Wednesday, May 22, 2024

Bengal Civic poll: ভোটের আগেই ২ পুরসভার দখল নিল তৃনমূল কংগ্রেস! বিজেপি কোথায়? প্রশ্ন বজবজ আর সাঁইথিয়ায়

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: বুধবার পৌরসভা নির্বাচনের (Municipal Election 2022) মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর দেখা গেল ২টি পৌরসভা ভোটের আগেই দখল নিয়ে নিল শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস। সব চেয়ে বড় কথা ২০২১ সালে যারা রাজ্যের ক্ষমতা দখল করতে চলেছে বলে দাবি করেছিল সেই বিজেপির কার্যত অস্থিত্বই মুছে গেছে ওই দুটি পৌর এলাকা থেকে। ১টি পৌরসভায় বিজেপি প্রার্থীই দিতে পারেনি আর অন্যটায় মাত্র ২টি আসনে প্রার্থী দিতে পেরেছে বিজেপি। বিধানসভা ফলাফল ঘোষণার পর থেকেই বিজেপি ভাঙতে শুরু করেছিল কিন্তু তা যে এ রাজ্য থেকে মুছে যাওয়ার পথে তারই বোধহয় প্রমান রাখতে চলেছে আগামী ২৭শে ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া পুরভোট।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

২৭ ফেব্রুয়ারি ভোটের জন্য রাজ্যে বুধবারই ছিল মনোনয়নের (Nominaation Filing)
শেষ দিন। সেই মনোনয়ন শেষে দেখা গেছে দক্ষিণ ২৪পরগনার বজবজ পুরসভা ও বীরভূমের সাঁইথিয়া পুরসভার অধিকাংশ আসনেই প্রার্থী দিতে পারেনি বিরোধীরা। যদিও বা বামেরা কিছুটা প্রার্থী দিতে পেরেছে, বিজেপি লড়াইতেই নেই। ওই দুটি পুরসভার
মোট ৩৬টি আসনের মধ্যে বিজেপি মাত্র ২টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে আর সিপিএম দিয়েছে ১১টি আসনে। যে কংগ্রেসকে রাজ্যে অস্তিত্বহীন বলে ব্যঙ্গ করে বিজেপি সেই কংগ্রেসও বিজেপির চাইতে ১টি বেশি আসনে প্রার্থী দিয়েছে।

যেমন বজবজ পুরসভার ১২টি ওয়ার্ডেই নেই বিরোধী প্রার্থী। প্রসঙ্গত, বজবজ পুরসভায় মোট ওয়ার্ড ২০টি। যার ফলে সেখানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে প্রয়োজন ১১ টি ওয়ার্ড। কিন্তু বজবজের ২০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১২টি ওয়ার্ডই বিরোধীশূন্য থাকায় মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষদিনেই পুরসভার দখল নিল তৃণমূল। উল্লেখ্য, বজবজে ২০টি ওয়ার্ডের মধ্যে মাত্র ২টি ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থী। আর ২০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ডে বাম ও ৩টিতে কংগ্রেস প্রার্থী দিয়েছে।

পাশাপাশি বিনা লড়াইয়ে সাঁইথিয়া পুরসভাও এসেছে তৃণমূলের দখলে। সেখানের ১৬টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১৩টি ওয়ার্ডে নেই কোনও বিরোধী প্রার্থী। সাঁইথিয়ার ৩টি ওয়ার্ডে প্রার্থী দিয়েছিল শুধু বামেরা। সাঁইথিয়া পুরসভার কোনও ওয়ার্ডেই নেই বিজেপি প্রার্থী। ১০৮টি পুরসভার ভোটে আজই মনোনয়নের শেষ দিন। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পরই শুরু হয় তাঁদের কর্মী সমর্থকদের জয়োল্লাস। সরকারি ভাবেও এদিন সেই ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে বঙ্গ বিজেপির বেলা কী তবে ফুরিয়ে এল?

- Advertisement -
Latest news
Related news