Tuesday, June 25, 2024

CBI Manas Bhunia: সবংয়ের দুয়ারে বন্যা! সিবিআইয়ের দুয়ারে গেলেন না মানস ভূঁইয়া

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: রবিবার থেকে টানা বর্ষণ শুরু হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন এলাকার সাথে সবংয়েও। মাঝখানে কেলেঘাই আর কপালেশ্বরীর জল কিছুটা কমলেও নতুন করে বৃষ্টি ফের উদ্বেগ বাড়াচ্ছে বন্যা পরিস্থিতির। আর সেই কারণে সিবিআইয়ের তলবে সাড়া দিয়ে কলকাতা গেলেননা সবং বিধায়ক তথা রাজ্যের জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী মানস ভুঁইঞা। উল্লেখ্য সোমবার (২০শে সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টায় মানস ভুঁইঞাকে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে ডেকে পাঠিয়েছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। একটি ভুয়ো অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে সিবিআই। সেই তদন্তের জন্যই তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে বলেই জানা গেছে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সংবাদসংস্থা সূত্রে জানা গেছে, জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী সিবিআইয়ের সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের জানিয়ে দিয়েছেন,রাতভর টানা বৃষ্টিতে তাঁর নিজের এলাকা পশ্চিম মেদিনীপুরের সবংয়ে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। একজন জনপ্রতিনিধি হিসাবে এই সময় তাঁর নিজের এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ। সেই কারণে তিনি কলকাতায় এসে সিবিআই দপ্তরে হাজিরা দিতে পারছেন না বলে সোমবার। অনুকূল পরিস্থিতি তৈরি হলে তিনি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে সব ধরনের সাহায্য করতে প্রস্তুত। উল্লেখ্য এর আগেও তাঁকে এই মামলায় ডেকে পাঠিয়েছিল এনফোর্সমেন্ট ডিপার্টমেন্ট বা ইডি। এপ্রিল মাসের সেই তলবে সাড়া দিয়েছিলেন ভূঁইয়া। সেবার মানসের সঙ্গে পার্থ চ্যাটার্জী ও মদন মিত্রকেও ডেকে পাঠায় ইডি।

ইডির পর এবার সিবিআই এই মামলায় আগে তলব করেছিল তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। গত সপ্তাহে তাঁকেও সিজিও কমপ্লেক্সে তলব করা হয়েছিল। কিন্তু পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়ে দেন ভবানীপুরে উপনির্বাচনে ব্যস্ত থাকার কারণে পার্থবাবুও সিবিআই দপ্তরে যেতে পারবেননা। তবে কেন্দ্রীয় সংস্থার আধিকারিকরা চাইলে তাঁর বাড়ি বা অফিসে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি সহযোগিতা করবেন। সেইমতো নির্দিষ্ট সময়েও পার্থ চট্টোপাধ্যায় সিজিও কমপ্লেক্সে না যাওয়ায় সিবিআই আধিকারিকরা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কার্যালয় অর্থাৎ ক্যামাক স্ট্রিটের শিল্পভবনে গিয়ে তাঁকে ঘণ্টা দুয়েক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় আইকোর সম্পর্কে।

এবার নিজের এলাকায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের উল্লেখ করে মানস ভুঁইঞাও জানিয়ে দিলেন যে কলকাতায় গিয়ে হাজিরা দেওয়া তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়। প্রশ্ন উঠছে তাহলে এই দুর্যোগ পরিস্থিতিতে সিবিআই কী সবংয়ে এসেই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন অথবা তাঁর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন? তৃনমূলের তরফে অবশ্য বারংবার অভিযোগ আনা হয়েছে যে বাংলায় নির্বাচন আসলেই সক্রিয় হয়ে ওঠে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি। যেমন ভাবনীপুর উপনির্বাচনের মুখে বারবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে কিংবা তাঁর স্ত্রী রুজিরাকে দিল্লী ডেকে পাঠানো হচ্ছে। অভিষেক ২বার দিল্লীতে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হলেও তাঁর স্ত্রী রুজিরা জানিয়ে দিয়েছিলেন নিজের শিশুকে ছেড়ে তিনি দিল্লী যাবেননা। যদিও ফের তাঁকে দিল্লী তলব করা হয়েছে এবং তা তলব করা হয়েছে ভবানীপুরের উপনির্বাচনের দিনই।

- Advertisement -
Latest news
Related news