Saturday, April 20, 2024

Kolkata Highcourt: ভাঙা হয়নি শাসকদলের অফিস! পূর্ব মেদিনীপুরের SP কে তলব হাইকোর্টের

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: এ যেন ‘নিজের বেলায় আঁটিসাঁটি আর পরের বেলায় দাঁত কপাটি।‘ যে পুলিশ সামান্য গরিব ব্যবসায়ীকে ফুটপাত থেকে হাঁকিয়ে দিতে কিংবা মানুষের বে-আইনি বাড়ি ভাঙতে প্রশাসনকে নির্দ্বিধায় প্রশাসনকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে। সেই পুলিশের সাহায্য মিলছেনা শাসকদলের ‘বেআইনি’ কার্যালয় ভাঙার ক্ষেত্রে। আর সেই কারণেই হাইকোর্টের নির্দেশ মানা যাচ্ছেনা। আদালতের কাছে এমনই কবুল রাজ্যের পূর্ত দফতরের আধিকারিকদের। ঘটনায় ক্ষুব্ধ বিচারপতি তলব করেছেন স্বয়ং জেলার পুলিশ সুপার বা SP কেই।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সোমবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার একটি বেআইনি নির্মাণ সংক্রান্ত মামলার শুনানি পর্বে এমনই নির্দেশ দিয়েছেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজাশেখর মান্থা। শুধু তাই নয় পূর্ত দফতরের ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য বিচারপতির পরামর্শ, ‘যদি রাজ্য পুলিশ না সাহায্য করে তবে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সাহায্য নিন।’ উল্লেখ্য পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়ার অদূরে জাতীয় সড়কের পাশে ওই নির্মাণ নিয়ে আগেই প্রশ্ন তুলেছিল আদালত। রাজ্য পূর্ত দফতরকে বেআইনি নির্মাণ ভাঙার নির্দেশও দেওয়া হয়। কিন্তু সেই নির্দেশ কার্যকর না হওয়ায় সোমবার এমনই আদেশ দিয়েছেন বিচারপতি মান্থা পাশাপাশি আদালত অবমাননার মামলায় আগামী ৮ অগস্ট পুলিশ সুপারকে শ্রী অমরনাথ কে. কে তলব করেছেন বিচারপতি মান্থা।

ঘটনাসূত্রে জানা গেছে পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়া থানার অন্তর্গত দক্ষিণ গোপালপুরের বাসিন্দা শেখ গোলাম মইনউদ্দিন তাঁর বাড়ির সামনে শাসকদলের শ্রমিক সংগঠনের বেআইনি নির্মাণের অভিযোগে মামলা করেছিলেন। দেখা যায় ওই নির্মাণ এবং কিছু দোকান ১১৬ নম্বর হাওড়া-মুম্বাই জাতীয় সড়কের পাশে ২০১৬ থেকে রয়ে গেছে । সমস্ত বিষয় পর্যবেক্ষণ করার পর গত ১ মার্চ বিচারপতি মান্থা ওই নির্মাণ ভাঙার নির্দেশ দেন। কিন্তু কাজ না হওয়ায় আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হয়। তলব করা হয় পূর্ত দফতরের আধিকারিকদের।

সোমবার পূর্ত দফতরের সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ার হাই কোর্টকে জানান, পুলিশের সহযোগিতা না মেলায় এখনও নির্দেশ কার্যকর হয়নি। তার পরেই বিরক্ত বিচারপতি জেলার পুলিশ সুপারকে হাজিরার নির্দেশ দেন। রাজ্য পুলিশ সহযোগিতা না করলে প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সাহায্য নিয়ে বেআইনি নির্মাণ ভাঙারও নির্দেশ দেন তিনি। কিন্তু হাইকোর্টের সেই নির্দেশের পরেও পূর্ব মেদিনীপুরে শাসকদলের শ্রমিক সংগঠনের একটি দফতর ভাঙায় সক্রিয়তা না দেখানোয় জেলা পুলিশকে ভর্ৎসনা করলেন বিচারপতি রাজাশেখর মান্থা। ঘটনার ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য সোমবার বিচারপতি তলব করেছেন পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিশ সুপারকে।

- Advertisement -
Latest news
Related news