Monday, May 20, 2024

Tragic Accident: ফের পূর্ব মেদিনীপুরের জাতীয় সড়কে ভয়াবহ দুর্ঘটনা! বাসের চালক সহ নিহত ৩, দুই আশঙ্কাজনক সহ আহত ১২

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: ফের পূর্ব মেদিনীপুরের জাতীয় সড়কে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল ৩জনের।  ঘটনায় আরও ১২ জন নারীপুরুষ আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। আহতদের মধ্যে ২জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। শুক্রবার সাত সকালে প্রাণঘাতী দুর্ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দিঘা-নন্দকুমার ১১৬বি জাতীয় সড়ক চণ্ডীপুর থানার নরঘাট ব্রিজের উপর ।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
আহতদের দেখছেন পুলিশ আধিকারিক অতীশ বিশ্বাস

গত মাসের শেষেই এই ১১৬ বি জাতীয় সড়কের সংযোগকারী ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল কলকাতার বিজেপি নেত্রী ৮৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তিস্তা বিশ্বাস দাসের। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই জেলারই অন্য একটি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যু যাত্রী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সকালে খেজুরি থেকে হাওড়া যাওয়ার পথে একটি সবজি বোঝাই ৪০৭ ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় বাসটির। এই দুর্ঘটনার জেরে আরো ২টি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সঙ্গে আরও দুটি গাড়িও দুর্ঘটনায় জড়িয়ে পড়ে। প্রাথমিক ভাবে ১৭ জনের আহত হওয়ার কথা শোনা যায় ৷ জেলা পুলিশ জানায়  ৫ জনের অবস্থা গুরুতর ৷ ওই ৫  জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরই  ৩ জনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা ৷ বাদবাকি ২ জনের অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক ৷

নিহতদের মধ্যে এক মধ্যবয়স্ক যাত্রীর পরিচয় পুলিশ এখনও উদ্ধার করতে পারেনি। অপর মৃতরা হলেন বাসের চালক লালমোহন নায়েক (৪০) এবং চালকের ঠিক পেছনে বসে থাকা এক যাত্রী ভূপতি চরণ পাল (৫১)। নিহত ২জনের বাড়ি খেজুরি এলাকায়। চালক ট্যংরামারি ও যাত্রী দেখালি এলাকার বাসিন্দা। বাদবাকি আহত ১২ নারী পুরুষদের অধিকাংশই খেজুরি এলাকার বাসিন্দা। এঁরা প্রায় হাওড়া ও কলকাতায় বিভিন্ন পেশায় নিযুক্ত। ভোররাতের বাস ধরে বাড়ি ফিরছিলেন।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের মধ্যে দুর্ঘটনার জন্য মূলতঃ দায়ী বাসের প্রচন্ড বেপরওয়া গতি। রাস্তার সামনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রেলারকে পাশ কাটাতে গিয়ে সরাসরি সবজি বোঝাই গাড়িটিকে মুখোমুখি ধাক্কা মারে দুরন্তগতিতে থাকা বাসটি। ওই অবস্থাতেই বাসটি গিয়ে আরও একটি ট্রাককে। ওই সময় ট্রাকের পেছনে থাকা একটি মারুতি এসে ধাক্কা মারে ট্রাকটিকে। দুর্ঘটনার অভিঘাতে ভ্যান ও বাসের সামনের অংশ সম্পূর্ণ দুমড়ে মুচড়ে যায় ৷ রাস্তাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে শাক সবজি ৷ তীব্র আর্তনাদ ছড়িয়ে পড়ে আহত যাত্রীদের। ছুটে আসেন স্থানীয় মানুষ জন ও পুলিশ। একে একে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে এড়াশাল স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয় । পরে তাঁদের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে ৷

পরে পুলিশ ক্রেনের সাহায্যে ভেঙেচুরে যাওয়া বাস ও ভ্যান সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয় ৷ এদিকে দুর্ঘটনার পর দিঘা-নন্দকুমার ১১৬ বি জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন ক্রুদ্ধ স্থানীয় মানুষজন ৷ রাস্তায় প্রবল যানজটের সৃষ্টি হয় ৷ দু’পাশেরই প্রচুর যানবাহন  আটকে পড়ে। এমন কী রেহাই পায়নি অ্যাম্বুলেন্সও ৷ চণ্ডীপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোধ তুলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে ৷  কারণে এমন মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটল, তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ । দুর্ঘটনাগ্রস্ত ৪ গাড়িকেই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তমলুক মহকুমা আধিকারিক অতীশ বিশ্বাস দুর্ঘটনা পরবর্তীকালীন সমস্ত পুলিশি অপারেশনের নেতৃত্ব দেন। বিশ্বাস বলেন, কী কারণে দুর্ঘটনা তা খতিয়ে দেখছি আমরা। তবে আমাদের এই মুহূর্তে প্রাথমিক গুরুত্ব আহতদের চিকিৎসার বিষয়টি দেখা।

- Advertisement -
Latest news
Related news