Saturday, April 20, 2024

Medinipore: বাপের বাড়ি মাংস খেতে যাওয়ায় বাধা! স্বামীর সঙ্গে বচসা, থামাতে গিয়ে ছিঁড়ল শ্বশুরের অন্ডকোষ! গ্রেফতার পুত্রবধূ

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ ফোন এসেছিল বাপের বাড়ি থেকে। খাসির মাংস রান্না হচ্ছে, মেয়ে যেন জামাই কে নিয়ে এসে খেয়ে যায়। স্বামী তখন বাজারে। স্ত্রী ফোন করে বিষয়টি জানায়। কিন্তু স্বামী বলে তিনি বাজার থেকেই মাংস কিনে যাবেন। স্বামী বাজার থেকে মাংস কিনেও আনেন কিন্তু সে মাংস ব্রয়লার! কোথায় ৭০০ টাকার খাসি আর কোথায় ১৮০ টাকা কেজি ব্রয়লার! দেখে তো অগ্নিশর্মা হয় ওই বধূ। শুরু হয় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে তীব্র বাদানুবাদ। দু’জনের চিল চিৎকারে পাড়া মাথায় ওঠে। এই লাগে সেই লাগে অবস্থা। শেষ অবধি না রক্তারক্তি কান্ড বেধে যায় তাই শ্বশুর যায় ছেলে- বউমার ঝগড়া থামাতে। কিন্তু তাতে হল হিতে বিপরীত। শ্বশুরের অন্ডকোষ ছিঁড়ে চলে এল পুত্রবধূর হাতে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ৭৫বছরের ওই বৃদ্ধ বর্তমানে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি। পুত্রবধূ গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

শনিবার এমনই কান্ড ঘটে গেল ওই জেলার ময়না
থানা এলাকায়। পুলিস জানিয়েছে, ধৃত বধূর নাম শিখা হাইত। শ্বশুরবাড়ি ময়না থানার নারকেলডাহা গ্রামে। বাপের বাড়ি ওই থানার বাকচা গ্রামে। ন’বছর আগে শিখার সঙ্গে বিশ্বজিৎ হাইতের তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে দাম্পত্য কলহ হত। শনিবার সকালে বিশ্বজিৎ বাজারে বের হন। স্বামীকে ফোন করে বাপের বাড়িতে যাওয়ার বায়না ধরে শিখা। কারণ হিসেবে বাপের বাড়িতে মাংস রান্না হবে বলে জানায়। তখন বিশ্বজিৎ বাড়িতে মাংস রান্নার পরামর্শ দেন। তিনি বাজার থেকে মাংস কিনে আনেন। বিশ্বজিৎ বাজার থেকে ফেরার সময় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ব্যাপক ঝামেলা বাধে। পরস্পরের মধ্যে গালিগালাজ হয় বলে অভিযোগ। শিখা বাড়িতে মাংস রান্না করবে না বলে জানায়। সেসময় বাড়িতে তার ৭৫ বছরে র বৃদ্ধ শ্বশুর ও ৬৫বছরের বৃদ্ধা শাশুড়ি ছিলেন। ছেলে-বউমার গণ্ডগোল থামাতে এগিয়ে আসেন বৃদ্ধ। তিনি বউমাকে থামতে বলেন। বউমা অগ্নিশর্মা হয়ে শ্বশুরের লুঙ্গি টেনে খুলে অন্ডকোষ ধরে জোরে টান দেয়। তাত অন্ডকোষ ছিঁড়ে যায়।

রক্তারক্তি অবস্থা দেখে শাশুড়ি কান্নাকাটি জুড়ে দেন। খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। বৃদ্ধকে গড়ময়না ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় সেখান থেকে তমলুক জেলা হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। রবিবার জখম ওই বৃদ্ধার স্ত্রী ময়না থানায় বউমার বিরুদ্ধে এফআইআর করেন। বউমার বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা রুজু হয়েছে। রবিবার অভিযোগ দায়ের হতেই পুলিস অভিযুক্ত বউমাকে গ্রেপ্তার করে। সোমবার ধৃতকে তমলুক সিজেএম কোর্টে তোলা হয়। এদিন ধৃতের ভাই ময়না থানায় এসেছিলেন। তিনি বলেন, আমার বোন এরকম এটা কাজ করবে ভাবিনি। পারিবারিক ঝামেলা থেকে মাথা গরম করে এটা করে ফেলেছে। ধৃতের শাশুড়ি বলেন, ছেলে-বউমার সঙ্গে বিবাদ মেটাতে চেয়েছিল আমার স্বামী। আর তাতেই বউমা মাথা গরম করে স্বামীর অন্ডকোষ ধরে ছিঁড়ে দিয়েছে। ওর উপযুক্ত শাস্তি হওয়া দরকার। ময়না থানার ওসি গোপাল পাঠক বলেন, শ্বশুরের অন্ডকোষ ছিঁড়ে দেওয়ার অভিযোগে বউমার বিরুদ্ধে আইপিসি ৩০৭ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news