Monday, May 20, 2024

IIT-Kharagpur: আইআইটি খড়গপুরে জারি ‘হল-কার্ফূ্!’ বর্ষবরণে নিষেধাজ্ঞা, ছাত্রাবাসের বাইরে বেরুতে বারণ

IIT Kharagpur authorities issued Hall Curfew for 3 days. As a result of this directive, it has been strictly prohibited to leave hostel from 6 pm on 31st December, 2021 to 3rd January, 2022. The IIT Kharagpur authorities have said that no New Year celebrations will be held at the same time. As a result all the 21student hostel under IIT Kharagpur campus, students have been asked to stay in. They will not be able to leave the hostels for these three days. Students will not be able to hold any gathering on balcony, corridor, open field. Students of any hostel will not be able to organize New Year celebrations in a single or joint venture.

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আইআইটি খড়গপুর (IIT-Kharagpur) কর্তৃপক্ষ ৩ দিনের জন্য হল-কার্ফূ্ (Hall Curfew)জারি করল। এই নির্দেশের ফলে ২০২১ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৩রা জানুয়ারি ২০২২ অবধি ছাত্রাবাসে থাকা ছাত্রদের বাইরে বের হওয়া কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সাথে সাথে বর্ষবরণের কোনও অনুষ্ঠান করা যাবেনা বলে জানিয়ে দিয়েছেন আইআইটি খড়গপুর (IIT-Kharagpur) কর্তৃপক্ষ। এর ফলে আইআইটি খড়গপুর ক্যাম্পাসের অন্তর্গত ২১টি ছাত্রাবাসের মধ্যে সমস্ত ছাত্র কিংবা ছাত্রী নিবাসেই ছাত্রছাত্রীদের আবদ্ধ থাকতে বলা হয়েছে। এই তিনদিন তাঁরা ছাত্রাবাস থেকে বেরুতে পারবেননা। উল্লেখ্য আইআইটির হোস্টেলগুলিকে আইআইটি খড়গপুরের পরিভাষায় ‘হল এন্ড রেসিডেন্ট’ বলা হয়ে থাকে। সেই কারণেই এই নিষেধাজ্ঞাকে হল-কার্ফূ্ বলা হচ্ছে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

শুক্রবার সকালে ছাত্রাবাস পরিচালন কমিটি বা হল ম্যানজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক পার্থ সাহা এই নির্দেশিকা জারি করে বলেছেন, এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় শুধু যে পড়ুয়াদের নিজেদের হল ক্যাম্পাসের মধ্যেই আবদ্ধ থাকতে হবে তা নয়। পাশাপাশি পড়ুয়ারা ব্যালকনি, করিডর, খোলা মাঠে কোনও জমায়েত করতেও পারবেননা। কোনও হলের পড়ুয়ারা একক বা যৌথ উদ্যোগে নববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পারবেননা। তাঁদেরকে নিজের নিজের জায়গাতেই স্বেচ্ছাবদ্ধ থাকতে হবে। খাবারের জন্য নির্দিষ্ট স্থলেও ভিড় করা যাবেনা। ব্যাচ করে যেতে হবে এবং কীভাবে ব্যাচ হবে তা পরিকল্পনা করবেন নির্দিষ্ট ছাত্রাবাসের দায়িত্বপ্রাপ্ত সুপারভাইজার ও ওয়ার্ডেনরা। কঠোর ভাবে কোভিড প্রটোকল মানতে বলা হয়েছে পড়ুয়াদের।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে গবেষক পড়ুয়ারা (Research Scholars) আলাদা কোনও সুবিধা পাবেননা অর্থাৎ তাঁদেরকেও এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকতে হবে। তবে কোনও গবেষক পড়ুয়ার যদি অত্যন্ত জরুরি প্রয়োজন থাকে ল্যাবরেটরি ব্যবহার করার তবে তিনি তাঁর প্রয়োজন নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট হলের ওয়ার্ডেন, সুপারভাইজারকে ই-মেল করে জানাবেন। তাঁদের অনুমোদন পেলে কয়েকঘন্টার জন্য আ্যকাডেমিক ক্যাম্পাসে যেতে পারেন। সমস্ত হলের ওয়ার্ডেনদের নির্দিষ্ট সময় অন্তর ছাত্রাবাসগুলিতে গিয়ে দেখতে হবে যে এই নির্দেশিকা পালন হচ্ছে কিনা।

উল্লেখ্য লকডাউন পর্ব শেষ করে সবেমাত্র নিউনরম্যালে ফিরতে শুরু করেছে আইআইটি খড়গপুর। ধাপে ধাপে পড়ুয়াদের ফেরাতে শুরু করা হয়েছে। তারই প্রক্রিয়ায় সর্বাধিক সাড়ে ৩হাজারের মত পড়ুয়া ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেছেন ২৬-৩০শে ডিসেম্বর। আর এই সময়ের মধ্যেই রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা আক্রান্তের দৈনিক সংক্রমন। এই সব পরিস্থিতি বিচার করেই এই হল কার্ফূ্ জারি করা হল বলেই মনে করা হচ্ছে। এই নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে সমস্ত ওয়ার্ডেন, ডিরেক্টর ও রেজিস্টারদের সচিব, নিরাপত্তা আধিকারিক সহ বিভিন্ন দপ্তরে।

- Advertisement -
Latest news
Related news