Friday, April 19, 2024

Partha Arpita ED: অর্পিতার অন্য ফ্ল্যাট থেকে দ্বিতীয় রাউন্ড গণনার শেষে বাজেয়াপ্ত ২০কোটি! উদ্ধার ৩ কেজির সোনার বাট, ২৪কোটি মূল্যের জমির দলিল

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: দক্ষিণ কলকাতার আবাসনকে টপকে যাচ্ছে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বেলঘরিয়ার রথতলায় অভিজাত ফ্ল্যাট। মাত্র ২রাউন্ড গণনার শেষে এখনও পর্যন্ত ২০ কোটি টাকা গোনা সম্ভব হয়েছে। উদ্ধার হয়েছে প্রচুর সোনার বাট এবং রুপোর কয়েন। এছাড়াও উদ্ধার হয়েছে একাধিক জমির দলিল যার মধ্যে একটি দলিল মিলেছে যে সম্পত্তির বাজার মূল্য ২৪ কোটি।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সংবাদসূত্রে জানা গেছে বুধবার সন্ধ্যা থেকে চারটি নোট গোনার যন্ত্র দিয়ে শুরু হয়েছে টাকা গোনার কাজ। প্রথম রাউন্ডে ১৫ কোটি টাকা গোনা সম্ভব হয়। তার কিছু ক্ষণের মধ্যেই আরও ৫ কোটি টাকা গোনা হয় বলে খবর পাওয়া যায়। সবমিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ২০ কোটি টাকা গোনা সম্ভব হয়েছে। এছাড়াও পাওয়া গিয়েছে প্রচুর সোনার বাট। যার বাজারমূল্য কয়েক কোটি টাকা হতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে। উদ্ধার হয়েছে রৌপ্যমুদ্রাও। বেশ কিছু দলিলও পাওয়া গিয়েছে বলে ইডি সূত্রে খবর। অন্যদিকে টাকা গুনতে এদিনও রাত পেরিয়ে যেতে পারে বলে মনে করছে ইডি। আর সব মিলিয়ে যেটা দাঁড়াচ্ছে গত শনিবারের চেয়ে বুধবারে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া সম্পত্তির পরিমান অনেকগুন ছাড়িয়ে যেতে চলেছে।

উল্লেখ্য বুধবার সন্ধ্যা বেলাতেই জানা যায় যে, পার্থের ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ন’তলার ফ্ল্যাটে মিলেছে আরও টাকার হদিস মিলেছে। তারপরই সেই টাকা গোনার জন্য স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে মেশিন আসেন ব্যাঙ্ককর্মীরা। মোট ৪টি জাম্বো মেশিন আনা হয় টাকা গোনার জন্য। এই যন্ত্রগুলি অত্যাধুনিক যাদের ‘কারেন্সি কাউন্টিং মেশিন’ বলা হয়ে থাকে। এই মেশিন দিয়ে প্রতি পাঁচ সেকেন্ডে ১০০টি নোট পর্যন্ত গোনা সম্ভব। সাধারণত কারেন্সি চেস্টে বড় অঙ্কের টাকা গুনতে এই ধরনের যন্ত্র ব্যবহার করা হয়। আর এর থেকেই মনে করা হচ্ছে, টালিগঞ্জের পর বেলঘরিয়ায় অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকেও বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধার করতে চলেছে ইডি। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতভর গোনার পর শনিবার সকালে টালিগঞ্জের একটি অভিজাত আবাসনে অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে নগদ ২১ কোটি ৯০লক্ষ টাকা ও গয়না, বিদেশি মুদ্রা উদ্ধার করে ইডি। তার পর জানা যায়, বেলঘরিয়াতেও ফ্ল্যাট রয়েছে পার্থ-ঘনিষ্ঠের। বুধবার সকালে সেখানেই অভিযান চালায় ইডি। এখানে এসে হতবাক হয়ে যান ইডির আধিকারিকরা। তাঁরা দেখেন টালিগঞ্জকেও ছাড়িয়ে যাচ্ছে বেলঘরিয়া।

- Advertisement -
Latest news
Related news