Saturday, May 25, 2024

Facebook Live: কোমরে দড়ি দিয়ে ঘোরানো, গাছে বেঁধে মার মেয়ে-জামাইকে! ফেসবুক লাইভ করে আত্মহত্যা বাবা-মা-ভাইয়ের

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ তুলে মেয়ে ও জামাইকে কোমরে দড়ি দিয়ে পাড়ায় ঘোরানোর পর গাছে বেঁধে মারধর করা হয়েছিল। তারপরই ফেসবুক লাইভে এসে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করল মেয়ের মা,বাবা এবং ভাই। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ডায়মন্ড হারবার থানার সুলতানপুরে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে মৃতরা হলেন অভিযুক্ত মেয়ের মা ও বাবা শ্যামল (৫৩) ও রিতা নস্কর (৪৩) এবং ভাই অভিষেক (২৫) । আত্মহত্যার আগে ফেসবুকে অভিষেক সুলতানপুরের কিছু বাসিন্দার ওপর ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলে গেছেন, তাঁর দিদিকে আর্থিক প্রাতরনার মিথ্যে অভিযোগে ফাঁসিয়ে অপমান করা হয়েছে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

যদিও ঠিক কী কারণে একই পরিবারের তিন জন আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন, তা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে তবে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে সম্ভাব্য দুটি কারনে সপরিবারে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। প্রথমত: মেয়ের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগে তাঁরা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ও লজ্জিত হয়েই এই ঘটনা ঘটিয়েছেন অথবা দ্বিতীয়ত: পাড়া-প্রতিবেশীদের হাতে মেয়ে জামাইয়ের চূড়ান্ত অপমানিত হওয়া মেনে নিতে পারেননি তাঁরা। যে কারনে এই পথ বেছে নিয়েছেন। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৫জনকে।

উল্লেখ্য কিছুদিন আগেই সুলতানপুরের ওই মহিলা পুনম দাসের বিরুদ্ধে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর অর্থ তছরুপের অভিযোগ ওঠে। অভিযোগ ছিল পুনম স্বনির্ভর গোষ্ঠীর নেত্রী হওয়ার সুবাদে নিজের নামে ব্যাংক থেকে দু’দফায় আড়াইলক্ষ টাকা লোন নিয়েছিলেন এবং তা নিজের কাজে লাগিয়েছেন যা গোষ্ঠীর অন্য সদস্যরা জানতেও পারেনি। এছাড়া স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের জমা করা টাকাও আত্মসাৎ করার অভিযোগ ওঠে পুনমের বিরুদ্ধে। শনিবার দুপুর নাগাদ পুনমের শ্বশুরবাড়িতে কিছু মহিলা চড়়াও হয়ে পুনম ও তাঁর স্বামী মিঠুন দাসকে গাছের সঙ্গে বেঁধে প্রকাশ্যে মারধর করা হয়।

জানা গেছে মারধরের পাশাপাশি স্বামী-স্ত্রীকে কোমরে দড়ি পরিয়ে গ্রামে ঘোরানোও হয়। ওই ঘটনার ভিডিয়ো করে তা নেটমাধ্যমেও তা ছড়িয়ে দেওয়া হয় বলে খবর। ভাইরাল ভিডিও ক্লিপ ঘুরতে থাকে মানুষের হাতে হাতে। ঘটনার পরই স্বামী-স্ত্রী দুজনেই এলাকা ছাড়েন। এখনও অবধি খোঁজ মেলেনি তাঁদের। অভিযোগ ওখানেই ক্ষান্ত হননি গ্রামবাসীরা তাঁরা পুনমের তাঁর বাপের বাড়িতে গিয়েও বাবা শ্যামল নস্কর ও মা রীতা নস্করকে চূড়ান্ত অপমান করেন কিছু মহিলা। হুমকিও দেওয়া হয়।

পরের ঘটনা রবিবার সকালে। ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল থানার বকখালির সমুদ্র সৈকত লাগোয়া জঙ্গলের কাছে গিয়ে ফেসবুক লাইভ করে আত্মহত্যা করেন শ্যামল, রীতা ও পুনমের ছোট ভাই অভিষেক। ফেসবুক লাইভে অভিষেক উল্লেখ করেন, তাঁর দিদিকে মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছে। ব্যাংকের ম্যানেজার এবং স্বনির্ভর গোষ্ঠীর কয়েকজন সদস্যই আদতে টাকা আত্মসাৎ করেছে। মানসিক অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে বাবা-মাকে নিয়ে বকখালিতে (Bakkhali) পালিয়ে যান ওই যুবক। শেষমেশ আত্মহত্যা করেন তাঁরা। এই ঘটনার তদন্তে নেমেছে ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল, ডায়মন্ড হারবার ও কুলপি থানার পুলিশ। এই ঘটনায় ধৃত ৫ মহিলাকে এদিন আদালতে তোলা হয়। তাদের ৩ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। এই ঘটনার পর থেকে খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না পুনম, তাঁর স্বামী এবং সন্তানের। তাঁদেরও খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ।

- Advertisement -
Latest news
Related news