Friday, April 19, 2024

IIT Kharagpur: ৩ দশক পেরিয়ে স্মৃতি ফেরালো আইআইটি খড়গপুর! বিনোদে মুগ্ধ ধনকড়

Almost 3 decades! IIT Kharagpur started the unconventional path in 1993 with his hand. The country's oldest IIT was the first business management school to break the tradition of technical and technological universities. In the world of management now known as VGsom or Vinod Gupta School Of Management. Binod Gupta donated 2 million Us Doller to his former educational institution in that market to start this school. The purpose is to build the world's best management school as an alternative to the US School of Management at Massachusetts Institute of Technology (MIT) and the best business management school in the East. In 1994, IIT Kharagpur started the construction of a unique architectural building for the school. On that day, the then President of India Shankar Dayal Sharma came to lay the foundation stone of that institution. March 27, 2022, that history seems to be back once again at IIT Kharagpur. On this day, IIT conferred the degree of Doctor of Science on Binod Gupta.

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: প্রায় ৩ দশক! ১৯৯৩ সালে তাঁরই হাত ধরে আইআইটি খড়গপুর শুরু করেছিল অচিরাচরিত পথের যাত্রা। কারিগরি ও প্রযুক্তির বিশ্ববিদ্যালয় প্রথা ভেঙে প্রথম বাণিজ্য পরিচালনা বা বিজনেস ম্যানেজমেন্ট স্কুল চালু করেছিল দেশের প্রাচীন আইআইটি। সারা বিশ্বের ম্যানেজমেন্ট দুনিয়ায় এখন যা পরিচিত VGsom বা Vinod Gupta School Of Management নামে। এই স্কুলটি চালু করতে সেই বাজারে নিজের প্রাক্তন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে ২মিলিয়ন ডলার তুলে দিয়েছিলেন বিনোদ গুপ্তা। উদ্দেশ্য বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ট ম্যানেজমেন্ট স্কুল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের School of Management at Massachusetts Institute of Technology (MIT) র বিকল্প হিসেবে গড়ে উঠবে এবং প্রাচ্যের সেরা বিজনেস ম্যানেজমেন্ট স্কুল হিসেবে গড়ে উঠবে। ১৯৯৪ সালে ওই স্কুলটির জন্য একটি অনুপম স্থাপত্যবাহী ভবন গড়ে তোলার কাজ শুরু করেছিল আইআইটি খড়গপুর। সেদিন সেই প্রতিষ্ঠানটির শিল্যান্যাস করতে এসেছিলেন ভারতের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শংকর দয়াল শর্মা। ২৭শে মার্চ ২০২২, সেই ইতিহাসই যেন আরও একবার ফিরে এল আইআইটি খড়গপুরে। এদিন বিনোদ গুপ্তাকে ডক্টর অব সায়েন্স ডিগ্রী প্রদান করল আইআইটি।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

১৯৬৭ সালে আইআইটি খড়গপুর থেকে স্নাতক হন বিনোদ গুপ্তা। তারপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেব্রাস্কা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতককোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন কৃষিবিদ্যা এবং বিজনেস ম্যানেজমেন্টে। পড়াশুনার সাথে সাথেই চালিয়ে যাচ্ছিলেন মার্কিনী শহর গুলির বাজার বীক্ষন। আর সেই অভিজ্ঞতা থেকেই শুরু করলেন নিজের ব্যবসা আমেরিকা বিজনেস ইনফরমেশন যা এখন InfoUSA Inc নামে বিশ্বখ্যাত। সেই থেকেই রয়ে গেছেন একজন মার্কিন নাগরিক হিসাবেই কিন্তু ভুলে যাননি নিজের শেকড়। নিজের প্রাক্তন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আইআইটি খড়গপুরের পাশাপাশি ছোটবেলার স্কুল রামপুরে গড়ে তুলেছেন আর্ট সায়েন্স ব্লক যার উদ্বোধন করেছিলেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিন্টন (Bill Clinton)। শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য একটি বিশ্বমানের পলিটেকনিক কলেজও গড়ে তুলেছেন রামপুরে। করোনা কালে আইআইটির মেস কর্মী, সাফাইকর্মীদের জন্য বড় অংশের অনুদান তুলে দিয়েছেন বিনোদ গুপ্তা। নিজের কৃতিসন্তানকে তাই ডক্টর অফ সায়েন্স ডিগ্রী তুলে দিতে পেরে গর্বিত আইআইটি খড়গপুরও।

এদিন আইআইটি খড়গপুরে পেটাস্কেল সুপারকম্পিউটার ‘পরম শক্তি’ (PARAM Shakti) কে জাতির উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মাননীয় রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। ভারত সরকারের  National Supercomputing Mission (NSM)র অধীনে আইআইটি খড়গপুর এটি পরিচালনা করবে। Ministry of Electronics and Information Technology (MeitY) এবং Department of Science and Technology (DST) উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এই সুপার কম্পিউটার পূর্বভারতের যাবতীয় তথ্য সংগ্ৰহ করবে এবং জনস্বার্থে প্রদান করবে। এই পরম শক্তির উদ্বোধন অনুষ্ঠানের পাশাপাশি বিনোদ গুপ্তাকে সম্মানিত করার অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে নিজেকে গর্বের অংশীদার হিসাবে বর্ননা করে রাজ্যপাল বলেন , আইআইটির প্রাক্তনীরা শুধু আইআইটির সম্পদই নয়, তাঁরা আমাদের দেশেরও সম্পদ। সেই রকমই এক সম্পদ হলেন বিনোদ গুপ্তা।

- Advertisement -
Latest news
Related news