Sunday, April 14, 2024

Sabang: বর্ষার আগেই ভেড়ি করতে মরিয়া মাফিয়ার দল! ভোর রাতে রুখে দাঁড়াল সবংয়ের রামভদ্রপুর

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আর দিন কয়েকের মধ্যেই আসতে চলেছে বর্ষা আর তার আগেই কৃষি জমিতে ভেড়ি করতে মরিয়া ভেড়ি-মাফিয়ার দল। তাই ভোর রাতে ডজন খানেক ট্রাক্টর আর মাটি কাটার মেশিন নামানো হয়েছিল কিন্তু সেই প্রচেষ্টা আবারও ভেস্তে দিলেন সবং থানার রামভদ্রপুরের বাসিন্দারা। রাতারাতি মশাল জ্বালিয়ে নিজেদের জমি আগলাতে ছুটে গেলেন মহিলা পুরুষের দল। ফলে ট্রাক্টর, মেশিন ফেলেই পালাতে বাধ্য হল ভেড়ি-মাফিয়ার দল। রবিবার ভোর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের সেই রামভদ্রপুরে যেখানে গত নভেম্বর মাস থেকে কৃষি জমি রক্ষার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন কয়েকটি কৃষিজীবী পরিবার। ক্ষুব্ধ কিছু মানুষ মশালের আগুন দিয়েই ট্রাক্টর এবং মেশিনগুলোতে আগুন ধরিয়ে দিতে উদ্যত হলে বাকিদের চেষ্টায় তা সে অবধি আটকানো সম্ভব হয়।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

জানা গেছে গত প্রায় দেড়বছর ধরে ৪৩৬ একর তিনফসলা জমিতে ভেড়ি করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় কিছু বড় জোতের মালিক। এই অংশের পরিবারগুলির কয়েকজন শহরে থাকেন, কেউ কেউ চাকরিও করেন। কৃষিতে লাভ নেই এই অজুহাতে তাঁরা ভেড়ি বানাতে চান। ওদিকে ছোট জোতের মালিকরা কৃষিতেই স্বচ্ছন্দ্য। বছরে ৩ বার চাষ করে তাঁদের সংসার চলে। তাই তাঁরা ভেড়ির বিরোধী। আশেপাশের জমিগুলিতে ভেড়ি হয়ে গেলে তাঁদের চাষের দফারফা হবে তাই ভেড়ি বিরোধী আন্দোলনে নেমেছেন তাঁরা। বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গেছে এবং আদালতের বিচারাধীন বিষয়টি হওয়া স্বত্বেও, কৃষি জমির চরিত্র বদলের অনুমতি না পাওয়া স্বত্ত্বেও চেষ্টা হচ্ছে কৃষি জমিকে ভেড়িতে রূপান্তরিত করার।

এদিকে ভেড়ির বিপক্ষে থাকা কৃষকরা গঠন করেছেন রামভদ্রপুর কৃষি জমি বাঁচাও মঞ্চ। শুরুতে কোনঠাসা হয়ে থাকা এই মঞ্চ ক্রমশ শক্তিশালী হতে শুরু করেছে। এমনিতেই কেলেঘাই নদীর বুকে বেআইনি ইটভাটার দাপটে প্রায় ১০ বছর পর ভয়াবহ বন্যা দেখেছে সবং ও পিংলার একাংশ। তার ওপর রামভদ্রপুর মৌজায় ৪৩৬ একর তিন ফসলা কৃষি জমিতে ভেড়ি তৈরী হলে এলাকার বসতবাটিও লাটে উঠবে। এই কথা মনে করেই কৃষি জমি বাঁচাও মঞ্চের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ। সেই আন্দোলন এবং প্রতিরোধ বাড়তে থাকায় জোর জবরদস্তি শুরু করেছে ভেড়ি মাফিয়ার দল। রাতের অন্ধকারে বাইক মিছিল ও বোমা বৃষ্টি করে মানুষকে ভয় দেখানোর পাশাপাশি চলছে মেশিন নামিয়ে রাতারাতি ভেড়ির চেষ্টা। রবিবার ভোর রাতে ২০-২৫ টি মাটি কাটার মেসিন সহ ট্রাক্টর চাষের জমিতে নেমে পড়ে। ভোর রাতে মহিলা পুরুষ মিলে সেই সব ট্রাক্টর ও মেশিন আটকে দেওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ে আলো ফুটলে।

রবিবার সাত সকালে রামভদ্রপুর মৌজায় তিনটি বুথের মানুষদের পাশে দাঁড়ায় আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষজনও। জনরোষের চেহেরায় প্রতিরোধে সামিল হয়। কৃষক বাড়ীর মহিলারা সামনের সারিতে জ্বলন্ত মশাল,বটি, কাটারি নিয়ে প্রতিরোধে সামিল হন। গত নভেম্বর ডিসেম্বর মাসে চাষ জমিতে রাসায়নিক ছড়িয়ে বরো ধান, সরষে চাষের জমি নষ্ট করে দিয়েছিলো অনিচ্ছুক কৃষকদের ফসলের জমি। সেই ক্ষোভ ছিলই। তার সঙ্গে নতুন করে ভেড়ি দখলের চেষ্টার বিরুদ্ধে গর্জে ওঠেন স্থানীয় মানুষজন।

- Advertisement -
Latest news
Related news