Tuesday, April 16, 2024

Haldia Bus in Pond: যান্ত্রিক গোলযোগে চালকের নিয়ন্ত্রনহীন যাত্রী বোঝাই বাস পড়ল হলদিয়ায় পুকুরে! মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরলেন অফিসযাত্রী থেকে সাধারন মানুষ

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: বাস চলছে কিন্তু চালকের নিয়ন্ত্রণ নেই! বাসের যাত্রীরা দেখতে পাচ্ছেন চালক স্টিয়ারিং ঘোরাচ্ছেন বটে কিন্তু বাসের গতিমুখ বদলাচ্ছেনা। চালক প্রাণপনে ব্রেকে, ক্ল্যাচে পা রাখছেন কিন্তু বাস থামছেনা। বাস গড়াচ্ছে নিজের মত নিজের খুশিতে, আঁকাবাঁকা দুলতে দুলতে। মঙ্গলবার সাত সকালে এমনই ভয়াবহ অভিজ্ঞতার সাক্ষী হলেন অফিসযাত্রী, ব্যবসায়ী থেকে সাধারন মানুষ! রাস্তার পাশে সদ্য নির্মিত এক পূজা কমিটির ওভারগেটে ধাক্কা মেরে প্রায় ৫০ জন যাত্রীসহ সোজা পুকুরে ঢুকে গেল বাস। ঘটনায় আহত হয়েছেন নারী ও শিশু সহ বেশ কয়েকজন, সুখের কথা একটাই পূজোর মুখে কোনোও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি কিন্তু প্রায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসার এই ভয়াবহ হাড় হীম করা আতঙ্ক এই বাসযাত্রীদের তাড়া করে ফিরবে আজীবন। মৃত্যুর ঘটনা না ঘটলেও আহতদের কয়েক জনের ভালই আঘাত পেয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৫মহিলা ও ৪ শিশু রয়েছেন।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে ঘটনা সকাল আটটা কুড়ি নাগাদ। হলদিয়ার আপনজন সংবাদপত্রের চিত্র সাংবাদিক কমল বিষয়ী বলেছেন, “আমি সেই মাত্র চানে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছি, ঘড়িতে তখন আটটা বেজে উনিশ মিনিট হঠাৎই ঝপ করে একটা বড় শব্দ হল। কী হল বোঝার চেষ্টা করছি তার মধ্যেই প্রচুর মানুষের চিৎকার শুনে ছুটে বেরিয়ে আসি। দেখি একটা বাস পুকুরে মুখ থুবড়ে ডুবে রয়েছে যেন জল খেতে নেমেছে বাসটা।” জানা গেছে, দুর্ঘটনাগ্রস্ত বেসরকারি বাস হলদিয়ার টাউনশিপ থেকে বালুঘাটা ছুঁয়ে ব্রজলালচক হয়ে কুকড়াহাটি ফেরিঘাট যাচ্ছিল। বাসটি বালুঘাটাতে যাত্রী ওঠানামা করিয়ে রওনা দিয়েছিল কুকড়াহাটির দিকে।

সাধারণ মানুষ উদ্ধারে নেমেছেন

বালুঘাটা ছেড়ে বাসটি যখন এক কিলোমিটার দুরে চকদীপা স্কুলের কাছাকাছি ঘটে যান্ত্রিক গোলযোগ। চালকের নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে যায় বাসটি। হঠাৎই দুলতে শুরু করে বাসটি। ওই অবস্থায় রাস্তা ঘেঁষে থাকা স্থানীয় একটি পূজা কমিটির সদ্য নির্মিত ওভারগেটকে ধাক্কা মেরে নিয়ন্ত্রণ হারায় বাসটি তারপর সোজা ঢুকে যায় রাস্তার পাশের একটি পুকুরে। বাসটির চলকের কেবিন এবং বামপাশে যাত্রীদের বসার অংশটি জলের তলায় চলে যায়। পুকুরের জল স্বাভাবিকের তুলনায় কম থাকায় এবং বাসটি উল্টে গিয়ে পুরোপুরি নিমজ্জিত না হওয়ায় প্রাণহানীর ঘটনা থেকে রেহাই পান মানুষ।

ক্রেনের সাহায্যে তোলা হচ্ছে বাসটি

ঘটনার সাথে সাথেই পুকুরে ঝাঁপিয়ে পড়তে দেখা যায় এলাকার মানুষজনকে। দারুন দক্ষতায় বাসের জানলার কাঁচ ভেঙে শুরু উদ্ধার কার্য শুরু করেন তাঁরাই। খবর পেয়ে ছুটে আসে পুলিশ ও সিভিক ভলান্টিয়ার। প্রত্যেককে উদ্ধার করার পর একটি বড় ক্রেনবাহী ব্রেকডাউন গাড়ির সাহায্যে পুকুর থেকে তুলে আনা সম্ভব হয় বাসটি। ঘটনাটি ঘটেছে মানুষের কাজেকর্মে যাওয়ার সময়। যাত্রীদের কেউ যাচ্ছিলেন অফিসে আবার কেউ ব্যবসায়, কেউ সাধারন কাজে। ফলে বাসটির তিন চতুর্থাংশ ভর্তি ছিল। বাসের এক আহত যাত্রী রায়রায়চকের বাসিন্দা দুলাল পড়িয়া অভিযোগ, “বাসটি যথেষ্ট দ্রুতগতিতে ছিল এবং যাত্রী তোলা বা নামানোর ক্ষেত্রে খুবই তাড়াহুড়ো করছিল। যদি বাসটি মাঝারি গতিতে থাকত তবে যান্ত্রিক বিকলতা সত্ত্বেও পূজো কমিটির ওভারগেটে আটকে যেত কিন্ত গতি বেশি থাকায় সেটিতে ধাক্কা মেরেও পুকুরে গড়িয়ে যায় বাসটি।”

স্থানীয় মানুষজন জানিয়েছেন, ঘন্টা খানেক বাদে এই দুর্ঘটনা ঘটলে তার ফল মারাত্মক হতে পারত। তাঁদের মতে ঘটনাটি ঘটেছে চকদীপা উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের একেবারে গায়ে। আর কিছুক্ষন পরেই জায়গাটা ছাত্রছাত্রীদের ভিড়ে ভরে থাকত ফলে বড়সড় ক্ষতি হতে পারত। তাঁদের আরও অভিযোগ, স্কুলের মুখেই একটি স্পীড ব্রেকার ছিল যা রাস্তা সম্প্রসারনের জন্য কেটে ফেলা হয় কিন্তু কাজ শেষ হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও সেই স্পীড ব্রেকার তৈরি হয়নি। স্কুলে সহস্রাধিক পড়ুয়া। যে কোনও মুহূর্তে দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

- Advertisement -
Latest news
Related news