Monday, May 20, 2024

MIdnapore Poll: জুন আর বে-জুনের লড়াই মেদিনীপুরের দেওয়ালে দেওয়ালে! সভাপতি, চেয়ারম্যানকে এড়িয়ে শহর চষে বেড়াচ্ছেন বিধায়ক

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: মেদিনীপুর শহরে ২৫টি ওয়ার্ড। আড়াআড়ি ১৪জন আর ১১জনে বিভক্ত। এক যোগে নয়, শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেসের প্রার্থীরা মনোনয়ন জমাও দিয়েছেন আলাদা আলাদা, সেই ১৪/১১ ফর্মুলায়। জুন মালিয়া বিধায়ক হয়ে আসার পরই মেদিনীপুর শহর তৃনমূল কংগ্রেসের এটাই প্রাপ্তি। শহরের দেওয়ালে দেওয়ালেও এবার নজরে পড়ল সেই জুন বে-জুনের লড়াই। ব্যানারে, পোস্টারে সব্বাই রেখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
জুন মালিয়ার ছবি সহ-১

প্রায় সমস্ত প্রার্থীদেরই মাথার ওপরেই লেখা হয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আশীর্বাদ ধন্য অথবা ধন্যা। মাথার ওপর ডানে বাঁয়ে মমতা ও অভিষেকের ছবি সম্বলিত সেই পোস্টার ব্যানারে কেউ কেউ আবার আনুগত্যর প্রমান দিতে দু’গালে রুজ মাখানো অভিনেত্রী জুন মালিয়ার ছবিও সেঁটে দিয়েছেন। আর কেউ এলাকার ত্রিসীমানায় রাখেননি বিধায়ক জুন মালিয়ার ছবি।

জুন মালিয়ার ছবি সহ-২

ভোটের বাজারেও দেওয়ালের এই ফাটল স্পষ্ট নজরে পড়ছে জনতা জনার্দনের। আড্ডায় কিংবা চায়ের ঠেকে তাই নিয়ে চলছে জমাটি আলোচনা।

মেদিনীপুর পুরসভার পৌর প্রশাসক সৌমেন খান ভোটে দাঁড়িয়েছেন ১৮ নম্বর ওয়ার্ড থেকে। তাঁর ফ্লেক্সে সর্বোচ্চ ৪টি ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। মমতা, অভিষেক আর নিজের পাশাপাশি জুন মালিয়ার ছবিও দিয়েছেন তিনি। বহু পুরানো কংগ্রেসের এই নেতা তৃনমূল কংগ্রেসে সর্বাধিক নবাগত। তৃনমূলের প্রতীকে এই তাঁর প্রথম লড়াই। এলাকায় রসিকতা করে অনেকেই তাঁকে তৎকাল তৃনমূল বলেন।

জুন মালিয়ার ছবি হীন-১

জুন মালিয়া বিধায়ক হওয়ার পরই তিনি পৌরপ্রশাসক পদটি পুরস্কার পেয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই তিনি তাঁর আনুগত্য প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রীর ছবি নিজের পাশে রেখে। এরকমই ছবি মিলবে ১৫নম্বর ওয়ার্ডের রাহুল বিষই, ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের চন্দ্রানী দাস সহ সেই ১১টি ওয়ার্ডে যাঁরা প্রথম দিন মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন জুন মালিয়ার সাথে।

আবার পশ্চিম মেদিনীপুরের মেদিনীপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি সুজয় হাজরার স্ত্রী মৌসুমী হাজরা প্রার্থী হয়েছেন ২৩নম্বর ওয়ার্ডে। এখানকার পোষ্টার, ব্যানারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে নিজের ছবি দিলেও ছবি নেই জুন মালিয়ার।

জুন মালিয়ার ছবি হীন-২

১৯নম্বর ওয়ার্ডের তৃনমুল প্রার্থী কট্টর জুন বিরোধী বিশ্বনাথ পান্ডবের পোষ্টার কিংবা ব্যানারে। ২১ নম্বরে আশিস চক্রবর্তী, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ইন্দ্রজিৎ পানিগ্রাহীর পোষ্টার ব্যানারে নেই জুন মালিয়া। এই ১৪জন আবার জুনহীন হয়েই মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন।

তাঁর ছবি থাকুক আর নাই থাকুক বিধায়ক জুন মালিয়া কিন্তু প্রচার করছেন শহর জুড়েই। আপাততঃ দৃষ্টিতে দেখলে মনে হবে তিনি অন্ততঃ কোনও দলাদলিতে নেই। সব ওয়ার্ডে দলের সমস্ত প্রার্থীর হয়ে মিছিল মিটিং রোড শো করছেন। মনোনয়নে দলের ১৪জন প্রার্থীর সমর্থনে উপস্থিত না থাকতে পারলেও ২৫টি ওয়ার্ডের অধিকাংশ জায়গায় তিনি যাচ্ছেন। যদিও তাঁর বিরোধী গোষ্ঠীর মতে এখানেও বিভাজনের রসায়ন তৈরি করছেন অভিনেত্রী। তাঁদের অভিযোগ জেলার সাংগঠনিক সভাপতি সুজয় হাজরা কিংবা চেয়ারম্যান দীনেন রায়কে বাদ দিয়েই তৈরি হচ্ছে কর্মসূচি যাতে তাঁরা অংশ নিতে না পারেন। দলীয় সূত্রে জানা গেছে সভাপতির ওয়ার্ডেই একটি রোড-শো হয়েছে সভাপতিকে না জনিয়েই। জুন মালিয়া নাকি সবটাই করছেন জেলার পৌর নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা অজিত মাইতিকে নিয়ে। দলের অন্দরে প্রশ্ন উঠেছে জুন মালিয়া কী তবে জেলায় বিকল্প নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে হাঁটছেন?

- Advertisement -
Latest news
Related news