Monday, April 15, 2024

Hool Dibwas: পশ্চিম মেদিনীপুর জুড়ে উদযাপিত হুল দিবস ! খড়গপুর গ্রামীনে বসল সিধু ও কানহু-র মূর্তি

- Advertisement -spot_imgspot_img

উদয়ন সিনহা: দেশ এবং রাজ্যের সাথে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা জুড়েও উদযাপিত হল ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের বীর শহিদ সিধু ও কানহু-র আত্মবলিদান উপলক্ষ্যে হুল দিবস। সাঁওতাল জনজাতির এই দুই মহানায়ককে যথাযথ শ্রদ্ধা ও সম্ভ্রমের সঙ্গে স্মরণ করল পশ্চিম মেদিনীপুরের জঙ্গল মহলের পাশাপাশি নাগর পরিমন্ডলে থাকা মানুষ জনও। জেলার গোয়ালতোড়, গড়বেতা, শালবনি, কেশপুর, মেদিনীপুর সদর প্রভৃতি জঙ্গল মহলের সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বিভিন্ন বিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদার সাথেই পালিত হয়েছে হুল দিবস। বিদ্যালয় গুলিতে পড়ুয়াদের কাছে আলোচিত হয়েছে সিধু ও কানহু আহুত ‘উলগুলান’ বা বিপ্লবের বীর গাথা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

এদিন শালবনি ব্লকের মৌপাল দেশপ্রাণ বিদ্যাপীঠের প্রার্থনা সভায় সাঁওতাল বিদ্রোহের নায়ক সিদো ও কানহু এবং বিরসা মুন্ডার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করেন প্রধানশিক্ষক প্রসূনকুমার পড়িয়া এবং সমগ্র শিক্ষা মিশনের বাঁকুড়া জেলার পাপিয়া সাহানা গুপ্ত এবং মেদিনীপুরের মৃণালকান্তি মণ্ডল । হুল বিদ্রোহের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস তুলে ধরে একাদশ শ্রেণির ছাত্রী শাশ্বতী ঘোষ । পরে বিবেকানন্দ সভা মঞ্চে অনাড়ম্বরভাবে হুল দিবসের অনুষ্ঠান হয়। সাঁওতালি সঙ্গীত পরিবেশন করে শ্রদ্ধা জানায় দশম শ্রেণির ছাত্র সুদীপ্ত টুডু । সঙ্গীত, নৃত্য ও আলোচনার মাধ্যমে দিনটি পালন করা হয়। একই ভাবে এদিন যথাযথ মর্যাদায় হুল দিবস উদযাপন করা হলো পন্ডিত রঘুনাথ মুরমু বিদ্যাপীঠে। সভায় বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক সুপাই মুরমু এবং বিকাশ সিংকে সংবর্ধনা জ্ঞাপন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন প্রধান শিক্ষক বিনোদ মন্ডল।

তবে হুল দিবস উপলক্ষ্যে জেলার সর্ব বৃহৎ অনুষ্ঠান গুলির মধ্যে খড়গপুর গ্রামীনের একটি অনুষ্ঠান। খড়গপুর ২ নং ব্লকের অন্তর্গত সাঁকোয়া গ্রাম পঞ্চায়েত ও ভারত জাকাত মাঝি পরগনার যৌথ উদ্যোগে পঞ্চায়েত অফিস প্রাঙ্গণে ১৬৭ তম হুল দিবস উপলক্ষ্যে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খড়্গপুর ২ নং ব্লকের ভারত জাকাত মাঝি পরগনার সম্পাদক সলিল মান্ডি,, সাঁকোয়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান,উপপ্রধান সহ বিভিন্ন কর্মী ও আধিকারিকবৃন্দ এবং ভারত জাকাত মাঝি পরগনার খড়গপুর ১ ও ২নং ব্লকের ও সাঁকোয়া শাখার কর্মী ও নেতৃত্ববৃন্দ।এই অনুষ্ঠানেই পঞ্চায়েত অফিস প্রাঙ্গণে উন্মোচিত হল সাঁওতাল বিদ্রোহের নেতা সিধু ও কানহু-র পূর্ণ অবয়ব মূর্তি। মূর্তির উন্মোচন করেন সাঁকোয়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান শ্রীমতি তাপসী জানা মহাশয়া। এই অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে তাপসী দেবী জানান,১৮৫৫সালের এই দিনে ব্রিটিশদের ভারতবর্ষ থেকে বিতাড়িত করার জন্য ভাগনাদিহির মাঠে যে আন্দোলন শুরু করেছিলেন, সিধু ও কানহু সেটিই ছিল সম্ভবত পরাধীন ভারতবর্ষের প্রথম স্বাধীনতা সংগ্রাম।তাই এই দিনটি স্মরণীয় রাখতে আমরাভারত জাকাত মাঝি পরগনা এবং শিল্পী উদয় পাত্রের সহযোগিতায় সিধু ও কানহু-র পূর্ণাঙ্গ মূর্তি স্থাপন করলাম।

- Advertisement -
Latest news
Related news