Friday, April 19, 2024

Poison: প্রতিহিংসামূলক বদলি! বিকাশ ভবনের সামনেই বিষ খেলেন ৫ শিক্ষিকা

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: মুখ দিয়ে ফেনা গড়িয়ে পড়ছে কারও, কারও উঠে আসছে সাদা বমি, কেউ আবার যন্ত্রনায় মাটিতে গড়াগড়ি খাচ্ছেন। প্রায় সবারই শরীরে শুরু হয়েছে কীটনাশক খাওয়ার প্রতিক্রিয়া। মঙ্গলবার শিক্ষক আন্দোলনের এক মর্মান্তিক রূপ দেখল মঙ্গলবারের বাংলা। ওই ৫ শিক্ষিকা দাবি করেছেন তাঁদের ‘প্রতিহিংসা’মূলক বদলি করেছে সরকার, বদলি করা হয়েছে শত শত মাইল দুরে। তাঁরা যা বেতন পান তাতে এমনিতেই বাড়ি থেকে অতদুরে গিয়ে মরতে হবে তাঁদের তাই তাঁরা বিকাশ ভবনের সামনেই বিষ খেয়ে মরতে এসেছেন। প্রায় বলার সাথে সাথেই সঙ্গে আনা বিষের বোতল খুলে মুখে ঢালতে থাকেন।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

কিছু বুঝে ওঠার আগেই হঠাৎই এই ঘটনায় হতভম্ব হয়ে পড়ে পুলিশ প্রশাসন। যখন পুলিশ সক্রিয় হয় তখন শুরু হয়ে গেছে বিষের প্রতিক্রিয়া। গত ১১বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বাধীন সরকারের আমলে বারংবার শিক্ষক আন্দোলন আছড়ে পড়েছে রাজ্যের বিভিন্ন অংশ ও কলকাতায় কিন্তু মঙ্গলবার সমস্ত নজির ছাড়িয়ে গেল।
জানা গেছে শিক্ষিকারা এসএসকে বা শিশুশিক্ষাকেন্দ্র বা এমএসকে মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রের বৃত্তিমূলক শিক্ষিকা যাঁরা খুবই কম বেতন পান।

এঁদের অভিযোগ, তাদের মধ্যে এক শিক্ষিকার বাড়ি মুর্শিদাবাদ ভগবানগোলা এলাকার শিক্ষিকা ফাজেলা সাতেহা যাঁকে দক্ষিণ দিনাজপুরে বদলি করা হয়েছে। মুর্শিদাবাদের আরেক শিক্ষিকা ছবি রানী দাস হাজরাকে জলপাইগুড়ি বদলি করা হয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরের জোৎস্না টুডুকে জলপাইগুড়ি বদলি করা হয়েছে। শিখা দাসকে বদলি করা হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর থেকে কোচবিহারে বদলি করা হয়েছে। পুতুল মন্ডলকে বদলি করা হয়েছে দক্ষিণ ২৪পরগনা থেকে কোচবিহারে।

এক শিক্ষিকা বিষ খাওয়ার আগে জানান, আমার ৩জন সন্তান রয়েছে। বেতন পাই মাত্র কয়েক হাজার টাকা। ওই টাকায় কয়েকশ মাইল দুরে গিয়ে আমাদের সংসার চলবে কী করে? শিক্ষিকারা আরও দাবি করেছেন সরকারের বিভিন্ন নীতির প্রতিবাদ করায় ইচ্ছাকৃত ভাবে প্রতিহিংসা মূলক আচরণ করছে এই সরকার। তাঁরা শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন কিন্তু পুলিশ তাঁদের দেখাই করতে দিচ্ছেনা।এরপরই বিকাশ ভবনের গেট পেরিয়েই ব্যাগে রাখা কীটনাশকের বোতলের ছিপি খুলে মুখে ঢালতে থাকেন। গোটা ঘটনায় হকচকিয়ে যায় সামনে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশ আধিকারিক। এরপরই পুলিশের তরফে ৫ জনকেই বিধাননগর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবারের এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। স্কুল শিক্ষা সচিবের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন শিক্ষামন্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের সদস্য পাঁচ জনই। শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের চুক্তিভিত্তিক শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত। বিভিন্ন ইস্যুতে তাঁরাই বহুদিন ধরে আন্দোলন করছিলেন। তাঁদের কথায়, “আমরা চুক্তিভিত্তিক শিক্ষিকা। নয়া শিক্ষানীতি কার্যকর হলে তো আমাদের চাকরি থাকবে না।” চাকরির স্থায়ীকরণ-সহ একাধিক দাবিতে দীর্ঘদিন ধরেই তাঁরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। কখনও মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির কাছে, তো কখনও নবান্নে আবার কখনও শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন তাঁরা। গ্রেপ্তারও হয়েছেন। অভিযোগ, নবান্নের সামনে বিক্ষোভ দেখানোর পরই নাকি পাঁচজন শিক্ষিকা-সহ মোট ১৬ জনকে উত্তরবঙ্গে বদলির নির্দেশ আসে। অথচ তাঁরা দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন স্কুলে কর্মরত ছিলেন।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, তাঁদের বাড়ি থেকে ৬০০-৭০০ কিলোমিটার দূরে এক একজনকে বদলি করা হয়েছে। যা একেবারে অনৈতিক এবং বেআইনি।  এদিন এই বদলির প্রতিবাদে বিকাশ ভবনের সামনে জড়ো হয়েছিলেন তাঁরা। তার পরই ঘটে যায় এমন ঘটনা। এখনও অবধি জানা গেছে ৫ জনের মধ্যে ২জনকে এনআরএস হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় এই খবর ছড়িয়ে পড়েছে গোটা রাজ্য জুড়েই। ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে জনমানসে।

 

- Advertisement -
Latest news
Related news