Monday, April 15, 2024

Acid Attacted: পশ্চিম মেদিনীপুরে ফের আ্যসিড হামলা ! এবার ‘ফোন ব্যস্ততা’ নিয়ে অশান্তির জেরে স্ত্রীর ওপর আ্যসিড ছুঁড়লেন স্বর্ণশিল্পী

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আবারও আ্যসিড হামলার ঘটনা ঘটল পশ্চিম মেদিনীপুরে, ঘটল সেই দাসপুরেই। জানা গেছে পারিবারিক অশান্তির জেরে নিজের তরুণী স্ত্রীর শরীরে আ্যসিড ছুঁড়েছেন স্বয়ং স্বামীই। ঘটনার জেরে আটক করা হয়েছে স্বামীকে। স্ত্রী বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্ত্রীর মুখ এবং শরীরের বিভিন্ন অংশ আ্যসিড হামলায় পুড়ে গিয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাসপুর থানার বিষ্ণুপুর এলাকার। আহত মহিলা বর্তমানে ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

স্থানীয় সূত্র মারফৎ জানা গেছে বিষ্ণুপুর গ্রামের বাসিন্দা পেশায় সোনার কারিগর সেক সয়েব আলী বর্তমানে ভিন রাজ্যে একটি গহনা দোকানের কর্মরত। দিন কয়েক আগেই তিনি স্ত্রী শাকিরা কে নিয়ে বিষ্ণুপুরের বাড়িতে ফিরেছেন। শাকিরার বাপের বাড়ি কলকাতা সংলগ্ন এলাকায়। মাত্র কয়েকবছর হল তাঁদের বিয়ে হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে কোনও বিষয় নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে প্রচন্ড কথা কাটাকাটি হয়েছিল। ওই সময় সয়েব তাঁর স্ত্রীকে লক্ষ্য করে আ্যসিড ছুঁড়ে মারেন। স্বর্ণশিল্পী হওয়ার কারণেই সম্ভবতঃ ঘরে নাইট্রিক আ্যসিডের বোতল ছিল। রাগের মাথায় সেই বোতল থেকেই তিনি আ্যসিড ছুঁড়ে মারেন তিনি। যার জেরে স্ত্রী শাকিরার মুখ ও শরীরের কিছু জায়গা ঝলসে গিয়েছে। যন্ত্রনায় চিৎকার করে ওঠেন স্ত্রী। সম্বিৎ ফেরে স্বামীর। সঙ্গে সঙ্গে স্ত্রী শাকিরা কে নিয়ে হাসপাতালে পৌঁছান স্বামী সয়েব। এদিকে হাসপাতাল সূত্রে ঘটনার খবর পেয়েই আহত শাকিরা কে হাসপাতালে দেখতে আসে দাসপুর থানার পুলিশ। তাঁর সঙ্গে কথাবার্তা বলার পাশাপাশি পুলিশের পক্ষ থেকে তাঁর বয়ান নেওয়া হয়।

পুলিশ মারফৎই শাকিরার আহত হওয়ার খবর জানানো হয়েছে তাঁরবাপের বাড়িতে। খবর পেয়ে ঘাটাল হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন তাঁরা। এদিকে শাকিরার বয়ানের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে দাসপুর থানার পুলিশ। শাকিরার বাপের বাড়ির লোক না এসে পৌঁছানো অবধি দায়ের হয়নি কোনও অভিযোগ। ফলে আপাততঃ সয়েবকে আটক করেছে পুলিশ। ঠিক কী কারণে এই ঘটনা অথবা শাকিরা পুলিশকে ঠিক কী বলেছে তা এখনও জানা না গেলেও একটি সূত্র জানিয়েছে, গন্ডগোলের সূত্রপাত মোবাইল ফোন নিয়ে। শাকিরা নাকি একাধিক যুবকের সাথে ফোনে ব্যস্ত থাকত এমনই অভিযোগ তুলে বৃহস্পতিবার তাঁর সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েছিল সয়েব। বিষ্ণুপুর গ্রামেরই নাকি যুবক তাঁরা। যদিও সয়েব এই আ্যসিড হামলা করার কথা অস্বীকার করেছে কিন্তু কিভাবে শাকিরা আ্যসিড আক্রান্ত হলেন তার ব্যাখ্যাও দেয়নি।

উল্লেখ্য পশ্চিমবঙ্গে আ্যসিড হামলার ঘটনায় রাজ্যের ওপরের দিকেই রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের নাম। আবার এই আসিড অপরাধের দুনিয়ায় জেলার মধ্যে শীর্ষে দাসপুর। প্রেমে বিফলতা, প্রেমে প্রতিহিংসা, প্রতিবেশীর সঙ্গে ঝগড়া বিবাদ ইত্যাদি বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই মর্মান্তিক হামলার ঘটনা ঘটে থাকে। মাস কয়েক আগেই এই প্রতিবেশীকে আসিড ঢেলে পুড়িয়ে মারার ঘটনায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড হয়েছে প্রতিবেশী দম্পত্তির। বৃহস্পতিবার যার আরও সাক্ষ্য থাকল দাসপুর। পুলিশ জানিয়েছে, দাসপুরের হাজার হাজার পরিবার স্বর্ণশিল্পের সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় এখানে আ্যসিড খুব সহজলভ্য হওয়ায় এই ধরনের অপরাধ করা সহজেই সম্ভব হয়ে পড়ে।

- Advertisement -
Latest news
Related news