Saturday, April 20, 2024

CPM Netai: ফুলে ফুলে ফুল্লরা! মাওবাদী তৃণমূল জোটের মুখোশ খুলবেই, জেল থেকে বেরিয়েই জানালেন নেত্রী

- Advertisement -spot_imgspot_img
ফুলে ভাসলেন ফুল্লরা

নিজস্ব সংবাদদাতা: “জঙ্গলমহলে তিনশতাধিক মানুষকে খুন করেছিল যারা সেই ছত্রধর মাহাত থেকে শুরু করে ছোট বড় সমস্ত মাওবাদীরাই আজ তৃণমূল। সুতারং বুঝতে কষ্ট হয়না যে কাদের দ্বারা জঙ্গলমহলে মাওবাদীরা পুষ্ট হয়েছিল। যে সব পরিবারের মানুষ খুন হয়েছিলেন তাঁরা এখন বিচার পাননি অথচ খুনীদের সুপারি দিয়েছিল যারা তারা এখন ক্ষমতায় বসে লুটেপুটে খাচ্ছে। ফুল্লরা মন্ডলদের জেলে ভরে রাখতে হয়েছিল যাতে না সেই লুটপাটে বাধা না পড়ে। ফুল্লরা মন্ডলকে ওদের এতই ভয় যে, গত ৮ বছর প্যারোলেও মুক্তি দেওয়া হয়নি। ওঁর মা মারা গেছেন, ভাই মারা গেছেন তাঁদের সৎকার কার্যেও প্যারোল দিতে ভয় পেয়েছে এই সরকার। অথচ ওদের চোর ছ্যাঁচোড় নেতারাও প্যারোল পায়। এখানেই ফুল্লরা মন্ডলের জোর আর সেই জোর নিয়েই ফুল্লরা মন্ডল আবার লড়াইয়ে নামবেন।” ফুল্লরা মন্ডলের মুক্তি প্রসঙ্গে ‘KGP বাংলা’কে এমনটাই জানালেন সিপিএমের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সম্পাদক সুশান্ত ঘোষ।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
কান্নায় কমরেড

উল্লেখ্য শুক্রবার মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে বেরিয়ে এলেন পশ্চিম বঙ্গ গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতির অবিভক্ত পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার প্রাক্তন জেলা সম্পাদিকা ফুল্লরা মন্ডল। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পরিষদের এই প্রাক্তন কর্মাধ্যক্ষকে দু’দিন আগেই জামিনে মুক্তি দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। জেল থেকে বেরুনোর পর তাঁকে শুভেচ্ছা জানাতে হাজির হয়েছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সিপিএম সম্পাদক।

সুশান্ত ঘোষের সাথে

উল্লেখ্য২০১১ সালের ৭ই জানুয়ারি সাবেক পশ্চিম মেদিনীপুরের লালগড় থানার নেতাই গ্রামে গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারান ৯ জন। অভিযোগ সিপিএম আশ্রিত হার্মাদ বাহিনীর হাতে প্রাণ হারান তাঁরা। সিপিএম এ বিষয়ে সরাসরি কোনও কথা না বললেও তাদের বক্তব্য ছিল গ্রামবাসীদের ফাঁদে ফেলে এই ঘটনা ঘটিয়েছে মাওবাদীরাই। মাওবাদীদের প্রতিরোধ করতে ওই গ্রামে সিপিএমের একটি সশস্ত্র ক্যাম্প তৈরি হয়েছিল যাকে আক্রমন করার উদ্দেশ্য নিয়েই মাওবাদীরা গ্রামবাসীদের ঢাল করেছিল। এই লড়াইয়ের মাঝখানে পড়ে মৃত্যু হয় ৯ জনের। এরপরই তৃণমূলের তরফে সিপিএমের বাছাই করা লালগড় নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় অভিযুক্ত করা হয় ৫৬ বছর বয়সী ফুল্লরা মন্ডলকেও।

শুক্রবার ফুল্লরা মন্ডলকে জেলের বাইরে সম্বর্ধনা দিতে সুশান্ত ঘোষের পাশাপাশি জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য বিজয় পাল, জেলার প্রাক্তন নেত্রী রুবি রায় সহ অসংখ্য নেতা কর্মীরা হাজির হয়েছিলেন। আবেগ দীপ্ত সেই সব নেতা কর্মীদের দেখে চোখের জল আটকে রাখতে পারেননি ৮ বছর জেলে থাকা ওই নেত্রী। হাপুস নয়নে কাঁদতে দেখা গেছে নেতা কর্মীদের। গলা বুঝে এসেছে সিপিএম জেলা সম্পাদকের ও। মিছিল করে শ্লোগান দিয়ে তাঁরা ফুল্লরা মন্ডলকে নিয়ে এসেছেন জেল চত্বরের বাইরে।

লাল সেলাম

ফুলে ফুলে ভরিয়ে দিয়েছেন ফুল্লরা মন্ডলকে। পার্টি সূত্রে জানানো হয়েছে কোর্টের নির্দেশ মোতাবেক পশ্চিম মেদিনীপুরে থাকতে পারবেননা তিনি। তাই তাঁকে নিয়ে কর্মীরা রওনা হয়েছেন ঝাড়গ্রামের পথে। যাওয়ার আগে ফুল্লরা মন্ডল বলেছেন, “এক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি আমি। এই ষড়যন্ত্রের জাল ছিঁড়বেই।”

- Advertisement -
Latest news
Related news