Monday, April 15, 2024

Ghatal: জেলা ছেড়ে অন্য জেলায় এসেও রেহাই নেই! নাবালিকার বিয়ে দিতে গিয়ে গ্রেফতার পুরোহিত, বরের সাজেই হাজতে পাত্রও

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ নিজের জেলা থেকে পালিয়ে অন্য জেলায় এসেও রক্ষা হলনা। এক নাবালিকার বিয়ে দেওয়ার অপরাধে বিয়ের আসর থেকেই পুলিশ তুলে এনে গ্রেফতার করল পাত্র এবং পুরোহিতকে। সোমবার রাতে পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল থানা এলাকার এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ালো এলাকায়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে ঘাটাল থানার ঘাটাল থানার অফিসার ইনচার্জ দেবাংশু ভৌমিকের কাছে বিশেষ সূত্রে খবর আসে যে তাঁরই থানা এলাকার মনসুকা গ্রাম পঞ্চায়েতের বরকতিপুর বাসিন্দা সুজিত মন্ডলের বাড়িতে এক নাবালিকা মেয়ের বিয়ে হচ্ছে। বিষয়টি সরে জমিনে খতিয়ে দেখতে সেখানে হানা দেয় পুলিশ। সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখে পুলিশ বুঝতে পারে ১৫ বছরের নাবালিকাকে বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এদিকে পুলিশ দেখেই রাতের অন্ধকারে দৌড়ে পালিয়ে যায় বিয়ের আসরে থাকা উপস্থিত সকলেই। যদিও পালাতে পারেনি ওই নাবালিকা কনে, বর সুরেন্দ্র দলুই এবং ব্রাহ্মণ স্বপন চক্রবর্তী। পুলিশ রাতেই তাদের আটক করে নিয়ে য়ায় ঘাটাল থানায়।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

খবর নিয়ে পুলিশ জানতে পারে ১৫ বছরের ওই নাবালিকাকে হুগলী জেলার খানাকুল থানার তাঁতিশাল গ্রামের বাসিন্দা, আর পাত্র ২৬ বছরের সুরেন্দ্র দলুই ওই হুগলী জেলারই একই থানা এলাকার পাঁচকুঠুরি গ্রামের বাসিন্দা। তাঁদের আশেপাশের প্রতিবেশীরা পাছে নাবালিকার বিয়ের খবর পুলিশকে জানিয়ে দেন সেই ভয়ে নিজের জেলা থেকে চলে এসে আত্মীয় বাড়ি ঘাটালের বরকতিপুর গ্রামের সুজিত মন্ডলের বাড়িতে রাতের অন্ধকারে নাবালিকার মেয়ের গোপনভাবে বিয়ের আসর বসিয়েছিলেন। যদিও শেষ রক্ষা হলনা। ঘাটাল পুলিশের তৎপরতায় পন্ড হল সেই বেআইনি বিয়ে।

মঙ্গলবার বিয়ের সাজেই বর আর কনে কে হাজির করা হয়েছে এমন খবর পেয়ে ঘাটাল আদালত চত্বরে ভিড় উপচে পড়ে। এদিন আদালতে বর কনের সঙ্গে বিচারকের সামনে হাজির করা হয় পুরোহিতকেও। পুলিশের খতিয়ান শোনার পর ঘাটাল মহকুমা আদালত পাত্র ও পুরোহিতের ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। নাবালিকা মেয়েকে পাঠানো হলো তার বাবা মায়ের কাছে। ঘাটাল থানার অফিসার ইনচার্জ দেবাংশ ভৌমিক জানান একাধিকবার নাবালিকা মেয়ের বিয়ে বন্ধের জন্য সচেতন মূলক প্রচার চালানো হয়েছে, কিন্তু সেই কথায় কর্ণপাত করেনি এই ব্যাক্তিরা। পরবর্তীকালে পুলিশ আরো কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেবে এই ধরনের অপরাধের ক্ষেত্রে।

 

- Advertisement -
Latest news
Related news