Saturday, April 20, 2024

Roddur Roy: লাগাতার মুখ্যমন্ত্রীকে অবমাননা, অশ্লীল আক্রমন! গোয়া থেকে গ্রেফতার রোদ্দুর রায়

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: অবশেষে গ্রেফতার হলেন রোদ্দুর রায় (Roddur Roy)। মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে গোয়া থেকে গ্রেফতার করেছে কলকাতা পুলিশ (Kolkata Police)। এখন থেকে প্রায় বছর দুয়েক আগে রবীন্দ্রনাথের ‘চাঁদ উঠেছিল গগনে” প্যারোডির নামে অশ্লীল নোংরামির অভিযোগ উঠেছিল এই রোদ্দুর রায়ের নামে। সেই সময় উঠে আসে এই রোদ্দুর রায় নামটি। এরপর সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলা আকাদেমী পুরস্কার পাওয়া থেকে শুরু করে সম্প্রতি নজরুল মঞ্চে প্রখ্যাত গায়ক কে.কের মৃত্যুর পর ধারাবাহিক মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষোদগার করে আসছিলেন তিনি কিন্তু তার চেয়েও বড় কথা তাঁর অশ্লীল, ছাপার অযোগ্য অকথ্য ভাষার ব্যবহার সহ‍্যসীমা অতিক্রম করেছিল অনেকেরই। ফেসবুক লাইভে(Facebook live) এসে মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে গালিগালাজ করার অভিযোগ ওঠে রোদ্দুর রায়ের বিরুদ্ধে। পাটুলি থানা সহ একাধিক থানায় রোদ্দুর রায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা পড়েছিল। তার বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় রুজু করা হয়েছিল একাধিক মামলা। জানা গেছে সেই মামলার তদন্তে নেমেই গ্রেফতার করা হল রোদ্দুর রায়কে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহের মঙ্গলবার কলকাতার নজরুল মঞ্চে এক অনুষ্ঠানের পর আচমকাই প্রয়াত হন বলিউডের গায়ক কেকে। মাত্র ৫৪ বছর বয়সে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর। কিন্তু তাঁর এই মৃত্যু ঘিরে রয়েছে নানা বিতর্ক। একদিকে রয়েছে নানা গাফিলতির অভিযোগ, অন্যদিকে চলছে রাজনৈতিক তরজা। নজরুল মঞ্চে দর্শক আসনের থেকে বেশি সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতি, এসি না চলা, স্টেজে ভিড় করা সহ একাধিক প্রসঙ্গ উঠে এসেছে এই ঘটনায়। কেকের মৃত্যু প্রসঙ্গেই একটি ফেসবুর লাইভ করে রোদ্দুর রায়। ফেসবুক লাইভে এসে রূপঙ্কর বাগচীর মন্তব্য থেকে শুরু করে সেদিন নজরুল মঞ্চে উপস্থিত থাকা তৃণমূল নেতা মদন মিত্রকেও অশালীন ভাষায় আক্রমণ করে রোদ্দুর রায়। এখানেই সে থেমে থাকেনি। এরপরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না নিয়ে তাঁকে দিদি সম্বোধন করেই একের পর এক কুরুচিকর মন্তব্য করতে থাকে রোদ্দুর রায়। শুধুমাত্র নজরুল মঞ্চের ঘটনাই নয়, মমতার প্রশাসনিক বৈঠক নিয়েও প্রশ্ন তোলে সে। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি, দুর্নীতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দাগে রোদ্দুর রায়। অশ্লীল গালিগালাজ করতে পিছপা হয়নি রোদ্দুর রায়। এরপরই তার নামে একাধিক অভিযোগ জমা পড়ে ও তার জেরেই রুজু হয় একাধিক মামলা।

