Sunday, April 14, 2024

Kolaghat Murder & Suicide: ছেলেকে টিভি দেখতে বসিয়ে দিয়ে স্ত্রীকে অন্য ঘরে নিয়ে গিয়ে খুন করল ব্যক্তি! কোলাঘাটের মর্মান্তিক কান্ডে আত্মঘাতী স্বামীও

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: নাবালক দুই সন্তান! মেয়েটি বড়, ছেলে ছোট। মেয়েটিকে কিছু কেনার জন্য পাঠিয়েছিলেন দোকানে। আর ছেলেটিকে একটি ঘরে টিভি খুলে বসিয়ে দিয়েছিলেন। তারপর স্ত্রীকে অন্য ঘরে নিয়ে গিয়ে কুপিয়ে খুন করে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করলেন নিজেও! সোমবার দুপুরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাট থানার দেনান সংলগ্ন আমলহান্ডা গ্রামের এই ঘটনায় হতবাক প্রতিবেশীরা। কিছু বুঝে ওঠার আগেই সব শেষ! রাতারাতি অনাথ হয়ে গেল দুটি শিশু!

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত দম্পতির নাম শঙ্কর মান্না (৩৫) ও শম্পা মান্না (৩১)। দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ খবরটা এসে পৌঁছেছিল কোলাঘাট থানায়। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যান কোলাঘাট থানার ওসি ইমরান মোল্লা। ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান তমলুক মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সাকিব আহমেদও। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন এই কান্ড। মহকুমা পুলিশ আধিকারিক জানান, ‘স্ত্রীকে খুন করার পর কীটনাশক পান করেন স্বামীও। ঘটনাস্থলেই মহিলার মৃত্যু হয়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মারা যান যুবক। তাঁর শরীরেরও আঘাতের চিহ্ন ছিল। মনে হয় স্ত্রীকে খুনের পর তিনি নিজের শরীরেও ছুরি দিয়ে আঘাত করেছেন। তাতে ব্যর্থ হয়ে বিষ খেয়েছেন। জোড়া মৃতদেহের ময়নাতদন্ত হচ্ছে। পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে।’

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১৬ বছরের দাম্পত্য জীবন শঙ্কর ও শম্পার। নাবালক দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন শ্বশুরবাড়িতেই থাকতেন শঙ্কর। মেচেদায় সেলুন চালাতেন তিনি। সোমবার সেলুন থেকে ফিরেই স্ত্রীর সঙ্গে কোনও কারণে অশান্তিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। তারপর মেয়েকে দোকানে পাঠিয়ে দেন শঙ্কর। অন্য ঘরে নাবালক ছেলেটির জন্য টিভির সুইচ অন করে দেন। পরের ঘটনা মর্মান্তিক। নিহত শম্পার মা অর্থাৎ শঙ্করের শাশুড়ি আলোরানী মান্না স্থানীয় দেনান পঞ্চায়েতের কর্মী। সে সময় কর্মক্ষেত্রে ছিলেন। প্রতিবেশীদের থেকে খবর পেয়ে বাড়ি ফেরেন। বলেন, ‘বাড়ি এসেই দেখি সব শেষ। মেয়ের রক্তে ভেসে গেছে গোটা ঘর। মেঝেতে পড়ে জামাই। ওদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ ছিল। মাঝেমধ্যে অশান্তি হত। কিন্তু এমন হবে জানতাম না।’ হয়ত হঠাৎ করেই একদিনের ঘটনা নয়। পরিকল্পনা মাফিকই ছুরি আর কীটনাশক সংগ্ৰহ করে রেখেছিলেন শঙ্কর। খুন ও আত্মহত্যার দুটি পৃথক মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

- Advertisement -
Latest news
Related news