Monday, May 20, 2024

Dilip ghosh Removed: রাজ্য বিজেপির সভাপতি থেকে অপসারিত দিলীপ ঘোষ! দিলীপ জমানার অবসান ঘটিয়ে বঙ্গ বিজেপির নতুন সভাপতি সুকান্ত মজুমদার

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আরও অন্তত: চার মাস রাজ্যের দায়িত্বে থাকার কথা ছিল তাঁর কিন্তু তার আগেই আচমকাই সরিয়ে দেওয়া হল তাঁকে। যদি নীতি এবং নিয়মের কথা বলা হয় তবে বলতেই হবে এক কথায় অপসারিত করাই হল রাজ্য বিজেপির বিদায়ী সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। ২০১৫ সালে বিজেপির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব নিয়ে বঙ্গ বিজেপিকে অনেকটাই চাঙ্গা করেছিলেন তিনি। কিন্তু ৫বছরের মধ্যেই মুখ থুবড়ে পড়ে দিলীপ জাদু।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

এরপর ২০১৬ সালে খড়গপুর থেকে কংগ্রেসের দীর্ঘদিনের বিধায়ক চাচা জ্ঞান সিং সোহনপালকে হারিয়ে বিধায়ক। মাত্র দেড় বছরের মাথায় তৃনমূলকে পরাস্ত করে মেদিনীপুরের সাংসদ পদেও জয়ী হন তিনি। এই পর্যন্ত তিনি বিজেপিকে আসনের দিক থেকে খ্যাতির শীর্ষে নিয়ে যান তিনি। যে কারনে ২০২০তে ফের তিনি বিজেপি সভাপতি নির্বাচিত হন। এরপরই অবশ্য রাহুগ্রাস করে তাঁকে।

২০২১ বিধানসভায় আসন বাড়ালেও রাজ্য ক্ষমতার ধারে কাছে পৌঁছাতে পারেননি তিনি। তাঁর ‘কড়কে দেব’, ‘কেটে ফেলব’ ইত্যাদি ভাষ্য ক্রমশঃ দলের মধ্যেই বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি করতে শুরু করে। এদিকে দলের যুব নেতা সৌমিত্র খাঁ, নিশীথ প্রমানিক সহ একাধিক দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে বারংবার বিরোধে জড়িয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর বিরুদ্ধে দলের প্রবীণ নেতৃত্বকে বারংবার অসম্মান করারও অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ উঠেছে বঙ্গ বিজেপির নেতৃত্বকে বাদ দিয়ে শুধুমাত্র কৈলাশ বিজয়বর্গীয় সহ বহিরাগত নেতাদের নিয়ে বিধানসভা নির্বাচন জেতার রনকৌশল সাজাতে গিয়েই বঙ্গ বিজেপিকে ডুবিয়েছেন তিনি।

বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি তথা প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায় প্রকাশ্যে ট্যুইট করে দিলীপ ঘোষকে এইট পাশ, আইটিআই বলে ব্যঙ্গ করেন। তাঁর ভাষ্য লজ্জায় এবং সঙ্কোচে ফেলে দেয় বঙ্গ বিজেপির পরিশীলিত মননকে। বিধানসভা নির্বাচনের পর একের পর এক বিজেপি নেতা, বিধায়ক যোগ দিতে তৃনমুলে। এক বিজেপি বিধায়ক তো জানিয়ে দেন ‘যতদিন ওই ভদ্রলোক নেতা থাকবেন ততদিন বিজেপি ছেড়ে সবাই যেতেই থাকবে। সর্বশেষ বাবুল সুপ্রিয়র তৃনমূলে যোগদান জোর ধাক্কা দেয় রাজ্য বিজেপিকে। সম্ভবতঃ আর দেরি করতে রাজী হয়নি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। সোমবার রাজ্য বিজেপি-র এই সাংগঠনিক বদলের কথা ঘোষণা করেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডা।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় বঙ্গ বিজেপির সভাপতি হচ্ছেন সুকান্ত মজুমদার। তিনি বালুরঘাটের সাংসদ। যদিও সোমবার বিজেপির তরফে এই নির্দেশিকাতে দিলীপ ঘোষকে নতুন কোনও দায়িত্ব দেওয়া হবে কি না, তা এখনও স্পষ্ট করা হয়নি। তবে ওই সময়সীমার এতটা আগেই তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হবে তার আঁচ ঘুণাক্ষরেও পায়নি রাজ্য বিজেপি। এই ঘোষণার পর রাজ্য বিজেপির অন্দরে খুশি এবং বেদনা দু’ধরনেরই চোরা স্রোত বয়ে যাচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news