Tuesday, April 16, 2024

Fraud Teachers Midnapore: জালি শিক্ষকের তালিকায় খড়গপুর, মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামও, শীর্ষে সবং, ডেবরা! পশ্চিম মেদিনীপুরের নামী দামী স্কুলেও ফাঁকা খাতা জমা দেওয়া শিক্ষক

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: শিক্ষক নিয়ে দুর্নীতি মামলায় এবার আরেকটি তথ্য। যারা যারা নিয়োগ পরীক্ষায় সাদা খাতা জমা দিয়ে নেতা কিংবা দালালদের মারফৎ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে টাকা দিয়ে চাকরি পেয়েছেন তাঁদের একটা তালিকা সিবিআই জমা দিয়েছে বিচারক অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাছে। একটি সূত্র জানা গেছে আদালত মারফৎ সেই লিস্ট এসে পৌঁছেছে পশ্চিম মেদিনীপুরেও। দেখা যাচ্ছে ওই তালিকায় পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের মোট  ২০১ জনের নাম রয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়ানো এই লিস্টের সত্যতা এখনও যাচাই করে উঠতে পারা যায়নি বটে তবে কয়েকটি স্কুলে খোঁজ নিয়ে জানা যাচ্ছে ওই নামের শিক্ষক শিক্ষিকারা রয়েছেন। কোনও কোনও স্কুল জানিয়েছে ওই নামের শিক্ষক বা শিক্ষিকা প্রথমে নিয়োগ হয়ে পরে বদলি নিয়ে চলে গেছে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

এই শিক্ষক শিক্ষিকারা যেমন বহু নামী দামী স্কুলে রয়েছেন তেমনই রয়েছেন প্রায় প্রতিটি থানা এলাকায়। কোনও স্কুলে আবার একাধিক শিক্ষক শিক্ষিকা রয়েছেন যাঁরা লিখিত পরীক্ষায় কোনও কিছু না  লিখেই পাশ করেছেন সাদা খাতা জমা দিয়ে। এত নাম রয়েছে যে সমস্ত নাম এখানে উল্লেখ করা সম্ভব নয়। আমরা কয়েকটি স্কুলের নাম এখানে উল্লেখ করছি যাদের নাম রয়েছে ওই তালিকায়। ওই স্কুলগুলির শীর্ষে রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং ও ডেবরা এলাকা। দুই থানা মিলে নাম রয়েছে ১ ডজনেরও বেশি স্কুলের। যার মধ্যে পরিচিত গুলি হল বালিচক উচ্চতর, মাড়তলা, ভজহরি, ব্রাহ্মনশ্মশান, রাধামোহনপুর, আলোককেন্দ্র, লোয়াদা, গোলগ্রাম ইত্যাদি। সবং থানা এলাকায় নাম রয়েছে, খড়িকা, রুইনান, বলপাই, বেনেদিঘি, ভেমুয়া, সারতা, চাঁদকুড়ি ইত্যাদির নাম। এ বছর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় রাজ্যের মধ্যে রেকর্ড করেছিল পিংলার জলচক নটেশ্বরী স্কুল। সাদা খাতা জমা দিয়ে একজন এই স্কুলের শিক্ষক পদে নিয়োগ পেয়েছেন বলে জানা গেছে। পাশাপাশি নাম রয়েছে ওই থানার গোবর্ধনপুর, পিন্ডরুই, তিলন্তপাড়া, মুন্ডুমারি, প্রভৃতি স্কুলের নাম।

নারায়নগড়ের কুশবাসান, পাকুড়শেনি, সরিশা কোনারপুর, বেলদার গঙ্গাধর একাডেমি, বাখরাবাদ, সাউরি দাঁতনের ষড়রঙ, কেশিয়াড়ীর নছিপুরের নাম মিলেছে তালিকায়। শুধু এগুলোই নয় এই তালিকায় নাম রয়েছে এই থানা এলাকার আরও অনেক স্কুলের। খড়গপু্র শহরে যেমন নিমপুরা স্কুল রয়েছে তেমনই গ্রামে রয়েছে চাঙ্গুয়াল, খুঁটিয়া গোকুলপুর, মাদপুর, খাটরাঙা প্রভৃতি নাম। মেদিনীপুর শহরে রয়েছে টাউন বয়েজ স্কুল আবার মেদিনীপুর গ্রামীনে গুড়গুড়িপাল স্কুল রয়েছে তালিকায়। ঘাটালের গুরুদাস, রামজীবনপুর, দাসপুরের রাজনগর, সোনাখালি, দুধকোমরা, নাড়াজল। গড়বেতার রসকুন্ডু, গোয়ালতোড়ের বুলানপুর, কেশপুরের মহিষদা, মশাগ্রাম ইত্যাদি প্রচুর স্কুলের নাম রয়েছে যেখানে ওই সাদা খাতা জমা দিয়ে পাশ করা শিক্ষক শিক্ষিকারা রয়েছেন।

এই তালিকায় ঝাড়গ্রাম জেলার বিরিহাড়ি, নয়াগ্রাম, গজাশিমুল, এড়গোদা, কুলটিকরি প্রভৃতি বেশ কিছু স্কুলের নাম রয়েছে। মজার ব্যাপার যদি এই দাবি সত্যি হয় তবে দেখা যাবে একই স্কুলে ওই রকম একাধিক শিক্ষক বা শিক্ষিকা রয়েছেন। যেমন রসকুন্ডু ও রুইনানে ৩ জন অমন শিক্ষক বা শিক্ষিকা রয়েছেন। রামজীবনপুর, মাড়তলা, গোবর্ধনপুর, খুঁটিয়া গোকুলপুর, পিন্ডরুই, বেনেদীঘি, কুসবাশান, প্রভৃতি স্কুলে অন্তত ২ জন করে অমন শিক্ষক শিক্ষিকা রয়েছেন। যদি সত্যি এই তালিকা শেষ অবধি সত্যি প্রমাণিত হয় তবে এদেরও চাকরি যেতে চলেছে এবং বেতন ফেরত দিতে হবে বলার অপেক্ষা রাখেনা।

- Advertisement -
Latest news
Related news