Monday, April 15, 2024

Midnapore: সবং ও দাঁতনে পাগলা কুকুরের কামড়ে আহত ১১ শিশু সহ ৩৮ জন! আক্রান্ত ১২ গবাদি পশু, ১১ জনকে পাঠানো হল মেদিনীপুর মেডিক্যালে

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: পাগলা কুকুরের ভয়াবহ আক্রমনে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং থানা এলাকায় ৬ টি গ্রামে ১১ জন শিশু সহ মোট ১৯ জন ব্যাক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ৬ শিশু সহ ১০ জনের জখম খুবই মারাত্মক হওয়ায় তাঁদের মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাপাতালের স্থানান্তরিত করা হয়েছে যার মধ্যে ৩ জনের অবস্থা সঙ্কটজনক। এদের মধ্যে একটি শিশুও রযেছে যার গলার টুঁটির খুব কাছে দাঁত বসিয়ে দেয় কুকুরটি। পাশাপাশি ওই পাগলা কুকুরের আক্রমনে ১০ টি গবাদি পশু জখম হয়েছে। প্রায় ৩ ঘন্টা ধরে একের পর এক গ্রামে আক্রমন করে কুকুরটি। অবশেষে একটি গ্রামের মানুষ কুকুরটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

স্থানীয় মানুষ জন জানান, সবং থানার ঠিক পেছন দিকে ২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ভুয়া গ্রামে সকাল ৮ টা নাগাদ প্রথম আক্রমন চালায় কুকুরটি। বাড়ির বাইরে খেলতে থাকা কয়েকটি বাচ্চাকে কামড়ায়। মানুষ জন প্রথমে কিছু বুঝে ওঠার আগেই বেশ কয়েকজন জখম হয়ে পড়েন। এরপরই মানুষেরা লাঠিসোটা নিয়ে বেরুলে কুকুরটি পালিয়ে পাশের গ্রামে চলে যায়। সেখানকার মানুষ কিছু বুঝে ওঠার আগেই ফের কয়েক জন আক্রান্ত হন। সেখান থেকে ফের তাড়া খেয়ে অন্য গ্রামে ঢুকে পড়ে সেটি। এরপর ডাঙাবাড়ি, গড়বাড়, রায়পাড়া, সাঁওতা, নাকিন্দি প্রভৃতি গ্রামে সব মিলিয়ে ১৯ জনকে কামড়ায়। নাকিন্দি গ্রামের মানুষ শেষ অবধি কুকুরটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

সবং গ্রামীণ হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে এদিন সকাল পৌনে ন’টা নাগাদ প্রথম আক্রান্ত এসে পৌঁছায়। এর আধ ঘন্টা পর থেকে একের পর এক আক্রান্ত আসতেই থাকে। গোটা হাসপাতাল জুড়ে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রাণান্তকর অবস্থা হয়ে পড়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে। আক্রান্তদের মধ্যে শিশুদের আঘাতই সবচেয়ে গুরুতর কারন বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কুকুরটা তাদের পেট, পিঠ ও গলা, মুখের অংশে কামড়েছে। একটি শিশুর গলা থেকে মাংস তুলে নিয়েছে কুকুরটি। অন্য একটি শিশু ঘটনাস্থলেই মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে কারন তার শ্বাসনালীর খুব কাছেই দাঁত বসিয়ে দিয়েছে কুকুরটি। ১০ জনের আঘাত গুরুতর হওয়ায় তাঁদের মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিন দাঁতন থানা এলাকার মোগলমারিতেও পাগলা কুকুরের কামড়ে এক সিভিক ভলান্টিয়ার সহ ১৯ জন কুকুরের কামড়ে আহত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যেই অধিকাংশই মহিলা বলে জানা গিয়েছে। ভোর বেলায় ফুল তুলতে গিয়ে মহিলারা ওই পাগলা কুকুরের আক্রমনের মুখে পড়েন বলে জানা গিয়েছে। ওই সময় বাজার করতে যাওয়ার পথে এক সিভিক ভলান্টিয়ারও কুকুরটির আক্রমনে পড়েন। ২টি গরুকেও কামড়ায় কুকুরটি।কজনকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা হয়। এখানেও কুকুরটিকে পিটিয়ে মারা হয়েছে বলে জানা গেছে। দুটি ক্ষেত্রেই প্রত্যেকের জন্য জলাতঙ্কের প্রতিষেধকের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।।

- Advertisement -
Latest news
Related news