Sunday, April 14, 2024

Anubrata Mondal-CPM: পুজোর আগেই চড়াম চড়াম! অকাল বোধনের ঢাক বাজল পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামে! মুখোশি অনুব্রতকে কোমরে দড়ি বেঁধে হাঁটালো বামেরা

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: শুধু পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ৩৭টি জায়গায় চড়াম চড়াম করে ঢাক বাজল। সঙ্গে উৎফুল্ল বাম সমর্থকদের শ্লোগান, “ধরা পড়েছে চুনাপুঁটি, বেশী খেয়েছে হাওয়াই চটি।” মাস দুয়েকের দেড়েকের মধ্যেই দুর্গা পূজা, বাঙালির শারদীয় উৎসব। তার আগেই অকাল বোধনের বাজনা শুনলেন ঘাটাল, দাসপুর, সোনাখালি, কলোড়া, গোপীগঞ্জ, ডেবরা, বালিচক, সবং, মোহাড়, তেমাথানি, জলচক, পিংলা, শালবনী, চন্দ্রকোনারোড, গড়বেতা, ক্ষীরপাই, রামজীবনপুর, নারায়মগড়, বেলদা, ধনেশ্বরপুর, জাহালদা, গোয়ালতোড়, পীড়াকাটা, রাধামোহনপুর, মাদপুর, গোপীনাথপুর প্রভৃতি এলাকার বাসিন্দারা। সঙ্গে বিতরণ করা হল গুড় বাতাসা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

উল্লেখ্য সকালেই বাড়ি থেকে গ্রেফতার হয়েছেন অনুব্রত মন্ডল। গরু পাচার কান্ডে গ্রেফতার হয়েছেন তিনি। কিন্তু বিরোধীদের অভিযোগ শুধুই গরু পাচার নয় সঙ্গে কয়লা পাচার, বীরভূম জেলা জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মোরাম, বালি, পাথর খাদান থেকে তোলা আসত তাঁর কাছে। ক্রাশার মালিক এবং পাথরের চিপস বয়ে নিয়ে যাওয়া লরি, ডাম্পার, ট্রাক, ট্রাক্টার পিছু তোলা আসত তাঁরই হেফাজতে। তিনি সাংবাদিকদের হুমকি দিতেন তাঁদের ওপর দিয়ে ট্রাক চলে পারে, পুলিশকে হুমকি দিতেন বোমা মারার, আর বিরোধীরা নির্বাচনে নমিনেশন দিতে গিয়ে ব্যাপক মার খেতেন। এ হেন মানুষের গ্রেফতারের খবর পেয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো উল্লাসে ফেটে পড়েছে। তারই বহিঃপ্রকাশ দেখা গেল রাজ্যের বিভিন্ন জেলার সাথে পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামেও।

কোথাও লালপতাকা নিয়ে সিপিএম আবার কোথাও সাদা পতাকা হাতে নিয়ে ছাত্রযুবরা রীতিমতো সুসজ্জিত মিছিল করল দুই জেলা জুড়ে। এদিন মেদিনীপুর জেলা শহরে এস এফ আই ও ডি ওয়াই এফ আই এর ঢোল পিটিয়ে গুড় বাতাসা বিলি করে বিক্ষোভ মিছিল হয়। দাবী ওঠে,’ সেটিং করে চুনো পুঁটি নয় কালীঘাট থেকে নবান্ন কোটি কোটি টাকা খাওয়াদেরও ধরতে হবে। এদিনই ঝাড়গ্রাম শহর সহ বনাঞ্চলের মানুষও মেতে উঠলেন বিসর্জন বাজনা বাজিয়ে। গরু চোর কয়লা চোর এর এবার জেলে। মাথা কে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করার দাবী। এই চোর জুয়োচ্চোর জালিয়াতির সরকার আর নেই দরকার। গরীব মারা সরকার, ফড়েদের দালাল সরকার, বনভূমি ও জলাভূমি র অধিকার কেড়ে নেওয়া সরকার আর নেই দরকার। জঙ্গলমহলে ৩৭২ জন কৃষক ক্ষেতমজুর গরীব মানুষের রক্তের হোলি খেলে ক্ষমতায় এসে লুঠ করেছো কোটি কোটি, চাকরি বিক্রির জালিয়াতি করে স্বপ্ন কেড়ে নিয়েছো হাজার হাজার যুবকের। এই ঠকবাজ সরকার আর নেই দরকার শ্লোগান তুলে ঝাড়গ্রাম শহর সহ শিলদা, গোপীবল্লবপুর, জাম্বনীতেও বিসর্জনের বাজনা বাজিয়ে হলো উত্তাল বিক্ষোভ মিছিল।

- Advertisement -
Latest news
Related news