিয়ে যান। তাঁরা দাবি করতে থাকেন এই মহিলাকে তাঁদের কাছে ছেড়ে দিতে। ক্ষুব্ধ মহিলারা জানিয়েছেন এই মহিলা তাঁদের কাছ থেকে রেলের গুডস শেডে কাজের ব্যবস্থা করে দেবেন বলে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়েছেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত একজনকেও কাজ করিয়ে দিতে পারেন নি। এমনকি গত ছয় মাস ধরে গা ঢাকা দিয়ে ছিলেন বলে অভিযোগ। যদিও শেফালী রায় নামে এই মহিলা বলেছেন ” আমিও চাকরি প্রার্থী। আমাকেও তিন লক্ষ টাকা দিতে হয়েছে। আমার ভাইকেও দিতে হয়েছে। আমি কোনও টাকা নিই নি।”

এই পরিস্থিতিতে সংগঠনের কয়েকজন এই মহিলাকে সেই পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার করে খড়গপুর গ্ৰামীণ থানার চৌরঙ্গী এলাকায় একটি হোটেলে নিয়ে চলে যান। জানা গিয়েছে অভিযুক্ত ও ক্ষুব্ধ মহিলারা প্রত্যেকে মালদহ জেলার গাজোল এলাকার বাসিন্দা। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে দুপুর আড়াইটা নাগাদ খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ ওই হোটেলে অভিযান চালায়। সেরকম কিছু না পেয়ে ফিরেই যাচ্ছিল পুলিশের দল। কিন্তু হোটেলের এক নিরাপত্তা রক্ষীর কাছ থেকে তথ্য পেয়ে পুলিশ ফের হোটেলে ঢোকে। সেখানে একটি শৌচালয় থেকে মহিলাকে উদ্ধার করা হয়। তারসাথে আটক করা হয় পাঁচ মহিলা সহ দুইজন পুরুষ ও হোটেল মালিকের ছেলেকে। পুলিশ জানিয়েছে সকলকে আটক করা হয়েছে। তবে ওই মহিলাকে মারধর করা ও দড়ি বেঁধে ঘোরানোর অভিযোগে পাঁচ মহিলা ও দুইজন পুরুষের বিরুদ্ধে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news