Monday, May 20, 2024

Haldia IOC Fire Killed 3: মহড়া শেষ হতেই ভয়াবহ আগুন হলদিয়া তৈল শোধনাগার IOC তে! মৃত্যু ৩জনের, আহত ৪৪

The horrible memory of the fire returned to the Haldia industrial city. A fire at the Indian Oil Corporation (IOC) on Tuesday killed at least three people. Injured in the incident about 37 people.The death toll is expected to rise as the condition of many of them is critical. 7-8 engines of fire brigade are trying to bring the fire under control. East Midnapore district and Haldia subdivision administration and senior police officials have fled. Haldia municipality chairman Sudhanshu Mandal said, "Three people have died so far."

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: ফের আগুনের ভয়াবহ স্মৃতি ফিরল হলদিয়া শিল্প নগরীতে। মঙ্গলবার ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশন বা IOC তে আগুন লেগে অন্ততঃ ৩জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। ঘটনায় আহত হয়েছেন
প্রায় ৪৪ জন।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
আহতরা

এঁদের মধ্যে অনেকের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাচ্ছে দমকলের ৭-৮টি ইঞ্জিন। ছুটে গিয়েছেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা ও হলদিয়া মহকুমা প্রশাসন ও পুলিশের পদস্থ আধিকারিকরা। হলদিয়া পুরসভার চেয়ারম্যান সুধাংশু মন্ডল জানিয়েছেন, ‘এখনও অবধি ৩জনের মৃত্যু হয়েছে।’

সূত্রের খবর, হলদিয়া আইওসি রিফাইনারির ডিএইচডিএস ব্লকে মোটর স্পিরিট অর্থাৎ পেট্রল তৈরির ইউনিটে একটি কলামে ওয়েল্ডিং করার সময় অগ্নিকাণ্ড ঘটে। দুপুর আড়াইটে নাগাদ এই ঘটনা ঘটে। সেই ওয়েল্ডিংয়ের স্ফুলিঙ্গ থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে বলে খবর। সেখানে পেট্রোলিয়ামের মতো দাহ্য পদার্থ মজুত থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। কলামের ওপর কর্মরত বেশ কিছু শ্রমিক আগুনের বৃত্তের মধ্যে পড়ে ঝলসে যান।

আহতদের আইওসি ও বন্দরেরর সিপিটি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। গুরুতর আহতদের গ্রীন করিডর করে কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ঘটনার খবর পেয়েই আহতদের দেখার জন্য IOC র হাসপাতালে ছুটে যান পূর্ব মেদিনীপুর জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাজি, পুরসভার চেয়ারম্যান সুধাংশু মন্ডল। জেলা শাসক জানিয়েছেন, কী কারণে এই দুর্ঘটনা তা যেমন IOC কর্তৃপক্ষ খতিয়ে দেখবেন পাশাপাশি জেলা প্রশাসনও পৃথক ভাবে তদন্ত করবে। আহতদের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে চিকিৎসা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য ডিসেম্বরেই শুরু হয়েছে IOC র শাট ডাউন বা পূর্ণমাত্রায় মেরামতির কাজ। এই পর্যায়ে সমস্ত উৎপাদন বন্ধ রেখে কারখানায় সার্বিক মেরামতির কাজ চলে। এই কাজের জন্য প্রায় ৪হাজার অস্থায়ী শ্রমিক নিয়োগ করা হয়েছে। প্রায় ৪৮দিন ধরে এই কাজ চলবে। সেই কাজ চলার পাশাপাশি মঙ্গলবার কারখানা চত্ত্বরে একটি মক ড্রিল বা মহড়া শুরু হয়েছিল। আকস্মিক কোনও দুর্ঘটনা ঘটলে কিভাবে তা মোকাবিলা করা যায় তারই মহড়া চলছিল। সেই মহড়া শেষ হবার পরেই ঘটে যায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। দুর্ঘটনায় হতাহতদের অধিকাংশই ভিন রাজ্যের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ভয়াবহ আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছিল হলদিয়া পেট্রো ক্যামিকেলের ন্যাপথা প্ল্যান্টে। ঘটনায় প্রায় ১৩জন অগ্নিদগ্ধ হয়েছিলেন যার মধ্যে পরবর্তী কালে ৪ জনের মৃত্যু হয়। তারপরও এই পেট্রোক্যাম ছাড়াও হলদিয়ার বিভিন্ন কারখানায় আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে কিন্তু মঙ্গলবারে IOC ভয়াবহ ঘটনা ফিরিয়ে দিল সেই ২বছর আগের স্মৃতিকেই।

- Advertisement -
Latest news
Related news