Monday, April 15, 2024

Kharagpur Crime: খড়গপুর ওটি রোডে ফের দুস্কৃতি দৌরাত্ম্য! ছিনতাইয়ে বাধা পেয়ে ছাত্রীকে চলন্ত স্কুটির সাথে হেঁচড়ে নিয়ে গেল দুষ্কৃতিরা

It is learned that Tuesday the incident took place around 7.10 pm. The girl student of Class Twelve was returning home after the ceremony at the house of one of her friends. The mobile was in her hand. The girl was walking down the road from the gate of a compound near Kharagpur Autowal Building. Two youth on a blue scooty were on the road, slightly to the right in front of the student. The scooty was driven by a younger wearing a maroon shirt, and behind the scooter was a rider wearing a white shirt. As the girl was about to get on the road, the driver of the scooty pulled the scooty off the road and moved towards the back of the girl and turned the scooty to the right of the girl. Then the rider in the back goes to snatch the student's mobile. The driver could not drive the scooter at first as the place was crowded. The student grabbed the mobile. The rider in the back grabbed the student's mobile phone and grabbed her by the right hand and pulled her towards the ত্ব wheeler.The student suddenly fell on the scooty. At that time, due to the speed of the scooter, the student also started rubbing in that condition. Going a little farther, the miscreants snatched the student's mobile phone, pushed her off the scooty and fled. Unable to cope with the speed of the scooter, the student slipped away. Her arms and legs were scattered and injured. Upon receiving the news, the family members of the student took her to the hospital. He later lodged a complaint with Kharagpur Town Police Station. Police have started searching the area after collecting CCTV footage. The incident has spread panic in the area.

- Advertisement -spot_imgspot_img
Girl on trauma

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভর সন্ধ্যায় ভয়াবহ দুষ্কৃতি দাপট দেখল খড়গপুর শহরের ইন্দা এলাকা। মোবাইল ছিনতাইয়ে বাধা দেওয়ায় এক ছাত্রীকে চলন্ত স্কুটির সঙ্গে হেঁচড়ে নিয়ে গেল দুস্কৃতিরা। এরপর ছাত্রীকে ছুঁড়ে ফেলে তার মোবাইল ছিনিয়ে গেল দুস্কৃতিরা। গোটা ঘটনাই ঘটেছে সন্ধ্যার ঝকঝকে আলোতে। এলাকার সিসিটিভি ক্যামেরাতে স্পষ্ট ধরা পড়েছে সেই দুস্কৃতি দৌরাত্ম্যের ছবি। এই ঘটনায় ফের আতঙ্ক তৈরি হয়েছে খড়গপুরের নিউ টাউন সংলগ্ন এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে অটোওয়াল বিল্ডিংয়ের কাছাকাছি খড়গপুর-মেদিনীপুর ও.টি রোডের ওপরেই।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে
Injury

জানা গেছে ঘটনাটি ঘটেছে সন্ধ্যা 7.10নাগাদ। ক্লাশ টুয়েলেভের ওই ছাত্রী তার এক বান্ধবীর বাড়ির অনুষ্ঠান সেরে বাড়ির দিকে ফিরছিল। তার হাতেই ধরা ছিল মোবাইলটি। অটোয়াল বিল্ডিংয়ের কাছাকাছি একটি কম্পিউন্ডের গেট থেকে ছাত্রীটি রাস্তায় উঠছিল। নীল রঙের একটি স্কুটিতে ২জন রাস্তার ওপরে ছাত্রীর সামনে কিছুটা ডানদিকে ছিল। স্কুটি চালাচ্ছিল মেরুন শার্ট পরা ১টি ছেলে, স্কুটির পেছনে ছিল সাদা সার্ট পরা একজন আরোহী। ছাত্রীটি যখন ওটি রোডে ওঠার জন্য এগিয়ে যায় তখন স্কুটির চালক গাড়ি রাস্তা থেকে নামিয়ে ছাত্রীটির পেছন দিকে চলে আসে এবং স্কুটি ঘুরিয়ে নিয়ে ছাত্রীটির ডানদিক ঘেঁষে চলে আসে। তারপর পেছনে থাকা আরোহী ছাত্রীর মোবাইল ছিনিয়ে নিতে যায়। জায়গাটি জনবহুল হওয়ায় প্রথমে স্কুটি জোরে চালাতে পারেনি চালক। ছাত্রীটি মোবাইল চেপে ধরে।

Miscreants folow girl মেয়েটির পেছন দিকে স্কুটি ঘোরালো দুস্কৃতিরা

এই সময় পেছনে থাকা ছেলেটি ছাত্রীর মোবাইল সমেত ডান হাত চেপে ধরে তাকে গাড়ির দিকে টেনে নিয়ে আসে। আচমকা টানে ওই ছাত্রী স্কুটির ওপর পড়ে যায়। ওই সময় স্কুটি স্পিড নেওয়ায় ওই অবস্থায় ছাত্রীও ঘসটাতে থাকে। কিছুটা দূরে গিয়ে ছাত্রীর মোবাইল ছিনিয়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে স্কুটি থেকে ফেলে দিয়ে দুস্কৃতিরা চম্পট দেয়। স্কুটির গতির ভার সামলাতে না পারায় ছাত্রীটি হিঁচড়ে বেশকিছুটা চলে যায়। তার হাত-পায়ের বিভিন্ন জায়গায় ছড়ে যায় এবং চোট লাগে। খবর পেয়ে ছাত্রীর পরিবারের লোকেরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে খড়গপুর টাউন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ ওই স্থানের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্ৰহ করে তল্লাশি শুরু করেছে। ঘটনায় তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়।

Scooty behind girl মোবাইল ছিনতাইয়ের ঠিক আগের মুহূর্ত

উল্লেখ্য গতবছরও লকডাউনের সময় এই জায়গাতেই ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তোলার পর এক গৃহবধূর টাকার ব্যাগ ছিনতাই হয় এমনই সন্ধ্যা বেলায়। পরে মেদিনীপুরের দিকে পালাতে গিয়ে গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হয় দুই দুষ্কৃতির। সেক্ষেত্রেও দুস্কৃতিরা স্কুটি ব্যবহার করেছিল এবং মঙ্গলবারের মতই মৃত দুস্কৃতিদের বয়স কমছিল। পুলিশ জানতে পারে মেদিনীপুরের শহরতলি থেকে এসেছিল দুষ্কৃতিরা। এই এলাকায় দ্রুত অপরাধ করে পালাতো তারা। এই ক্ষেত্রেও দুস্কৃতিরা মেদিনীপুরের দিক থেকে এসেছিল নাকি এই শহরেরই বাসিন্দা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সিসিটিভি থেকে ফুটেজের ছবি বের করে খোঁজ চলছে। বছর খানেক পর ফের এই ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে। ভর সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটলে শহর কতটা নিরাপদ সেই প্রশ্ন উঠছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news