Tuesday, April 16, 2024

Ghatal: সমাজের লাল চোখ! বিয়ে এড়াতে পালিয়ে বেড়াচ্ছে প্রেমিক, ১০০ কিমি পেরিয়ে দাসপুরে প্রেমিকার ধর্ণা

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আড়াই বছরের প্রেম কিন্তু সদ্য মুখ ফিরিয়েছে প্রেমিক। যোগাযোগ করছেনা, মোবাইলও ধরছেনা। বাধ্য হয়ে ১০০কিলোমিটার উজিয়ে এসে প্রেমিকের খোঁজে তার বাড়িতে যান প্রেমিকা কিন্তু প্রেমিকের বাড়ি থেকে কোনও সাড়া তো মিলেইনি উল্টে জুটেছে তিরস্কার। বাধ্য হয়ে প্রেমিকের মামার পাড়ায় ধর্ণায় বসেছে প্রেমিকা। দিন পেরিয়ে রাত গড়াতে যাওয়ায় বাধ্য হয়েই দাসপুর থানার পুলিশ এসে প্রেমিকাকে নিয়ে গেছে নিরাপদ আশ্রয়ে। চলছে প্রেমিকের খোঁজ। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অন্তর্গত দাসপুর বালিপোতা বাজারের। শেষ অবধি প্রেমিকের খোঁজ পেয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

জানা গেছে প্রেমিক প্রেমিকার আলাপ কর্মসূত্রে। কলকাতার একটি সংস্থার অধীনে কাজ করতেন দুজনেই। ২০১৯ সাল থেকেই দুজনের মধ্যে গড়ে ওঠে ভাব ভালোবাসা। প্রেমিক দাসপুর থানার পোস্তংকা গ্রামের রাজেশ দাস। অন্যদিকে প্রেমিকা
উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া থানার লক্ষ্মীপুরের নুরজাহান খাতুন। ভিন্ন ধর্ম বলে প্রেম না আটকালেও সমস্যা বেধেছে বিয়ের বেলায়। ভিন ধর্মী মেয়েকে মানতে নারাজ রাজেশের পরিবার, মানতে নারাজ সমাজও। আর সেই কারণেই প্রেমিকার কাছ থেকে বিয়ের প্রস্তাব আসতেই পালিয়ে বেড়াচ্ছেন প্রেমিক। নুরজাহান জানিয়েছেন, তাঁদের এই সম্পর্কের কথা রাজেশের পরিবার জানত। একাধিকবার রাজেশের বাড়িতে এসেছেন তিনি। কিন্তু এখন বিয়ের কথা উঠতেই রাজেশ পরিবার ও সমাজের চাপে তাকে মেনে নেওয়া তো দূর দেখা পর্যন্ত করছেন না।

গত কয়েকদিন ধরে বারবার মোবাইলে রাজেশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়ে রাজেশের খোঁজে তাঁর গ্রামে আসেন নুরজাহান। রাজেশের দেখা তো মেলেইনি উল্টে তার বাড়ির কাছেও প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর নুরজাহান চলে আসেন বালিপোতা বাজার এলাকায়। সেখানে রাজেশের মামাবাড়ি। সেই মামাবাড়ির সামনে ধর্নায় বসেন নুরজাহান। রাত অবধি সেখানেই বসেছিলেন নুরজাহান কিন্তু রাত নিরাপদ নয় মনে করেই দাসপুর পুলিশ নুরজাহানকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

দিনভর আত্মগোপন করে থাকলেও মোবাইলে সংবাদমাধ্যম যোগাযোগ করলে রাজেশ তাঁদের মধ্যে প্রেম ভালোবাসার কথা স্বীকার করে নিয়েও জানায় নুরজাহানকে তিনি বিয়ে করতে পারবেননা তা নাকি আগেই বলে রেখে ছিলেন। যদিও নুরজাহানের বক্তব্য, ভবিষ্যতে সংসার পাতার লক্ষ্যেই তাঁরা প্রেম করেছিলেন এবং সেই কারণেই রাজেশের সাথে তিনি ঘনিষ্ঠ মূহূর্ত কাটিয়েছেন যার একাধিক ছবি মোবাইলে ধরা আছে। আর রাজেশকে পেতেই তিনি পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন। শেষ খবর পাওয়া অবধি রাজেশকে আটক করেছে পুলিশ। চলছে জিজ্ঞাসাবাদ।

- Advertisement -
Latest news
Related news