Saturday, April 20, 2024

Haldia: পেনশনের টাকা না পেয়ে ‘ভাগের মা’-কে ঘাড় ধরে মেয়ের বাড়ি দেখালো ছেলে! হলদিয়ায় পুলিশের দ্বারস্থ ৮০ বছরের বৃদ্ধা

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: বাবার মৃত্যুর হয়েছে। মা এখন ভাগের! ৭ বোন, ১ভাই! মাকে দেখাশুনা করবে এই শর্তে পৈতৃক সম্পত্তি থেকে বোনদেরও ভাগ নিজের নামে লিখিয়ে নিয়েছিল ভাই। কিন্তু এখন চাই মায়ের পেনশন। ওদিকে মা পেনশন হাতছাড়া করতে নারাজ কারন অসুখ বিসুখে ওই টুকুই সম্বল। যদিও সেটা মানতে নারাজ ছেলে আর ছেলের স্ত্রী। পাড়া প্রতিবেশী, সমাজ সালিসি ঢের হয়েছে কিন্তু সমাধান হয়নি। সম্প্রতি সেই মাকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুত্র এবং পুত্রবধূর বিরুদ্ধে। মা গিয়ে উঠেছে মেয়ের বাড়ি। দ্বারস্থ হয়েছেন পুলিশের।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার অন্তর্গত হলদিয়ার সুতাহাটা থানার তাজনগরের ঘটনা। নিজের জায়গা থাকা স্বত্ত্বেও মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে থাকতে হচ্ছে এই আত্মসম্মান থেকে গত প্রায় এক মাস ধরে স্বামীর ভিটেতে ফেরার চেষ্টা করছেন বৃদ্ধা গীতাঞ্জলি দেব। কিন্তু ঢুকতে বাড়িতে দিচ্ছেননা অভিযুক্ত ছেলে এবং বৌমা। তাই সুতাহাটা থানায় অভিযোগ করেছেন বৃদ্ধা। বৃদ্ধার দাবি তাঁর স্বামীর ভিটে, বিষয় সম্পত্তির সমস্ত কিছু ছেলের দখলেই পাইয়ে দিয়েছিলেন তিনি, তারপরও কেন এই অবিচার? বৃদ্ধার অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক।

বৃদ্ধা বলেন, ‘ স্বামীর মৃত্যুর পর নিজের এবং মেয়েদের ভাগের সম্পত্তি তুলে দিয়েছিলাম শুধু একটু মাথা গোঁজার ঠাঁই আর দু’মুঠো ভাতের জন্য। সেই টুকুই ওরা ঠিকঠাক দিতনা। এরপর ওরা আমার পেনশনের টাকা চাইতে থাকে। পেনশনের ওই টাকায় আমার চিকিৎসা চলে। কী ভরসায় ওদের হাতে ওই পেনশন তুলে দেই? সেইটা বলায় ছেলে-বৌমা অত্যাচার শুরু করে। যা নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশিও বসেছিল। কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি।’

- Advertisement -
Latest news
Related news