Wednesday, June 19, 2024

Keshpur Student Protest: ফেরৎ নাও সবুজ সাথীর সাইকেল! পশ্চিম মেদিনীপুরে রাস্তা চেয়ে ২১ দিনের মাথায় ফের বিক্ষোভে পড়ুয়ারা

- Advertisement -spot_imgspot_img
দাসপুরের নাড়াজল এলাকায় সবুজসাথীর সাইকেল ফেলে বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ পায়ে হাঁটার রাস্তাই নেই তো সাইকেল দিয়ে কী করব? সরকার বরং সাইকেল ফেরৎ নিয়ে নিক। ঠিক ২১ দিনের মাথায় ফের বিক্ষোভে সামিল হলেন স্কুল পড়ুয়ার দল। পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুর থানা এলাকার ঝলকা এলাকায় বেহাল রাস্তা সরানোর দাবিতে তিন সপ্তাহের মাথায় পড়ুয়াদের ফের রাস্তায় নামতে দেখলেন জনতা। উল্লেখ্য গত ২১ দিন আগে স্কুলের বেহাল রাস্তায় সবুজ সাথীর সাইকেল ফেলে বিক্ষোভ অবরোধ করেছিলো এই পড়ুয়ারা। তখন প্রসাশনের কর্তারা ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন আট দিনের মধ্যে বেহাল রাস্তা মেরামত শুরু হবে। আজ ২১ দিন পার হলেও সেই বেহাল রাস্তা মেরামত করার কোনো পদক্ষেপ নেই। প্রতিকার চেয়ে
ঘাটাল -দাসপুর হয়ে মেদিনীপুর গামী রাজ্য সড়কের ঝলকা সেতুর উপর পথ অবরোধ সহ বিক্ষোভে সামিল হয় কেশপুর ব্লকের গোটগেড়িয়া শিবশক্তি হাইস্কুলের সহস্রাধিক ছাত্রছাত্রী।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
পড়ুয়া বিক্ষোভে অচল রাস্তা

সকাল সাড়ে দশটা থেকে বেলা সাড়ে বারোটা পর্যন্ত বৃষ্টি উপেক্ষা করেই চলে বিক্ষোভ অবরোধ । দুঘন্টা ধরে ব্যাস্ততম রাজ্য সড়ক অবরোধ চলায় যান চলাচল স্তব্ধ সহ বিরাট জ্যাম হয়। পড়ুয়ারা বলেন সবুজ সাথীর দেওয়া সাইকেল চাইনা। ফেরত দিতে চাই সরকারকে। পায়ে হেঁটে স্কুল আসাই যায় না। সাইকেল নিয়ে কি করবো।বেহাল স্কুলের রাস্তা। প্রতিদিনই আমাদের কেউ না কেউ খানা খন্দে কাদা জলে পড়ে গিয়ে আহত হচ্ছে। কাদা পিচ্ছিল রাস্তায় হাঁটাই যায়না। বেহাল রাস্তাটি কেশপুর ও দাসপুর ১নম্বর এমন দুই ব্লকের বর্ডার এলাকা হওয়ায় রাস্তাটি সারানো নিয়ে দুই ব্লকই একে অপরের উপর দায় চাপিয়ে বছরের পর বছর এড়িয়ে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য জেলা পরিষদ সহ দুই ব্লক প্রসাশন তৃণমূল পরিচালিত। স্থানীয় মানুষদের দাবি নিজেদের মধ্যে বখরা নিয়ে গোন্ডগোলে বেহাল রাস্তা আর মেরামত হয়না। আর তারই মাশুল দিতে হচ্ছে স্কুল পড়ুয়া সহ এলাকার তিন টি মৌজার মানুষ। আড়াই কিমি রাস্তা মেরামত করতে বছরের পর বছর সময় পার করিয়ে এখন নরকে পরিনত করেছে। তাই সঙ্গত কারনে স্কুল পড়ুয়ারা এর প্রতিকার চেয়ে রাজ্য সড়ক অবরোধ সহ বিক্ষোভে সামিল হয়। শেষ অবধি কেশপুর ও দাসপুর দুই থানার পুলিশ প্রসাশন সহ দুই ব্লক দপ্তরে প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ছাত্রদের সাথে কথা বলেন। এক সপ্তাহ সময় চেয়ে নিয়ে আবারও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় বেহাল রাস্তা মেরামত শুরু করার। এর পর অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য কিছুদিন আগেও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাসপুর নিজ নাড়াজোল গ্রাম পঞ্চায়েতের সীমানা ও কাঁটা দরজা নামক স্থানে প্রাণকৃষ্ণ হাই স্কুলের পড়ুয়ারাও রাস্তা মেরামতের দাবিতে সবুজ সাথী সাইকেল কে রাস্তায় ফেলে ছাত্রছাত্রীরা সিমানা এলাকায় পথ অবরোধ শুরু করে। ঘন্টার পর ঘন্টা অবরোধ বিক্ষোভ চলার পরে খবর পেয়ে দাসপুর থানা পুলিশ গিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের ও স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলে অবরোধ তুলতে সক্ষম হয়।

- Advertisement -
Latest news
Related news