Tuesday, April 16, 2024

Lockdown Effect? আ্যডভেঞ্চার নাকি অন্যকিছু? ডেবরার হোস্টেল থেকে নিখোঁজ দুই পড়ুয়া! উদ্বেগে স্কুল কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকরা

- Advertisement -spot_imgspot_img
গোপীনাথ কুইলা

নিজস্ব সংবাদদাতা: পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা থানা এলাকার আলোক কেন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র আবাসন থেকে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া দুই নবমশ্রেণীর পড়ুয়াকে নিয়ে উদ্বেগ ছড়িয়েছে হোস্টেল কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকদের মধ্যে। জানা গেছে বুধবার বিকালে জামা কাপড় সেলাই করার নামে ওই দুই পড়ুয়া বেরিয়ে গেছিলেন স্থানীয় আলোককেন্দ্র বাসস্ট্যান্ড এলাকার বাজারে তারপর আর তাদের আর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। স্কুল এবং হোস্টেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন ওই দুই ছাত্রের নাম গোপীনাথ কুইলা ও বিদ্যুৎ মন্ডল। গোপীনাথের বাড়ি ডেবরা থানারই ডুঁয়া অঞ্চলে এবং বিদ্যুৎ কেশপুর এলাকার আনন্দপুরের বাসিন্দা। দুজনে একই রুমে থাকত। মঙ্গলবার দুজনেই বাড়ি থেকে হোস্টেলে এসেছিল। অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলার পর পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন স্কুল এবং হোস্টেল কর্তৃপক্ষ। এক শিক্ষক জানিয়েছেন, লকডাউনের পর থেকেই পড়ুয়াদের মানসিকতায় এক অদ্ভুত পরিবর্তন দেখা দিয়েছে। পড়াশুনায় মনোযোগ হারিয়ে ফেলছে একটা বড় অংশই।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
বিদ্যুৎ মন্ডল

আলোককেন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের হোস্টেল সুপার তথা শিক্ষক তাপস কুমার ভূঁইয়া জানিয়েছেন, ” বুধবার নিয়ম অনুযায়ী আমাদের আবাসিক ছাত্রদের বাজারে যাওয়ার দিন। বিভিন্ন প্রয়োজনে তারা বাজারে যায়। সঙ্গে শিক্ষকরাও থাকেন। ওই দুই ছাত্র নিজেদের জামা-কাপড় সেলাই করার জন্য বেরিয়েছিল কিন্তু সামনের দোকানটি বন্ধ থাকায় ওরা আলোককেন্দ্র বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বাজারে যায় অন্য একজনের সাইকেল নিয়ে। বিকাল সাড়ে চারটা নাগাদ ওরা হোস্টেল ছেড়েছিল। এরপর সন্ধ্যার প্রার্থনার সময় দেখা যায় ওরা নেই। সাথে সাথেই খোঁজ শুরু হয়। দুই ছাত্রের বাড়িতেও ফোন করা হয় কিন্তু জানা যায় বাড়ি যায়নি তারা।” ভূঁইয়া আরও জানান, ‘হোস্টেলের কারও সঙ্গেই ওদের ঝগড়া হয়নি, মারামারি হয়নি। শিক্ষকরাও ওদের কিছু বলেনি। এরপরও ওরা কেন পালালো সেটাই বুঝতে পারছিনা।’

খবর পেয়েই ছুটে এসেছেন ডুঁয়ার পপন এলাকার নিখোঁজ ছাত্র গোপীনাথের মা দ্বীপ্তি কুইলা। তিনি বলেছেন, ‘বাড়িতে কোনও গন্ডগোল হয়নি। গ্রামের একটি পূজা উপলক্ষ্যে বাড়ি গিয়েছিল গোপীনাথ এবং মঙ্গলবার বিকালেই আমরা তাকে হোস্টেলে ছেড়ে দিয়ে গেছি। এরপর হোস্টেলে কিছু হয়েছে কীনা আমরা বুঝতে পারছিনা।’ গোপীনাথের এক আত্মীয় জানাচ্ছেন, ওরা যে সাইকেলে করে আলোককেন্দ্র বাজারে গিয়েছিল সেই সাইকেলটি বাজারেই ছিল। আমরা জানতে পেরেছি ওই দুজন বিকাল সাড়ে পাঁচটার পর একটা বাস ধরে ডেবরার দিকে গিয়েছিল। কিন্তু ডেবরা থেকে কোথায় গেছে তার হদিস পাওয়া যাচ্ছেনা। হোস্টেল সুপার ভূঁইয়া বলছেন, ‘লকডাউনের পর থেকেই পড়ুয়াদের মধ্যে একটা অদ্ভুত পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে যারমধ্যে যেটা প্রকট হয়ে উঠছে তা হল অনেকেরই পড়ার অভ্যাসটাই নষ্ট হয়ে গেছে। খুবই চঞ্চলতা, পড়াশুনায় অনাগ্রহ গ্রাস করেছে। সেই প্রবণতা থেকেই হোস্টেলের বদ্ধজীবন কাটাতে এটা করল কী না বুঝতে পারছিনা।’

আলোককেন্দ্র হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক নিখিল মন্ডল জানিয়েছেন, ‘ প্রায় ৬০০ ছাত্রছাত্রী থাকে আমাদের দুটি হোস্টেলে কিন্তু কোনও দিন এমন ঘটনা ঘটেনি। খুবই উদ্বেগের মধ্যে রয়েছি আমরা। পুলিশের সাথেও যোগাযোগ করেছি আমরা। সর্বস্তরের মানুষের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, যদি কেউ ছেলেদুটির খবর পান আমাদের বা ডেবরা থানায় জানান। ছেলেরা যেখানেই থাকুক যেন সুস্থভাবে ফিরে আসে শুধু এই কামনাই করছি।’

- Advertisement -
Latest news
Related news