কে এই রোদ্দুর রায়? জানা গেছে রোদ্দুর রায় তাঁর ছদ্মনাম। তাঁর আসল নাম অনির্বান রায়। দিল্লি নিবাসী রোদ্দুর আইটি কর্মী। নিজেকে মোকসা বলেন তিনি। একাধারে তিনি ইউটিউবার, কবি, লেখক, গায়ক। তাঁর আপাত অশ্রাব্য গান, ইউকেলেল বাজানোর ভঙ্গিমা, সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভে গঞ্জিকা সেবন দেখে অনেকেই তাঁকে নিয়ে বিরক্ত কিন্তু তা সত্ত্বেও সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর ভক্তসংখ্যা অগুনতি। জানা যায় যে, পূর্ব মেদিনীপুরের দেপালে রামনগর কলেজ থেকে স্নাতক হন তিনি। এরপর নানা দেশি ও বিদেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে তিনি একাধিক ডিগ্রি অর্জন করেছেন। বেশ কিছু  প্রচলিত জনপ্রিয় গানের কথা পালটে বিতর্কিত শব্দগুচ্ছ জুড়ে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন তিনি। তাঁর প্রোফাইলে প্রকাশিত তথ্য বলছে, গত দুই দশক ধরে বিভিন্ন শিল্প মাধ্যমে সাররিয়্যাল ও পোস্ট মডার্নিস্ট ভাবধারার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছেন রোদ্দুর। এছাড়াও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবসায় গবেষণা ও প্রক্রিয়াকরণ পদ্ধতির সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন তিনি।

একদলের মতে কলকাতার লিটল ম্যাগাজিন আন্দোলনের পরিচিত একটি মুখ রোদ্দুর রায়। তাঁর লেখা বই And Stella Turns a Mom বইয়ে ‘মক্সিজম’ তত্ত্বের অনুসন্ধান করেছেন রোদ্দুর রায়। মুক্তি, প্রেম ও শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে এই তত্ত্বের জন্ম দিয়েছেন তিনি। তাঁর উপন্যাসের কেন্দ্রীয় নারী চরিত্রটি একঘেয়ে কর্পোরেট আবহ থেকে কী ভাবে মহাজাগতিক সত্য উদঘাটনে সফল হবে,সেই যাত্রার কথাই বলা হয়েছে বইটিতে। কবিতাও লেখেন রোদ্দুর রায়। তবে তাঁর গানের মতোই কবিতার নাম দেখেও চোখ কপালে উঠেছিল কবিতাপ্রেমীদের। নিজেকে ‘বিশ্যোকোবি’ বলে দাবি করে থাকেন তিনি। রবীন্দ্র সঙ্গীতে অশ্লীল শব্দ জুড়ে তিনি খবরে এসেছিলেন কিন্তু এরপর ২০২০ সালে রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর গানের কলি পিঠে লিখে বসন্ত উৎসবে অংশগ্রহণ করার ফলে কয়েক জন পড়ুয়ার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয় এবং পরবর্তীতে তাঁদের আটক করা হয়। সাম্প্রতিক অতীতের নানান সমস্যা যেমন CAA, NRC এমন নানান বিষয়ে ফেসবুকে একসময় নিজের বক্তব্য রেখেছিলেন রোদ্দুর রায়। যদিও সেই সময়ই রোদ্দুরের গ্রেফতার হওয়া উচিৎ ছিল বলে অনেকেই মনে করে থাকেন। অনেকেরই মতে রোদ্দুর রায় যে প্রশ্নগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় উত্থাপন করে থাকেন তার অনেকটাই হয়ত যুক্তিযুক্ত। মুখ্যমন্ত্রীর পুরস্কার প্ৰাপ্তি থেকে শুরু করে কে.কের মৃত্যু নিয়ে তো অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন কিন্তু যে ভাষা রোদ্দুর রায় ব্যবহার করে থাকেন তা সভ্য সমাজের হতে পারেনা। গোয়ার নিকটবর্তী আদালতের অনুমতি নিয়ে তাঁকে ট্রানজিট রিমান্ড নিয়ে কলকাতায় আনতে চলেছে পুলিশ।

- Advertisement -
Latest news
Related news