Tuesday, April 16, 2024

Women Killed: পশ্চিম মেদিনীপুরে ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড! নদী থেকে উদ্ধার গলাকাটা পাথর চাপা অবিন্যস্ত পোশাকে মহিলার দেহ

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: বুধবার সাতসকালেই এক মহিলার গলাকাটা দেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাসপুর থানার অন্তর্গত কলোড়া এলাকায়। জানা গেছে কলোড়া বিদ্যালয় লাগোয়া কংসাবতী নদী থেকে উদ্ধার হয় ওই দেহটি। নদীর অগভীর অংশে বস্তাবন্দী করে ফেলে রাখা দেহটি পাথর চাপা দেওয়া ছিল।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

ঘটনার কথা ছড়িয়ে পড়তেই চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে এলাকায়। পরে দাসপুর থানার পুলিশ খবর পেয়ে দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বুধবার সকালে নদী বাঁধ বরাবর রাস্তা দিয়ে সাইকেল চালিয়ে নিজের কাজে যাওয়ার পথে প্রথম দেহটি নজরে আসে এক ব্যক্তি। গ্রামের বিদ্যালয় ও শিব মন্দির সংলগ্ন এলাকায় ওই দেহটি আশপাশের লোকজনকে খবর দেন।

স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, জলের অগভীর স্বচ্ছ অংশে দেহটি দু’পাশ দিয়ে দুটি বস্তা দিয়ে মোড়া ছিল। মাঝের অংশ খুলে যাওয়ায় দেহটি স্পষ্ট দেখা যাচ্ছিল। মহিলার নিম্নাংশ উন্মুক্ত ছিল। বাসিন্দারা আরও জানিয়েছেন দেহটি বস্তায় ভরে পাথার চাপা দিয়ে জলে ডুবিয়ে রাখা ছিল। মহিলার হাতে শাঁখা পলা থাকায় বিবাহিতা বলেই মনে করা হচ্ছে। ঘটনার খবর পেয়েই দাসপুর থানার ওসি অমিত মুখার্জী বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন। বস্তাবন্দী দেহটি জল থেকে নদীর তুলে আনা হয়। বস্তা খুলতেই দেখা যায় এক মহিলার শ্বাসনালী কাটা। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান মহিলার বয়স ৩৫ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে।

জানা গেছে মহিলার পরনে শাড়ি থাকলেও তা অসংবৃত অবস্থায় ছিল। অবশ্য জলের ঢেউ লেগেও শাড়ি সরে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের দাবি এটি খুনের ঘটনা। পুলিশ আরও বলেছে আশেপাশের গ্রামগুলির কেউ যেহেতু মহিলাকে সনাক্ত করতে পারেনি তাই হতে পারে অন্যত্র খুন করে ওই মহিলার দেহ এই স্থানে নিয়ে এসে নদীতে ফেলা হয়েছে। আপাততঃ দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হচ্ছে ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে তবেই বলা যাবে মৃত্যুর আসল কারণ। পাশাপাশি আশেপাশের সমস্ত থানা ও সিভিক ভলান্টিয়ারদের খোঁজ নিতে বলা হচ্ছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news