Wednesday, May 22, 2024

Kharagpur BJP Clash: খড়গপুর পুরভোটের আগে ফের জমজমাট বিজেপির গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব! শহর ছেয়ে যাওয়া পোস্টার থেকে দীলিপ অনুগামীরা ছেঁটেই ফেলল বিধায়ক হিরণকে

Saturday at various places in Kharagpur city In particular, several posters and hoardings have been put up along the road to Dilip Ghosh's office in Railway Colony. Ghosh has been reinstated as the party's all-India vice-president after losing the post of BJP state president. And that's why these posters and hoardings congratulate him. Along with Dilip Ghosh on the poster and hoarding are pictures of newly elected BJP state president Sukant Majumder, Leader of Opposition in the Assembly Shuvendu Adhikari and other leaders. But there is no picture of diamond anywhere. Congratulating Dilip Ghosh, those who handed over the posters are known in the area as followers of the BJP's all-India co-president. The BJP's star MLA expressed his anger after learning about the incident in a normal way. Pierced part of the team. Hiran Chattopadhyay, BJP MLA from Kharagpur Sadar said sarcastically, how many people have put up hoardings? They will not win by voting.

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খড়গপুরের বিজেপি বিধায়ক (MLA)হিরণ চট্টোপাধ্যায় (Hiran Chatterjee) বনাম বিজেপি (BJP)সাংসদ (MP) দীলিপ ঘোষ (Dilip Ghosh) অনুগামীদের হাতাহাতি গড়িয়েছিল থানা অবধি। দিলীপ ঘোষের অনুগামী এক মন্ডল সভাপতির বিরুদ্ধে খড়গপুর টাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন হিরণ অনুগামীরা।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
No Hiran

শনিবার তারই প্রতিশোধ নিলেন দীলিপ অনুগামীরা। দলীয় পোষ্টার থেকে ছেঁটেই ফেললেন দলেরই বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের নাম। আর তাই নিয়ে সরগরম বিজেপির গোষ্ঠী রাজনীতি।

শনিবার খড়গপুর শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিশেষ করে রেলকলোনীর দিলীপ ঘোষের কার্যালয়ের রাস্তা জুড়ে লাগানো হয়েছে বেশকিছু পোষ্টার এবং হোর্ডিং। বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদ খোয়ানোর পর ঘোষকে পুনর্বাসিত করা হয়েছে দলের সর্বভারতীয় সহসভাপতি পদে। আর সেই কারণেই তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে এই পোষ্টার এবং হোর্ডিং। সেই পোষ্টার আর হোর্ডিংয়ে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে রয়েছে বিজেপির সদ্য নির্বাচিত রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী সহ বিভিন্ন নেতার ছবি। কিন্তু কোথাও নেই হিরণের ছবি।

দিলীপ ঘোষকে অভিনন্দন জানিয়ে, যাঁরা পোস্টার দিয়েছেন, তাঁরা বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতির অনুগামী হিসেবেই এলাকায় পরিচিত। স্বাভাবিক ভাবেই ঘটনা জানার পরই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন বিজেপির তারকা বিধায়ক। বিঁধেছেন দলেরই একাংশকে। কটাক্ষ করে খড়গপুর সদরের বিজেপি বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, যাঁরা হোর্ডিং লাগিয়েছেন কজন আছেন তাঁরা? তাঁরা তো ভোট দিয়ে জেতাবেন না। ওই চার পাঁচজন যে হোর্ডিংয়ে থাকলেন তাঁরা তো বোর্ড গড়বেন না। বোর্ড গড়বে আমার সঙ্গে থাকা এই সাধারণ জনতা। আমি নিজেও কাজ করে কোথাও আমার ছবি টাঙাইনি।

বিজেপি রাজ্য সভাপতি  সুকান্ত মজুমদার অবশ্য বলেছেন, পার্টির ব্যানার পোষ্টারে বিধায়কের ছবি থাকবেনা এটা হতেই পারেনা। আমি এখনও পর্যন্ত লিখিত  কোনও অভিযোগ পাইনি। পেলে ব্যবস্থা হবে। পার্টির কোনও পোস্টারে বিধায়কের ছবি নেই এই ঘটনা ঘটেনি। অন্য কোনও পোস্টারে থাকতে পারে। পার্টির পোস্টারে থাকতেই হবে। সব কিছু মিলিয়ে পুরভোটের আগে খড়গপুরে জমে উঠেছে বিজেপির গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব আর বলাবাহুল্য ভোটের সময় আরও জোরালো হতে চলেছে তা।

বিধানসভা নির্বাচনের স্বপ্নভঙ্গের পর বাস্তব ঘটনা এটাই যে বিজেপির রেজিমেন্টাল চরিত্র ধ্বস নেমে এখন তা বিজেপিরই নিয়ন্ত্রণের বাইরে। ইতিমধ্যেই একটি বিশেষ সূত্রে জানা গেছে রাজ্য কমিটি হস্তক্ষেপ না করলে, ওই পোষ্টার ব্যানারে হিরণের ছবি না জুড়লে দিলীপ ঘোষকে বাদ দিয়ে হিরণের ছবি দিয়ে আলাদা পোষ্টার লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁর অনুগামীরা।

- Advertisement -
Latest news
Related news