Monday, May 20, 2024

Midnapore: পশ্চিম মেদিনীপুরে মদের ঠেক বন্ধ করার দাবি তুলে বিক্ষোভ ! প্রমীলা বাহিনীর নেতৃত্বে চলল পথ অবরোধ

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: রাজ্য সরকার যখন ‘দুয়ারে মদ’ বা মদের হোম ডেলিভারি কথার ভাবছে তখন এলাকায় মদ বিক্রির বিরুদ্ধে রাস্তায় নামলেন স্থানীয় জনতা যার নেতৃত্ব দিলেন মহিলারাই। এক হাতে পোস্টার আর অন্য হাতে বড় বড় বাঁশের লাঠি মহিলাদের পথ অবরোধে সামিল হতে দেখা যায়। পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর থানার কলমিজোড় গ্রামের ঘটনায় এই অবরোধ প্রত্যাহার করার জন্য রীতিমতো বেগ পেতে হয় পুলিশকে। ঘন্টার পর ঘন্টা অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে কলমিজোড় থেকে দাসপুর যাওয়ার রাস্তা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে শনিবার সকাল থেকেই কলমিজোড় গ্রামে পথ অবরোধের প্রস্তুতি নিয়েছিল। দিনের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গেই মহিলারা দলবদ্ধ হয়ে নেমে পড়েন রাস্তায়। তাঁরা জানিয়েছেন, কলমিজোড় ও তার সংলগ্ন গ্রামগুলিতে চোলাই মদের রমরমা কারবার চলছে। পুলিশ, আবগারি এবং স্থানীয় নেতা পঞ্চায়েত সমস্ত কিছু জানা স্বত্ত্বেও এই ঠেকগুলো বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়নি। মহিলারা অভিযোগ জানিয়েছেন, মাঝে মধ্যে আবগারি দপ্তরের লোকেরা এসে নাম দেখানো রেইড করে যায়। তারপর আবার বহাল তবিয়তে মদের ঠেক চলতে থাকে। এলাকায় যেমন চোলাই মদ তৈরি হয় তেমনই বাইরে থেকে চোলাই মদ আসে। তাঁদের আরও অভিযোগ মদের ঠেকে যেমন মদ বিক্রি হয় তেমনি বিভিন্ন দোকানেও লুকিয়ে চুরিয়ে মদ বিক্রি হচ্ছে। আর মদের নেশার জন্য সংসারে সংসারে অভাব আর নিত্য অশান্তি নেমে এসেছে।

মহিলারা জানিয়েছেন, মধ্যবিত্ত থেকে হতদরিদ্র পরিবারগুলিতে নিদারুণভাবে মদের নেশা ঢুকে গিয়েছে। যুবক থেকে বৃদ্ধ কেউই এই নেশার ছোবল থেকে বাদ নেই। অনেকেরই সারাদিনের উপার্জনের সিংহভাগ এই চোলাই মদের পেছনে খরচ হয়ে যাচ্ছে। আর যে কারনে সংসারে অভাব অনটনের পাশাপাশি বাড়ছে গার্হস্থ্য হিংসা, বধূ নির্যাতনের মত ঘটনাও। যারা উপার্জন করতে পারছেনা তারা বাড়ির ঘটি বাটি বিক্রি করে মদ খাচ্ছে। ক্রুদ্ধ প্রমীলা বাহিনী রাস্তা অবরোধ করে পরিস্কার জানিয়ে দেয় যতক্ষণ পর্যন্ত না পুলিশ এসে মদের ঠেক না ভেঙে মদ বিক্রেতাদের গ্রেফতার না করে ততক্ষণ অবরোধ চলবে। দাসপুর থানার পুলিশকর্মীরাও ঘেরাও হয়ে পড়েন।

উপস্থিত পুলিশ আধিকারিক দীর্ঘ আলোচনা করে প্রমীলাবাহিনী সহ স্থানীয় বাসিন্দাদের আশ্বস্ত করেন যে, সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখে অবৈধ মদের কারবারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মহিলারও অবরোধ তোলার আগে জানিয়ে দিয়েছেন, পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তোলা হলেও বিষয়টির ওপর নজরদারি করবেন তাঁরা। পুলিশ পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না নিলে এরপর সরাসরি মদের ঠেকে ঠেকে অভিযান চালাবেন তাঁরা। প্রয়োজনে মদের ঠেক গুঁড়িয়ে দেবেন তাঁরা।

- Advertisement -
Latest news
Related news