Monday, April 15, 2024

Whatsapp Outage: হোয়াটসঅ্যাপ স্বর্গদেশে মহা বিশৃঙ্খলা! ২ঘন্টা থমকে গেল ২০০কোটির বিশ্ব

WhatsApp is back after almost two hour-long outage. The service went down for users across several parts of the world. The instant messaging website is showed connection/server error. Users reported that they are not able to make calls or send messages on the Facebook-owned messaging platform. Some users in India also reported trouble while sending images and videos. This is the biggest outage reported this year. The last-longest disruption in WhatsApp services was reported on October 5, 2021. During that time Facebook family of apps went down including Instagram. As per the Downdetector website, which tracks internet outages, users started reporting issues starting at 12.07 pm and they peaked around 12.51 pm. Downdetector tracks outages by collating status reports from a number of sources including user-submitted errors on its platform.The extent of the disruption is not known. However, the outage appeared widespread. In India, the affected cities include Mumbai, Delhi, Kolkata, and Lucknow, but users from the US, Germany, South Africa, Bahrain, Bangladesh and several other countries also.

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: ২ ঘন্টা থমকে গেল ২০০ কোটির হোয়াটসঅ্যাপ বিশ্ব। স্তব্ধ হয়ে রইল বিশ্বের সমস্ত দেশের বার্তা প্রেরনের হোয়াটসঅ্যাপ মাধ্যম। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ হঠাৎ করেই গোলমাল শুরু হয় হোয়াটসঅ্যাপ পরিষেবা আর মেটা সংস্থার কালঘাম ছুটিয়ে যা ঠিক হতে হতে দুপুর ২টা বেজে ১৫মিনিট। আর এরই মধ্যে তোলপাড় বিশ্বের পাঁচ মহাদেশ। বিশ্বের সর্বাধিক পরিচিত অন লাইন টুল ডাউন ডিটেক্টর ১২ টা বেজে ৭ মিনিটে প্রথম সমস্যা চিহ্নিত করে আর দুপুর ১ টার মধ্যেই ২৫ হাজার অভিযোগ দায়ের হয় যার ৭০% জানায় তারা কোনও ম্যসেজ পাঠাতে পারছেনা বাকিরা জানান তাদের আ্যপ নেটওয়ার্ক দুনিয়া থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। দুপুর আড়াইটা নাগাদ অভিযোগের সংখ্যা কমে তিন হাজারে দাঁড়িয়েছে বলে জানা গেছে। ভারত ছাড়া হোয়াটসঅ্যাপের বড় বাজার আছে ইতালি এবং তুরস্কে। এছাড়াও ইংল্যান্ডের একটি বড় অংশ ব্যক্তিগত বার্তা আদান প্রদানের জন্য এই মাধ্যমের ওপর নির্ভর করে। সব মিলিয়ে গোটা বিশ্বের একটা বড় অংশ জুড়ে বিপর্যয় নেমে আসে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

হোয়াটসঅ্যাপ বিপর্যয় ভারতের জন্য আরও মারাত্মক হওয়ার কারন হল ফেসবুকের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ‘মেটা’র এই মেসেঞ্জার পরিষেবা ভারতের বহু সরকারি এবং বেসকারি অধিকাংশ অফিসেও ব্যবহার করা হয়। মঙ্গলবার দীপাবলীর কারনে কিছু সরকারি অফিসের আংশিক কাজকর্ম বন্ধ থাকলেও পিক আওয়ারে চলা বেসরকারি অফিস গুলি কার্যত মুখ থুবড়ে পড়ে। আচমকা পরিষেবা থমকে যাওয়ায় কাজে সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। দেশ জুড়ে ব্যবহারকারীরা অভিযোগ জানাতেও শুরু করেন। মুম্বাই, দিল্লি, কলকাতা, লক্ষ্ণৌ ইত্যাদি বড় শহর গুলিতে হৈ চৈ পড়ে যায়। পাশাপাশি বিশ্ব জুড়ে সমস্যায় পড়েন কোটি কোটি গ্রাহক। মেটার তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয় যত দ্রুত সম্ভব পরিষেবা ঠিক করার চেষ্টা করছে। মেটা সূত্রে জানা গেছে ঠিক এক বছর আগেই ৫ই অক্টোবর বিশ্বব্যাপী ৬ ঘন্টা ধরে হোয়াটসঅ্যাপ বিপর্যয়ের পর মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফায় এত বড় বিপর্যয়ের মুখে পড়ল মেটা।

এদিন মেটা সংস্থার বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীরা আরও অভিযোগ ‌করেন যে, সাধারণত পরিষেবায় গোলমাল দেখা দিলে টুইটারে হোয়াটসঅ্যাপের অফিশিয়াল অ্যাকাউন্টে এ ব্যাপারে আপডেট দেওয়া হয়। কিন্তু মঙ্গলবার সেখানেও এ ধরনের কোনও খবর দেওয়া হয়নি। ফলে চরম বিভ্রান্তি শুরু হয়। প্রথম দিকে অনেকেই মনে করেন ইন্টারনেট সার্ভার বসে যাওয়ায় এই সমস্যা। অনেকেই স্থানীয় ইন্টারনেট সংযোগ প্রদানকারী সংস্থাগুলিকে অভিযোগ করতে থাকেন। দুপুর দেড়টা নাগাদ বিবৃতি জারি করা হয় মেটার তরফে। সেই বিবৃতিতে তারা গোলমালের কারণ না জানালেও, বিভিন্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, দেশ জুড়ে হোয়াটসঅ্যাপের সার্ভার ডাউন হয়ে যাওয়ার কারণেই এই গন্ডগোল দেখা দিয়েছে। যদিও ঠিক কী কারণে এই সমস্যা তার ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি সংস্থার তরফে।

- Advertisement -
Latest news
Related news