Wednesday, May 22, 2024

Old Man Lynched: সম্প্রীতিকে ঘিরে তীব্র অসম্প্রীতি! পিটিয়ে মারা হল বৃদ্ধকে, পূর্ব মেদিনীপুরে গ্রেপ্তার স্বামী-স্ত্রী

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা : প্রেক্ষাগৃহর নাম সম্প্রীতি কিন্তু তাকে ঘিরে তীব্র অসম্প্রীতির বাতাবরনে খুন হয়ে গেলেন এক বৃদ্ধ। অভিযোগ চেলাকাঠ দিয়ে পিটিয়ে মারা হয়েছে ওই বৃদ্ধকে। আর সেই অভিযোগে উত্তাল হয়ে উঠল পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দকুমার এলাকায়। ধুন্দুমার এই ঘটনায় বেশ কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। উত্তেজনা সামাল দিতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ওই বৃদ্ধকে পিটিয়ে মারার অভিযোগে ইতিমধ্যে এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করেছে নন্দকুমার থানার পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তির নাম
তুষারকান্তি সিংহ। বয়স ৬৫ বছর।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

ঘটনাটি ঘটেছে নন্দকুমার থানা এলাকার টিকারামপুরে গ্রামে। স্থানীয়সূত্রে জানা গেছে প্রেক্ষাগৃহের দখলদারিকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, টিকারামপুর অবস্থিত ওই সম্প্রীতি নামক প্রেক্ষগৃহের অংশীদারিত্ব রয়েছে টিকারমপুরের পাশাপাশি টোটাবেড়িয়া ও ঘাটোয়াল গ্রামেরও। ৩টি গ্রামেরই বিভিন্ন উৎসব-অনুষ্ঠানের কাজে ব্যবহৃত হত। সম্প্রীতির প্রেক্ষগৃহের চাবি থাকবে কোন গ্রামের হাতে তা নিয়ে বিবাদ বাধে৷ সেই সূত্র ধরেই শনিবার সকালে অশান্তি শুরু হয়। প্রেক্ষাগৃহ পরিচালন কমিটির সভাপতি তুষারকান্তি সিংহের থেকে চাবি না পেয়ে তাঁকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। জখম অবস্থায় তাঁকে ভর্তি করা হয় তমলুক জেলা হাসপাতালে। পরে মৃত্যু হয় তাঁর।

এই মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পরই একদল উত্তেজিত জনতা মারধরে অভিযুক্তদের বাড়িতে হামলা চালায় রবিবার সকালে। ৬ টি বাড়িতে ভাঙচুর করা হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। তমলুকের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক আলি আবু বক্কর বলেন, ‘ স্থানীয় ৩ টি পাড়ার প্রেক্ষাগৃহের দখলের লড়াইকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। ঘটনার তদন্তে নেমে স্থানীয় এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।’

মৃত বৃদ্ধের স্ত্রী বিদ্যা সিংহ অভিযোগ করেন, ‘ আমার স্বামীর হাত পিছমোড়া করে ধরে চেলাকাঠ দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়। এমনকি মাথাতেও আঘাত করা হয়। মাথায় আঘাত করার ফলে তাঁর মৃত্যু হয়।’ এই ঘটনায় মোট ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে টোটাবেড়িয়ার বাসিন্দা বিকাশ দলুই ও তার স্ত্রী টুনি দলুইকে। বাকিদেরও খুঁজছে পুলিশ। রবিবার তমলুক আদালত বিকাশ ও টুনির জামিন নাকচ করে দিয়েছেন।

- Advertisement -
Latest news
Related news